ঢাকা ১১:৪৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কি হচ্ছে ছাত্রলীগে?

আওয়ামী লীগের এখন সবচেয়ে বড় মাথাব্যথার নাম ছাত্রলীগ। ঐতিহ্যবাহী এই ছাত্রসংগঠন এখন একের পর এক বিতর্কের জন্ম দিচ্ছে। গতকাল শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাতে ইডেন মহিলা কলেজে সিট বাণিজ্যসহ বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে ছাত্রলীগের অন্তঃকোন্দল প্রকাশ্যে রূপ ধারণ করে। ইডেন কলেজ শাখা ছাত্রলীগের কমিটি গঠনের পর থেকেই ক্যাম্পাসজুড়ে অস্থিরতা দেখা যায়। আধিপত্য, হল দখলসহ বিভিন্ন অভিযোগ ওঠে নতুন নেতৃত্বের বিরুদ্ধে। এছাড়াও হলের ছাত্রীদের কটূক্তি এবং অশালীন বক্তব্যও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়।

শুধু ইডেন কলেজ নয়, সারা দেশ জুড়ে প্রায় সব জায়গায় একও ধরণের অস্থিরতা দেখা যায় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে। ২০১২ সালের ৯ ডিসেম্বর বিশ্বজিৎ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা জড়িত ছিল। ২০১৬ সিলেটের এমসি কলেজে পরীক্ষা দিতে এসে সরকারি মহিলা কলেজে খাদিজা নামে এক ছাত্রীকে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে জখম করার নেপথ্যে ছিলেন ছাত্রলীগ নেতা বদরুল। বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) মেধাবী শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে ডেকে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে পিটিয়ে হত্যা করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এ ঘটনায় ক্ষোভে উত্তাল হয়ে ওঠে সারাদেশ। ঘটনায় বুয়েট ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাসেলসহ ১৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়। এ ঘটনায় সাধারণ ছাত্রছাত্রীদের আন্দোলনের মুখে অবশেষে বুয়েটে ছাত্র রাজনীতি বন্ধ করতে বাধ্য হয় কর্তৃপক্ষ। রাজশাহী সরকারি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষকে লাঞ্ছিতের পর চ্যাংদোলা করে তুলে নিয়ে ১২ থেকে ১৫ ফুট গভীর পুকুরের পানিতে ফেলে দেয় ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। অকৃতকার্য শিক্ষার্থীকে পরীক্ষা দেয়ার সুযোগ না দেয়ায় সপ্তম পর্বের শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগ নেতা কামাল হোসেন সৌরভ ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা এ ঘটনা ঘটায়। চলতি বছর শোক দিবসে বরগুনা-১ আসনের সংসদ সদস্য ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুর উপস্থিতিতে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

এই সকল ঘটনার প্রেক্ষাপটে প্রশ্ন উঠেছে, কি হচ্ছে ছাত্রলীগে? কারা এমন করছে? এক্ষেত্রে অনেক ছাত্রলীগ নেতাই দাবি করছেন যে, ছাত্রলীগের বিভিন্ন কমিটিতে অনেক অনুপ্রবেশকারী রয়েছে। ছাত্রলীগের বর্তমান কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদকের বিপক্ষেও রয়েছে বিস্তর অভিযোগ। তাদের ওপর তৃণমূলের নেতাকর্মীর আস্থা নেই বলেই জানিয়েছেন অনেক ত্যাগী-পরীক্ষিত ছাত্রলীগের নেতাকর্মী। কমিটি বাণিজ্য, ধর্ষণ, খুন, চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন অপরাধকর্মের অভিযোগে এখন জর্জরিত ছাত্রলীগ। যদিও কেন্দ্রীয় এই নেতৃবৃন্দ বরাবরের মতই এসব অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে।

Tag :
জনপ্রিয়

রামপালে বিএনপির ২০ নেতাকর্মীর নামে মামলা আটক-৬

কি হচ্ছে ছাত্রলীগে?

প্রকাশের সময় : ০৭:৪৭:৪২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২

আওয়ামী লীগের এখন সবচেয়ে বড় মাথাব্যথার নাম ছাত্রলীগ। ঐতিহ্যবাহী এই ছাত্রসংগঠন এখন একের পর এক বিতর্কের জন্ম দিচ্ছে। গতকাল শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাতে ইডেন মহিলা কলেজে সিট বাণিজ্যসহ বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে ছাত্রলীগের অন্তঃকোন্দল প্রকাশ্যে রূপ ধারণ করে। ইডেন কলেজ শাখা ছাত্রলীগের কমিটি গঠনের পর থেকেই ক্যাম্পাসজুড়ে অস্থিরতা দেখা যায়। আধিপত্য, হল দখলসহ বিভিন্ন অভিযোগ ওঠে নতুন নেতৃত্বের বিরুদ্ধে। এছাড়াও হলের ছাত্রীদের কটূক্তি এবং অশালীন বক্তব্যও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়।

শুধু ইডেন কলেজ নয়, সারা দেশ জুড়ে প্রায় সব জায়গায় একও ধরণের অস্থিরতা দেখা যায় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে। ২০১২ সালের ৯ ডিসেম্বর বিশ্বজিৎ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা জড়িত ছিল। ২০১৬ সিলেটের এমসি কলেজে পরীক্ষা দিতে এসে সরকারি মহিলা কলেজে খাদিজা নামে এক ছাত্রীকে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে জখম করার নেপথ্যে ছিলেন ছাত্রলীগ নেতা বদরুল। বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) মেধাবী শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে ডেকে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে পিটিয়ে হত্যা করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এ ঘটনায় ক্ষোভে উত্তাল হয়ে ওঠে সারাদেশ। ঘটনায় বুয়েট ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাসেলসহ ১৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়। এ ঘটনায় সাধারণ ছাত্রছাত্রীদের আন্দোলনের মুখে অবশেষে বুয়েটে ছাত্র রাজনীতি বন্ধ করতে বাধ্য হয় কর্তৃপক্ষ। রাজশাহী সরকারি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষকে লাঞ্ছিতের পর চ্যাংদোলা করে তুলে নিয়ে ১২ থেকে ১৫ ফুট গভীর পুকুরের পানিতে ফেলে দেয় ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। অকৃতকার্য শিক্ষার্থীকে পরীক্ষা দেয়ার সুযোগ না দেয়ায় সপ্তম পর্বের শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগ নেতা কামাল হোসেন সৌরভ ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা এ ঘটনা ঘটায়। চলতি বছর শোক দিবসে বরগুনা-১ আসনের সংসদ সদস্য ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুর উপস্থিতিতে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

এই সকল ঘটনার প্রেক্ষাপটে প্রশ্ন উঠেছে, কি হচ্ছে ছাত্রলীগে? কারা এমন করছে? এক্ষেত্রে অনেক ছাত্রলীগ নেতাই দাবি করছেন যে, ছাত্রলীগের বিভিন্ন কমিটিতে অনেক অনুপ্রবেশকারী রয়েছে। ছাত্রলীগের বর্তমান কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদকের বিপক্ষেও রয়েছে বিস্তর অভিযোগ। তাদের ওপর তৃণমূলের নেতাকর্মীর আস্থা নেই বলেই জানিয়েছেন অনেক ত্যাগী-পরীক্ষিত ছাত্রলীগের নেতাকর্মী। কমিটি বাণিজ্য, ধর্ষণ, খুন, চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন অপরাধকর্মের অভিযোগে এখন জর্জরিত ছাত্রলীগ। যদিও কেন্দ্রীয় এই নেতৃবৃন্দ বরাবরের মতই এসব অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে।