ঢাকা ০৬:১৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ক্যানসারের চিকিৎসায় নতুন আশার আলো

ক্যানসারের চিকিৎসায় নতুন আশার আলো দেখছেন একদল চিকিৎসাবিজ্ঞানী। নতুন এই থেরাপিতে ব্যবহৃত হবে হার্পস সিমপ্লেক্স নামের একটি ভাইরাস। যেটি পরীক্ষামূলকভাবে ইনজেকশনের মাধ্যমে ক্যানসার আক্রান্ত ব্যক্তির শরীরে প্রয়োগ করে এ রোগের বিস্তার ঠেকানো সম্ভব। এমনটাই জানিয়েছেন যুক্তরাজ্যের একদল গবেষকরা। খবর বিবিসি।

ক্যানসার চিকিৎসায় নতুন নতুন পদ্ধতি আবিষ্কারে প্রতিনিয়তই গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন চিকিৎসাবিজ্ঞানীরা। তবে, সম্প্রতি দুরারোগ্য এই ব্যাধির চিকিৎসায় নতুন করে আশার আলো দেখছেন যুক্তরাজ্যের একদল গবেষক। তাদের সাম্প্রতিক গবেষণা থেকে প্রাপ্ত ফলাফলের ওপর ভিত্তি করে এ রোগের সম্পূর্ণ নতুন একটি চিকিৎসা পদ্ধতি আবিষ্কারের দাবি করেছেন তারা।

যুক্তরাজ্যের ‘দ্য ইনস্টিটিউট অব ক্যানসার রিসার্চ’ ও ‘দ্য রয়াল মার্সডেন এনএইচএস ফাউন্ডেশন ট্রাস্ট’ এর একদল গবেষক বলছেন, ঠান্ডাজাতীয় ‘হার্পস সিমপ্লেক্স’ নামে একটি ভাইরাস ব্যবহার করা হবে নতুন থেরাপিতে। ভাইরাসটি পরীক্ষামূলকভাবে ইনজেকশনের মাধ্যমে সরাসরি ক্যানসার আক্রান্ত কোষে প্রয়োগ করলে এটি পুরোপুরি নিরাময় সম্ভব বলে দাবি করছেন গবেষকরা।

ক্যানসার আক্রান্ত রোগীদের ওপর নতুন চিকিৎসাপদ্ধতির প্রয়োগ এখনো পরীক্ষামূলকভাবে চলছে। যুক্তরাজ্যের রয়্যাল মারসডেন এনএইচএস ফাউন্ডেশন ট্রাস্টের ইনস্টিটিউট অব ক্যানসার রিসার্চ এটি পরিচালনা করছে। ক্যানসার রোগীর ওপর চলমান এই পরীক্ষার ফলাফল ফ্রান্সের প্যারিসে একটি মেডিকেল কনফারেন্সে উপস্থাপন করা হয়েছে।

গবেষণার অংশ হিসেবে কিছু ব্যক্তিকে আরপি২ নামের ভাইরাস ইনজেকশন দেওয়া হয়। অন্যদের দেওয়া হয় ক্যানসারের ওষুধ নিভোলুম্যাব। আরপি২ দেওয়া নয়জন রোগীর তিনজনের টিউমার ছোট হয়ে গেছে। একসঙ্গে দুটি চিকিৎসাপদ্ধতি প্রয়োগ করা ৩০ জনের মধ্যে ৭ জন ভালো ফল পেয়েছেন। এসব পরীক্ষায় পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া তেমন একটা দেখা যায়নি।

তবে, প্রাথমিকভাবে বিজ্ঞানীরা আশার আলো দেখলেও ক্যানসারে আক্রান্ত রোগীদের ওপর এ নিয়ে আরও বড় পরিসরে গবেষণার প্রয়োজন বলেও মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

