ঢাকা ০৬:৪০ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় বিষপান করা সেই তরুণী চলে গেল পরিবারকে কাঁদিয়ে।

ভালোবাসার মানুষকে না পেয়ে ১২দিন জীবনের সাথে যুদ্ধ করে সবাইকে কাঁদিয়ে চলে গেল সুমাইয়া আক্তার মিম নামের মেয়েটি।

ঘটনা সূত্রে জানা যায়,প্রেমিক বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় অভিমানে গত ১৭ অক্টেবর বিষপান করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আইসিওতে ভর্তি ছিল মিম।

শনিবার দুপুরে মিমকে মৃত ঘোষনা করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।

সুমাইয়া আক্তার মিম দরগ্রাম সিনিয়র আলেয়া মাদ্রাসা থেকে এবার এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছিল।মিমের মৃত্যুতে পরিবারের মধ্যে শোকের ছায়া।একমাত্র মেয়েকে হারিয়ে পঙ্গু বাবা জ্ঞান হারিয়ে ফেলছে বার বার, পরিবারের মধ্য বিরাজ করছে এক শোকের ছায়া।

জানা গেছে, সাটুরিয়ার গাছবাড়ি এলাকার শারীরিকভাবে অক্ষম কৃষক মো.মোশারফ হোসেনের মেয়ে সুমাইয়া আক্তার মিম দরগ্রাম এলাকার আক্তারোজাম্মানের ছেলে মো. ফাহিম হোসেনের সাথে প্রেমের সম্পর্ক হয়। এরপর মিমকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে ধর্ষণ করে।এক পর্যায় মীম প্রেমিক ফাহিমকে বার বার বিয়ের প্রস্তাব দেয় কিন্তু প্রেমিক বিয়েতে সাড়া না দিয়ে তালবাহানা করতে থাকে।

গত ১৭ অক্টোবর সোমবার রাতে মিম বিষপানের আগে ফাহিমকে ফোন করে।ফোনে তাকে বিয়ে করার প্রস্তাব দিলে সে প্রত্যাখান করে।বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় সে বিষপান করে।এরপর তাকে সাটুরিয়া হাসপাতালে আনা হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়।ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১৩ দিন আইসিওতে থাকার পর সে শনিবার দুপুরে মারা যায়। এ ঘটনায় মিমের বাবা মোশারফ হোসেন গত সপ্তাহে সাটুরিয়া থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন ফাহিমের পরিবারের বিরুদ্ধে।

মিমের বাবা মোশারফ হোসেন বলেন,ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আইসিইতে ভর্তির পর চিকিৎসক পরীক্ষা নিরীক্ষার পর জানিয়েছিল মিমের দুটি কিডনি ও লিভার অতিমাত্রায় বিষপানে নষ্ট হয়ে গেছে। রোগী ভালো হওয়ার আশা ্ক্ষীর্ণ বলে জানায় চিকিৎসক।

সাটুরিয়া থানার ওসি সুকুমার বিশ্বাস বলেন, অভিযুক্ত আসামীদের ধরতে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।এ বিষয়ে একটি হত্যা প্ররোচনা মামলা করা হবে বলে তিনি জানান।

Tag :
জনপ্রিয়

নির্বাচিত হলে ১৩নং ওয়ার্ড বাসীর জন্য এ্যাম্বুলেন্স উপহার দিব; রসিকের কাউন্সিলর প্রার্থী তুহিন

বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় বিষপান করা সেই তরুণী চলে গেল পরিবারকে কাঁদিয়ে।

প্রকাশের সময় : ০৭:২৪:১৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২২

ভালোবাসার মানুষকে না পেয়ে ১২দিন জীবনের সাথে যুদ্ধ করে সবাইকে কাঁদিয়ে চলে গেল সুমাইয়া আক্তার মিম নামের মেয়েটি।

ঘটনা সূত্রে জানা যায়,প্রেমিক বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় অভিমানে গত ১৭ অক্টেবর বিষপান করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আইসিওতে ভর্তি ছিল মিম।

শনিবার দুপুরে মিমকে মৃত ঘোষনা করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।

সুমাইয়া আক্তার মিম দরগ্রাম সিনিয়র আলেয়া মাদ্রাসা থেকে এবার এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছিল।মিমের মৃত্যুতে পরিবারের মধ্যে শোকের ছায়া।একমাত্র মেয়েকে হারিয়ে পঙ্গু বাবা জ্ঞান হারিয়ে ফেলছে বার বার, পরিবারের মধ্য বিরাজ করছে এক শোকের ছায়া।

জানা গেছে, সাটুরিয়ার গাছবাড়ি এলাকার শারীরিকভাবে অক্ষম কৃষক মো.মোশারফ হোসেনের মেয়ে সুমাইয়া আক্তার মিম দরগ্রাম এলাকার আক্তারোজাম্মানের ছেলে মো. ফাহিম হোসেনের সাথে প্রেমের সম্পর্ক হয়। এরপর মিমকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে ধর্ষণ করে।এক পর্যায় মীম প্রেমিক ফাহিমকে বার বার বিয়ের প্রস্তাব দেয় কিন্তু প্রেমিক বিয়েতে সাড়া না দিয়ে তালবাহানা করতে থাকে।

গত ১৭ অক্টোবর সোমবার রাতে মিম বিষপানের আগে ফাহিমকে ফোন করে।ফোনে তাকে বিয়ে করার প্রস্তাব দিলে সে প্রত্যাখান করে।বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় সে বিষপান করে।এরপর তাকে সাটুরিয়া হাসপাতালে আনা হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়।ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১৩ দিন আইসিওতে থাকার পর সে শনিবার দুপুরে মারা যায়। এ ঘটনায় মিমের বাবা মোশারফ হোসেন গত সপ্তাহে সাটুরিয়া থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন ফাহিমের পরিবারের বিরুদ্ধে।

মিমের বাবা মোশারফ হোসেন বলেন,ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আইসিইতে ভর্তির পর চিকিৎসক পরীক্ষা নিরীক্ষার পর জানিয়েছিল মিমের দুটি কিডনি ও লিভার অতিমাত্রায় বিষপানে নষ্ট হয়ে গেছে। রোগী ভালো হওয়ার আশা ্ক্ষীর্ণ বলে জানায় চিকিৎসক।

সাটুরিয়া থানার ওসি সুকুমার বিশ্বাস বলেন, অভিযুক্ত আসামীদের ধরতে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।এ বিষয়ে একটি হত্যা প্ররোচনা মামলা করা হবে বলে তিনি জানান।