ঢাকা ০৮:২৭ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

গোলাম রাব্বানীর আন্তর্জাতিক পুরষ্কার প্রাপ্ত শর্ট ফিল্ম “মিরাক্যাল ইন হ্যাভেন”

‘অনেকখানি হিন্দু, অনেকখানি মুসলমান, অনেকখানি বৌদ্ধ কিংবা অনেকখানি খ্রিষ্টান হওয়ার পূর্বে সকলের উচিত একটুখানি মানুষ হওয়া’ – এই ধারণার উপর ভিত্তি করে নির্মিত হয়েছে কথাসাহিত্যিক এবং নির্মাতা গোলাম রাব্বানীর স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘মিরাক্যাল ইন হ্যাভেন’।

জাত, বর্ণ, ধর্ম নির্বিশেষে সকল ধরণের ভেদাভেদ ছাপিয়ে চলচ্চিত্রে প্রাধান্য পেয়েছে মানবিকতার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্বরূপ এক সাহসী গল্প। ইতোমধ্যেই এই গল্পের জন্য নির্মাতা ‘ইউনিসেফ মীনা অ্যাওয়ার্ড’ থেকে মনোনীত এবং ‘ইউএসএআইডি’ থেকে পুরস্কৃত হয়েছেন।

স্বল্পদৈর্ঘ্য এ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন খ্যাতিমান অভিনেতা শতাব্দী ওয়াদুদ। এর পাশাপাশি আরও অভিনয় করেছেন সিফাত বন্যা, জয়ন্ত পাল এবং রবিন আহমেদ। সেই সাথে মিউজিকের কাজ করেছেন আরেক খ্যাতিমান মিউজিশিয়ান পিন্টু ঘোষ। চলচ্চিত্রটি প্রযোজনা করেছেন মুহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম রণি। মূলত গল্পের প্রতি মুগ্ধতার জায়গা থেকে তিনি এগিয়ে আসেন এবং প্রধান প্রযোজকের দায়িত্ব পালন করেন। এর পাশাপাশি সহকারি প্রযোজক হিসবে ছিলেন মুহাম্মদ মাহবুবুল হক।

সম্প্রতি “মিরাক্যাল ইন হ্যাভেন” চলচ্চিত্রটি বিশ্ব দরবারে পুরস্কৃত হতে শুরু করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে অনুষ্ঠিত হওয়া ‘বেঙ্গলি ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল অব ডালাস’-এ পেয়েছে “সেরা স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র অ্যাওয়ার্ড”। এর আগে ফ্রান্সের “কান ওয়ার্ল্ড ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল” এর মান্থলি কম্পিটিশনে চলচ্চিত্রটি বেস্ট ডিরেক্টর অ্যাওয়ার্ড এবং বেস্ট চিল্ড্রেন ফিল্ম অ্যাওয়ার্ড দুই ক্যাটাগরিতে পুরস্কার জিতেছে।

এসব পুরষ্কারের পাশাপাশি “মিরাক্যাল ইন হ্যাভেন” চলচ্চিত্রটি যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ভারত, নেপাল সহ বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশের আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শনের জন্য নির্বাচিত হয়েছে।

‘মিরাক্যাল ইন হ্যাভেন’ চলচ্চিত্রটি এতদিন ধরে দেশের বাইরের বিভিন্ন ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে প্রদর্শিত হলেও বাংলাদেশের কোন ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল তথা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ফিল্ম সোসাইটি কর্তৃক আয়োজিত  ১৪তম আন্তর্জাতিক আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে প্রথমবারের মতো প্রদর্শিত হয়েছে এবং ফিল্মটি দেখতে ভিড় জমিয়েছে শত-শত দর্শক।

‘মিরাক্যাল ইন হ্যাভেন’ চলচ্চিত্র সম্পর্কে নির্মাতা গোলাম রাব্বানী বলেন, চলচ্চিত্র জুড়ে এমন এক সংকটের কথা বলতে চেয়েছি যা পৃথিবীর সকল দেশেই বিদ্যমান। এই ভয়াবহ সংকট যদি মানুষ কাটাতে না পারে তাহলে অচিরেই পৃথিবী হয়ে উঠবে এক ভয়াবহ যুদ্ধভূমি।

উল্লেখ্য, গোলাম রাব্বানী স্নাতোকত্তর সম্পন্ন করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। এরই মাঝে তিনি লিখেছেন ‘অন্তরগঙ্গা’ এবং ‘মনশ্মশান’ এর মতো পাঠকপ্রিয় উপন্যাস, যা বইমেলায় প্রকাশিত হয়েছে। বর্তমানে তিনি ব্যস্ত সময় পার করছেন চলচ্চিত্র নির্মাণ নিয়ে।

Tag :
জনপ্রিয়

নির্বাচিত হলে ১৩নং ওয়ার্ড বাসীর জন্য এ্যাম্বুলেন্স উপহার দিব; রসিকের কাউন্সিলর প্রার্থী তুহিন

গোলাম রাব্বানীর আন্তর্জাতিক পুরষ্কার প্রাপ্ত শর্ট ফিল্ম “মিরাক্যাল ইন হ্যাভেন”

প্রকাশের সময় : ০৫:১৪:০৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৩ নভেম্বর ২০২২

‘অনেকখানি হিন্দু, অনেকখানি মুসলমান, অনেকখানি বৌদ্ধ কিংবা অনেকখানি খ্রিষ্টান হওয়ার পূর্বে সকলের উচিত একটুখানি মানুষ হওয়া’ – এই ধারণার উপর ভিত্তি করে নির্মিত হয়েছে কথাসাহিত্যিক এবং নির্মাতা গোলাম রাব্বানীর স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘মিরাক্যাল ইন হ্যাভেন’।

জাত, বর্ণ, ধর্ম নির্বিশেষে সকল ধরণের ভেদাভেদ ছাপিয়ে চলচ্চিত্রে প্রাধান্য পেয়েছে মানবিকতার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্বরূপ এক সাহসী গল্প। ইতোমধ্যেই এই গল্পের জন্য নির্মাতা ‘ইউনিসেফ মীনা অ্যাওয়ার্ড’ থেকে মনোনীত এবং ‘ইউএসএআইডি’ থেকে পুরস্কৃত হয়েছেন।

স্বল্পদৈর্ঘ্য এ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন খ্যাতিমান অভিনেতা শতাব্দী ওয়াদুদ। এর পাশাপাশি আরও অভিনয় করেছেন সিফাত বন্যা, জয়ন্ত পাল এবং রবিন আহমেদ। সেই সাথে মিউজিকের কাজ করেছেন আরেক খ্যাতিমান মিউজিশিয়ান পিন্টু ঘোষ। চলচ্চিত্রটি প্রযোজনা করেছেন মুহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম রণি। মূলত গল্পের প্রতি মুগ্ধতার জায়গা থেকে তিনি এগিয়ে আসেন এবং প্রধান প্রযোজকের দায়িত্ব পালন করেন। এর পাশাপাশি সহকারি প্রযোজক হিসবে ছিলেন মুহাম্মদ মাহবুবুল হক।

সম্প্রতি “মিরাক্যাল ইন হ্যাভেন” চলচ্চিত্রটি বিশ্ব দরবারে পুরস্কৃত হতে শুরু করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে অনুষ্ঠিত হওয়া ‘বেঙ্গলি ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল অব ডালাস’-এ পেয়েছে “সেরা স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র অ্যাওয়ার্ড”। এর আগে ফ্রান্সের “কান ওয়ার্ল্ড ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল” এর মান্থলি কম্পিটিশনে চলচ্চিত্রটি বেস্ট ডিরেক্টর অ্যাওয়ার্ড এবং বেস্ট চিল্ড্রেন ফিল্ম অ্যাওয়ার্ড দুই ক্যাটাগরিতে পুরস্কার জিতেছে।

এসব পুরষ্কারের পাশাপাশি “মিরাক্যাল ইন হ্যাভেন” চলচ্চিত্রটি যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ভারত, নেপাল সহ বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশের আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শনের জন্য নির্বাচিত হয়েছে।

‘মিরাক্যাল ইন হ্যাভেন’ চলচ্চিত্রটি এতদিন ধরে দেশের বাইরের বিভিন্ন ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে প্রদর্শিত হলেও বাংলাদেশের কোন ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল তথা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ফিল্ম সোসাইটি কর্তৃক আয়োজিত  ১৪তম আন্তর্জাতিক আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে প্রথমবারের মতো প্রদর্শিত হয়েছে এবং ফিল্মটি দেখতে ভিড় জমিয়েছে শত-শত দর্শক।

‘মিরাক্যাল ইন হ্যাভেন’ চলচ্চিত্র সম্পর্কে নির্মাতা গোলাম রাব্বানী বলেন, চলচ্চিত্র জুড়ে এমন এক সংকটের কথা বলতে চেয়েছি যা পৃথিবীর সকল দেশেই বিদ্যমান। এই ভয়াবহ সংকট যদি মানুষ কাটাতে না পারে তাহলে অচিরেই পৃথিবী হয়ে উঠবে এক ভয়াবহ যুদ্ধভূমি।

উল্লেখ্য, গোলাম রাব্বানী স্নাতোকত্তর সম্পন্ন করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। এরই মাঝে তিনি লিখেছেন ‘অন্তরগঙ্গা’ এবং ‘মনশ্মশান’ এর মতো পাঠকপ্রিয় উপন্যাস, যা বইমেলায় প্রকাশিত হয়েছে। বর্তমানে তিনি ব্যস্ত সময় পার করছেন চলচ্চিত্র নির্মাণ নিয়ে।