Tag :
জনপ্রিয়

রসিক নির্বাচন ; আ’লীগের মেয়র প্রার্থী ডালিয়ার গণসংযোগ অনুষ্ঠিত

ক্যানসারের চিকিৎসায় নতুন আশার আলো

প্রকাশের সময় : ০৭:০৬:২২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২

ক্যানসারের চিকিৎসায় নতুন আশার আলো দেখছেন একদল চিকিৎসাবিজ্ঞানী। নতুন এই থেরাপিতে ব্যবহৃত হবে হার্পস সিমপ্লেক্স নামের একটি ভাইরাস। যেটি পরীক্ষামূলকভাবে ইনজেকশনের মাধ্যমে ক্যানসার আক্রান্ত ব্যক্তির শরীরে প্রয়োগ করে এ রোগের বিস্তার ঠেকানো সম্ভব। এমনটাই জানিয়েছেন যুক্তরাজ্যের একদল গবেষকরা। খবর বিবিসি।

ক্যানসার চিকিৎসায় নতুন নতুন পদ্ধতি আবিষ্কারে প্রতিনিয়তই গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন চিকিৎসাবিজ্ঞানীরা। তবে, সম্প্রতি দুরারোগ্য এই ব্যাধির চিকিৎসায় নতুন করে আশার আলো দেখছেন যুক্তরাজ্যের একদল গবেষক। তাদের সাম্প্রতিক গবেষণা থেকে প্রাপ্ত ফলাফলের ওপর ভিত্তি করে এ রোগের সম্পূর্ণ নতুন একটি চিকিৎসা পদ্ধতি আবিষ্কারের দাবি করেছেন তারা।

যুক্তরাজ্যের ‘দ্য ইনস্টিটিউট অব ক্যানসার রিসার্চ’ ও ‘দ্য রয়াল মার্সডেন এনএইচএস ফাউন্ডেশন ট্রাস্ট’ এর একদল গবেষক বলছেন, ঠান্ডাজাতীয় ‘হার্পস সিমপ্লেক্স’ নামে একটি ভাইরাস ব্যবহার করা হবে নতুন থেরাপিতে। ভাইরাসটি পরীক্ষামূলকভাবে ইনজেকশনের মাধ্যমে সরাসরি ক্যানসার আক্রান্ত কোষে প্রয়োগ করলে এটি পুরোপুরি নিরাময় সম্ভব বলে দাবি করছেন গবেষকরা।

ক্যানসার আক্রান্ত রোগীদের ওপর নতুন চিকিৎসাপদ্ধতির প্রয়োগ এখনো পরীক্ষামূলকভাবে চলছে। যুক্তরাজ্যের রয়্যাল মারসডেন এনএইচএস ফাউন্ডেশন ট্রাস্টের ইনস্টিটিউট অব ক্যানসার রিসার্চ এটি পরিচালনা করছে। ক্যানসার রোগীর ওপর চলমান এই পরীক্ষার ফলাফল ফ্রান্সের প্যারিসে একটি মেডিকেল কনফারেন্সে উপস্থাপন করা হয়েছে।

গবেষণার অংশ হিসেবে কিছু ব্যক্তিকে আরপি২ নামের ভাইরাস ইনজেকশন দেওয়া হয়। অন্যদের দেওয়া হয় ক্যানসারের ওষুধ নিভোলুম্যাব। আরপি২ দেওয়া নয়জন রোগীর তিনজনের টিউমার ছোট হয়ে গেছে। একসঙ্গে দুটি চিকিৎসাপদ্ধতি প্রয়োগ করা ৩০ জনের মধ্যে ৭ জন ভালো ফল পেয়েছেন। এসব পরীক্ষায় পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া তেমন একটা দেখা যায়নি।

তবে, প্রাথমিকভাবে বিজ্ঞানীরা আশার আলো দেখলেও ক্যানসারে আক্রান্ত রোগীদের ওপর এ নিয়ে আরও বড় পরিসরে গবেষণার প্রয়োজন বলেও মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।