Alokito Sakal
মন্ত্রীর বাড়িতেই আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী
শুক্রবার, ৫ নভেম্বর ২০২১ ১২:৩৫ AM
Alokito Sakal Alokito Sakal :

বিশেষ প্রতিনিধি : লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার তুষভান্ডার ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে ‘বিদ্রোহী প্রার্থী’ হয়েছেন সাজেদা বেগম। উপজেলা রিটার্নিং অফিসার মাহাবুবা রহমান চেয়ারম্যান পদে সাজেদার ‘স্বতন্ত্র প্রার্থী’ হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিলের তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

চেয়ারম্যান প্রার্থী সাজেদা বেগম লালমনিরহাট-২ আসনের সংসদ সদস্য ও সমাজকল্যাণমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদের ছোট ভাইয়ের স্ত্রী। ফলে মন্ত্রীর বাড়িতেই নৌকা প্রতীকের বিরুদ্ধে ‘বিদ্রোহী প্রার্থী’ থাকায় তৃণমূল আওয়ামী লীগে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। পুরো জেলা জুড়ে চলছে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনাও।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, সাজেদা বেগম কালীগঞ্জ উপজেলার তুষভান্ডার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে ১ নভেম্বর মনোনয়নপত্র জমা দেন। তিনি সমাজকল্যাণ মন্ত্রীর ছোট ভাই কালীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মাহবুবুজ্জামান আহমেদের স্ত্রী। সাজেদা উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী হিসেবেও দায়িত্ব পালন করছেন।

তৃতীয় ধাপে লালমনিরহাট সদর ও কালীগঞ্জ উপজেলার ইউপি নির্বাচনে ২ নভেম্বর ছিল মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ তারিখ। নির্বাচনে অংশ নিতে প্রতিটি ইউনিয়নে দলীয় প্রার্থী ঘোষণা করেছে আওয়ামী লীগ। তুষভান্ডার ইউপিতে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান নুর ইসলাম।

বিদ্রোহী প্রার্থী সাজেদা বেগম সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি মনোনয়ন পাওয়ার যোগ্য। কিন্তু আমাকে মনোনয়ন না দিয়ে বিএনপি করতেন- এমন ব্যক্তিকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। তাই আমি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছি।’

লালমনিরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা মোতাহার হোসেন বলেন, দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে কেউ প্রার্থী হলে তাদের বিরুদ্ধে কেন্দ্রীয় নির্দেশ মোতাবেক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।