ঢাকা ০৯:৪২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কঙ্গনা ভোটে দাঁড়াচ্ছেন শুনেই চরম কটাক্ষ হেমা মালিনীর

বলিউডের অন্যতম বিতর্কিত অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত। তিনি যে বিজেপি সমর্থক, এ কথা জানে ইন্ডাস্ট্রির ইট-পাথরও। গুঞ্জন উঠেছে, কঙ্গনা নাকি রাজনীতিতে আসতে চলেছেন। এই কথা শোনা মাত্রইেআরেক বিতর্কিত অভিনেত্রী রাখি সাওয়ান্তর সঙ্গে তুলনা করে কঙ্গনাকে চরম কটাক্ষ করলেন অভিনেত্রী এবং বিজেপির সংসদ সদস্য হেমা মালিনী।

শনিবার কঙ্গনা রানাউতের রাজনীতিতে আসা প্রসঙ্গে সংবাদমাধ্যমের তরফ থেকে হেমা মালিনীর প্রতিক্রিয়া চাওয়া হয়। ‘ড্রিম গার্ল’ খ্যাত অভিনেত্রীকে বলা হয়, তিনি যে মথুরার সংসদ সদ্য সেখান থেকেই ভোটে দাঁড়াতে পারেন কঙ্গনা। সেটাই হতে পারে রাজনীতির ময়দানে কঙ্গনার অভিষেক। উত্তরে বর্ষীয়ান অভিনেত্রী প্রথমে বলেন, ‘ভালো তো। সৃষ্টিকর্তা যা চান, তাই করবেন।’

এ সময় হেমা মালিনীর কথা শুনে তার আশপাশের লোকজন হেসে ফেলেন। বিজেপি নেত্রী এরপর আরও বলেন, ‘নির্বাচনে জেতার পর মথুরা থেকে যারা পালিয়ে যান, আপনারা তাদের চান না। অথচ, এই আপনারাই আবার মানুষের মাথায় ঢুকিয়ে দেন যে, মথুরা থেকে সিনেমার তারকারাই ভোটে দাঁড়াবেন। কাল দেখব, রাখি সাওয়ান্তও ভোটে দাঁড়াচ্ছেন।’

হেমার এই মন্তব্য ঘিরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চর্চা শুরু হয়েছে। অনেকেই বলছেন, হেমা মালিনী নিজেই চলচ্চিত্র জগৎ থেকে রাজনীতিতে এসেছেন। তার মুখে সিনেমার তারকাদের রাজনীতি নিয়ে সমালোচনা মানায় না। হেমা মালিনীর স্বামী বিখ্যাত অভিনেতা ধর্মেন্দ্র এবং ছেলে সানি দেওলও যে রাজনীতি করেন, তাও মনে করিয়ে দিয়েছেন কেউ কেউ।

এদিকে, কঙ্গনা রানাওয়াত সত্যিই রাজনীতিতে আসছেন কিনা, তা স্পষ্ট নয়। গত বছর মথুরায় গিয়ে এই অভিনেত্রী বলেছিলেন, তিনি কোনো রাজনৈতিক দলের সমর্থক নন। যদিও বলিউডের কারোই জানতে বাকি নেই যে, কঙ্গনা কতটা বিজেপি ঘরানার। বিশেষ করে, ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বন্দনায় সর্বদাই তিনি মুখর থাকেন।

Tag :
জনপ্রিয়

রাজপথে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি ও কোনো ধরনের নাশকতা মেনে নেওয়া হবে না: আমির হোসেন আমু।

কঙ্গনা ভোটে দাঁড়াচ্ছেন শুনেই চরম কটাক্ষ হেমা মালিনীর

প্রকাশের সময় : ০৫:৫৬:১৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

বলিউডের অন্যতম বিতর্কিত অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত। তিনি যে বিজেপি সমর্থক, এ কথা জানে ইন্ডাস্ট্রির ইট-পাথরও। গুঞ্জন উঠেছে, কঙ্গনা নাকি রাজনীতিতে আসতে চলেছেন। এই কথা শোনা মাত্রইেআরেক বিতর্কিত অভিনেত্রী রাখি সাওয়ান্তর সঙ্গে তুলনা করে কঙ্গনাকে চরম কটাক্ষ করলেন অভিনেত্রী এবং বিজেপির সংসদ সদস্য হেমা মালিনী।

শনিবার কঙ্গনা রানাউতের রাজনীতিতে আসা প্রসঙ্গে সংবাদমাধ্যমের তরফ থেকে হেমা মালিনীর প্রতিক্রিয়া চাওয়া হয়। ‘ড্রিম গার্ল’ খ্যাত অভিনেত্রীকে বলা হয়, তিনি যে মথুরার সংসদ সদ্য সেখান থেকেই ভোটে দাঁড়াতে পারেন কঙ্গনা। সেটাই হতে পারে রাজনীতির ময়দানে কঙ্গনার অভিষেক। উত্তরে বর্ষীয়ান অভিনেত্রী প্রথমে বলেন, ‘ভালো তো। সৃষ্টিকর্তা যা চান, তাই করবেন।’

এ সময় হেমা মালিনীর কথা শুনে তার আশপাশের লোকজন হেসে ফেলেন। বিজেপি নেত্রী এরপর আরও বলেন, ‘নির্বাচনে জেতার পর মথুরা থেকে যারা পালিয়ে যান, আপনারা তাদের চান না। অথচ, এই আপনারাই আবার মানুষের মাথায় ঢুকিয়ে দেন যে, মথুরা থেকে সিনেমার তারকারাই ভোটে দাঁড়াবেন। কাল দেখব, রাখি সাওয়ান্তও ভোটে দাঁড়াচ্ছেন।’

হেমার এই মন্তব্য ঘিরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চর্চা শুরু হয়েছে। অনেকেই বলছেন, হেমা মালিনী নিজেই চলচ্চিত্র জগৎ থেকে রাজনীতিতে এসেছেন। তার মুখে সিনেমার তারকাদের রাজনীতি নিয়ে সমালোচনা মানায় না। হেমা মালিনীর স্বামী বিখ্যাত অভিনেতা ধর্মেন্দ্র এবং ছেলে সানি দেওলও যে রাজনীতি করেন, তাও মনে করিয়ে দিয়েছেন কেউ কেউ।

এদিকে, কঙ্গনা রানাওয়াত সত্যিই রাজনীতিতে আসছেন কিনা, তা স্পষ্ট নয়। গত বছর মথুরায় গিয়ে এই অভিনেত্রী বলেছিলেন, তিনি কোনো রাজনৈতিক দলের সমর্থক নন। যদিও বলিউডের কারোই জানতে বাকি নেই যে, কঙ্গনা কতটা বিজেপি ঘরানার। বিশেষ করে, ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বন্দনায় সর্বদাই তিনি মুখর থাকেন।