ঢাকা ০৮:৫৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

উ.কোরিয়ার বিরুদ্ধে কঠোর নিষেধাজ্ঞার দাবি জি-৭ গ্রুপের

জি-৭’র সদস্য দেশগুলো রোববার উত্তর কোরিয়ার ফের আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের ‘বেপরোয়া’ উৎক্ষেপণের নিন্দা এবং এ ধরনের পরীক্ষা বন্ধে ‘কঠিন’ পদক্ষেপ গ্রহণে জাতিসঙ্ঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

এ গ্রুপের সদস্য সাত দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা জানান, শান্তি ও স্থিতিশীলতার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের আহ্বান সত্ত্বেও এ অঞ্চলকে আরো অস্থিতিশীল করে তুলতে উত্তর কোরিয়া বারবার বিভিন্ন ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করছে।

উত্তর কোরিয়ার শুক্রবার উৎক্ষেপণ করা ক্ষেপণাস্ত্রটি তাদের একেবারে নতুন আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র (আইসিবিএম) এবং এটির যুক্তরাষ্ট্রের মূল ভূখণ্ডে আঘাত হানার ক্ষমতা রয়েছে বলেও ধারণা করা হচ্ছে।

এ ব্যাপারে দেয়া জি-৭’র এক বিবৃতিতে আন্তর্জাতিক গোষ্ঠীর ঐক্যবদ্ধ এবং বলিষ্ঠ জবাবের আহ্বান জানানো হয়। এক্ষেত্রে জাতিসঙ্ঘ নিরাপত্তা পরিষদের আরো কঠিন পদক্ষেপ গ্রহণের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে বলেও বিবৃতিতে বলা হয়।

জি-৭ গ্রুপ কানাডা, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি, জাপান, ব্রিটেন ও যুক্তরাষ্ট্রকে নিয়ে গঠিত। ইউরোপীয় ইউনিয়নের একজন প্রতিনিধি এ বিবৃতিতে মতামত দেন।

চলতি মাসে এ পর্যন্ত উত্তর কোরিয়া স্বল্প, মাঝারি ও দূর পাল্লার ৩০টি ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এক্ষেত্রে শুক্রবার উৎক্ষেপণ করা ক্ষেপণাস্ত্রটি হোক্কাইডোর পশ্চিমে জাপানের গুরুত্বপূর্ণ অর্থনৈতিক জোনে গিয়ে পড়ে।

উত্তর কোরিয়ার সরকারি বার্তা সংস্থা কেসিএনএ দাবি করে, শুক্রবার পরীক্ষা চালানো ক্ষেপণাস্ত্রটি ছিল হোয়াসং-১৭ ধাঁচের ক্ষেপণাস্ত্র। আর এটি উত্তর কোরিয়ার একেবারে ভিন্ন ধাঁচের একটি ক্ষেপণাস্ত্র এবং ক্ষেপণাস্ত্রটি কৌশলগত দিক থেকে বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী ক্ষেপণাস্ত্রগুলোর অন্যতম।
সূত্র : বাসস

Tag :
জনপ্রিয়

নির্বাচিত হলে ১৩নং ওয়ার্ড বাসীর জন্য এ্যাম্বুলেন্স উপহার দিব; রসিকের কাউন্সিলর প্রার্থী তুহিন

উ.কোরিয়ার বিরুদ্ধে কঠোর নিষেধাজ্ঞার দাবি জি-৭ গ্রুপের

প্রকাশের সময় : ০২:৪০:০০ অপরাহ্ন, সোমবার, ২১ নভেম্বর ২০২২

জি-৭’র সদস্য দেশগুলো রোববার উত্তর কোরিয়ার ফের আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের ‘বেপরোয়া’ উৎক্ষেপণের নিন্দা এবং এ ধরনের পরীক্ষা বন্ধে ‘কঠিন’ পদক্ষেপ গ্রহণে জাতিসঙ্ঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

এ গ্রুপের সদস্য সাত দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা জানান, শান্তি ও স্থিতিশীলতার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের আহ্বান সত্ত্বেও এ অঞ্চলকে আরো অস্থিতিশীল করে তুলতে উত্তর কোরিয়া বারবার বিভিন্ন ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করছে।

উত্তর কোরিয়ার শুক্রবার উৎক্ষেপণ করা ক্ষেপণাস্ত্রটি তাদের একেবারে নতুন আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র (আইসিবিএম) এবং এটির যুক্তরাষ্ট্রের মূল ভূখণ্ডে আঘাত হানার ক্ষমতা রয়েছে বলেও ধারণা করা হচ্ছে।

এ ব্যাপারে দেয়া জি-৭’র এক বিবৃতিতে আন্তর্জাতিক গোষ্ঠীর ঐক্যবদ্ধ এবং বলিষ্ঠ জবাবের আহ্বান জানানো হয়। এক্ষেত্রে জাতিসঙ্ঘ নিরাপত্তা পরিষদের আরো কঠিন পদক্ষেপ গ্রহণের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে বলেও বিবৃতিতে বলা হয়।

জি-৭ গ্রুপ কানাডা, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি, জাপান, ব্রিটেন ও যুক্তরাষ্ট্রকে নিয়ে গঠিত। ইউরোপীয় ইউনিয়নের একজন প্রতিনিধি এ বিবৃতিতে মতামত দেন।

চলতি মাসে এ পর্যন্ত উত্তর কোরিয়া স্বল্প, মাঝারি ও দূর পাল্লার ৩০টি ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এক্ষেত্রে শুক্রবার উৎক্ষেপণ করা ক্ষেপণাস্ত্রটি হোক্কাইডোর পশ্চিমে জাপানের গুরুত্বপূর্ণ অর্থনৈতিক জোনে গিয়ে পড়ে।

উত্তর কোরিয়ার সরকারি বার্তা সংস্থা কেসিএনএ দাবি করে, শুক্রবার পরীক্ষা চালানো ক্ষেপণাস্ত্রটি ছিল হোয়াসং-১৭ ধাঁচের ক্ষেপণাস্ত্র। আর এটি উত্তর কোরিয়ার একেবারে ভিন্ন ধাঁচের একটি ক্ষেপণাস্ত্র এবং ক্ষেপণাস্ত্রটি কৌশলগত দিক থেকে বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী ক্ষেপণাস্ত্রগুলোর অন্যতম।
সূত্র : বাসস