ঢাকা ০৯:৫৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দগ্ধ কৌতুক শিল্পী রনিকে কেবিনে নেওয়া হয়েছে

গাজীপুরে গ্যাস বেলুন বিস্ফোরণে দগ্ধ কৌতুক শিল্পী আবু হেনা রনির শারীরিক অবস্থার আরো উন্নতি হয়েছে। (শনিবার) তার দগ্ধ স্থানে ড্রেসিং করা হয়েছে।
পরে তাকে কেবিনে স্থানান্তর করা হয়েছে। বর্তমানে রনি ও পুলিশ সদস্য জিল্লুর রহমান উভয়ই কেবিনে আছেন।

শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের প্রধান সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন এ তথ্য জানান।

ডা. সামন্ত লাল সেন বলেন, রনি ও পুলিশ সদস্যের শারীরিক অবস্থার অনেক উন্নতি হয়েছে। তাদের দুজনকেই ড্রেসিং করা হয়েছে। পরে তাদেরকে কেবিনে নেওয়া হয়। বর্তমানে তারা কেবিনেই আছেন। তাদের কথাবার্তাও এখন স্বাভাবিক। স্বাভাবিকভাবেই খাবার-দাবার খাচ্ছেন এবং শ্বাস-প্রশ্বাস নিচ্ছেন।
শ্বাসনালির শঙ্কাও কেটে গেছে। তাদের আরও বেশ কয়েকদিন চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে হাসপাতালের কেবিনে থাকতে হবে।

এর আগে, (১৬ সেপ্টেম্বর) গাজীপুর পুলিশ লাইনে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের (জিএমপি) চতুর্থ বর্ষপূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে গ্যাস বেলুন বিস্ফোরণে দগ্ধ হন কৌতুক অভিনেতা আবু হেনা রনিসহ পুলিশের ৪ সদস্য। রনি ও পুলিশ সদস্য জিল্লুর রহমানকে ওই দিনই ঢাকায় বার্ন ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়।

চিকিৎসকরা জানান, রনির শরীরের ২৫ শতাংশ ও জিল্লুরের ১৯ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে। পরবর্তীতে তাদের চিকিৎসার জন্য গঠিত হয় ১৩ সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড।

Tag :
জনপ্রিয়

পুলিশের বিরুদ্ধে গাঁজা দিয়ে কলেজ ছাত্রকে ফাঁসানোর চেষ্টা

দগ্ধ কৌতুক শিল্পী রনিকে কেবিনে নেওয়া হয়েছে

প্রকাশের সময় : ০৯:৩৬:০৭ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২

গাজীপুরে গ্যাস বেলুন বিস্ফোরণে দগ্ধ কৌতুক শিল্পী আবু হেনা রনির শারীরিক অবস্থার আরো উন্নতি হয়েছে। (শনিবার) তার দগ্ধ স্থানে ড্রেসিং করা হয়েছে।
পরে তাকে কেবিনে স্থানান্তর করা হয়েছে। বর্তমানে রনি ও পুলিশ সদস্য জিল্লুর রহমান উভয়ই কেবিনে আছেন।

শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের প্রধান সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন এ তথ্য জানান।

ডা. সামন্ত লাল সেন বলেন, রনি ও পুলিশ সদস্যের শারীরিক অবস্থার অনেক উন্নতি হয়েছে। তাদের দুজনকেই ড্রেসিং করা হয়েছে। পরে তাদেরকে কেবিনে নেওয়া হয়। বর্তমানে তারা কেবিনেই আছেন। তাদের কথাবার্তাও এখন স্বাভাবিক। স্বাভাবিকভাবেই খাবার-দাবার খাচ্ছেন এবং শ্বাস-প্রশ্বাস নিচ্ছেন।
শ্বাসনালির শঙ্কাও কেটে গেছে। তাদের আরও বেশ কয়েকদিন চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে হাসপাতালের কেবিনে থাকতে হবে।

এর আগে, (১৬ সেপ্টেম্বর) গাজীপুর পুলিশ লাইনে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের (জিএমপি) চতুর্থ বর্ষপূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে গ্যাস বেলুন বিস্ফোরণে দগ্ধ হন কৌতুক অভিনেতা আবু হেনা রনিসহ পুলিশের ৪ সদস্য। রনি ও পুলিশ সদস্য জিল্লুর রহমানকে ওই দিনই ঢাকায় বার্ন ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়।

চিকিৎসকরা জানান, রনির শরীরের ২৫ শতাংশ ও জিল্লুরের ১৯ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে। পরবর্তীতে তাদের চিকিৎসার জন্য গঠিত হয় ১৩ সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড।