ঢাকা ১১:৩৩ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর ২০২২, ২২ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শহিদ-কারিনার চুমুর ছবি ফাঁস, অতঃপর

বলিউড অভিনেত্রী কারিনা কাপুর। ব্যক্তিগত জীবনে সাইফ আলী খানের সঙ্গে ঘর বেঁধেছেন তিনি। তার আগে অভিনেতা শহিদ কাপুরের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন। চুটিয়ে প্রেম করার সময়ে এ জুটির চুমুর ছবি ফাঁস করে একটি সংবাদমাধ্যম। যা ‘টক অব দ্য কান্ট্রি’-তে পরিণত হয়। বিষয়টি স্বাভাবিকভাবে নেননি কারিনা-শহিদ। পরে ২০ কোটি রুপি ক্ষতিপূরণ চেয়ে মামলার হুমকি দেন তারা।

টেলিগ্রাফ ইন্ডিয়া এক প্রতিবেদনে জানিয়েছিল, এটি ২০০৪ সালের ঘটনা। মুম্বাইয়ে একটি রেস্তোরাঁয়া চুম্বনরত অবস্থায় ফ্রেমবন্দি করা হয় কারিনা কাপুর ও শহিদ কাপুরকে। সেই ছবি মিড-ডে পত্রিকা প্রকাশ করেছিল। আর এ ছবি বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে ঝড় তুলেছিল। যা কারিনা-শহিদের জন্য মোটেও সুখকর ছিল না। পরে কারিনা-শহিদ ওই পত্রিকার বিরুদ্ধে আইনি নোটিশ পাঠায়। তারা দাবি করেন, এ ছবি উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে বানানো হয়েছে।

আইনি নোটিশে বলা হয়, কয়েক মাস কোনো রেস্তোরাঁয়ই যাননি কারিনা কাপুর। ব্যক্তিগত গোপনীয়তা ভঙ্গের অভিযোগ তুলে সংশ্লিষ্ট পত্রিকার কর্তৃপক্ষকে ক্ষমা চাইতে বলেন শহিদ-কারিনা। না হলে ২০ কোটি রুপি ক্ষতিপূরণ দাবি করে মামলা করার হুমকি দেন তারা।

আইনি নোটিশ পাওয়ার পর পত্রিকাটির সম্পাদক মিনাল বেগল তার অবস্থান থেকে নড়েননি। এক বিবৃতিতে জানান, এটি বানানো কোনো ছবি নয়। বরং কারিনা-শহিদের ওই মুহূর্ত মুঠোফোনে ভিডিও ধারণ করা হয়। কারিনা-শহিদ কোনো বেআইনি কাজ করেননি। এমনকী তাদের ছবিগুলোও অশ্লীল ছিল না।

Tag :

২ লাখ টাকার ফুলদানি নিলামে বিক্রি হলো ৯২ কোটি টাকায়

শহিদ-কারিনার চুমুর ছবি ফাঁস, অতঃপর

প্রকাশের সময় : ১১:০০:৫১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২

বলিউড অভিনেত্রী কারিনা কাপুর। ব্যক্তিগত জীবনে সাইফ আলী খানের সঙ্গে ঘর বেঁধেছেন তিনি। তার আগে অভিনেতা শহিদ কাপুরের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন। চুটিয়ে প্রেম করার সময়ে এ জুটির চুমুর ছবি ফাঁস করে একটি সংবাদমাধ্যম। যা ‘টক অব দ্য কান্ট্রি’-তে পরিণত হয়। বিষয়টি স্বাভাবিকভাবে নেননি কারিনা-শহিদ। পরে ২০ কোটি রুপি ক্ষতিপূরণ চেয়ে মামলার হুমকি দেন তারা।

টেলিগ্রাফ ইন্ডিয়া এক প্রতিবেদনে জানিয়েছিল, এটি ২০০৪ সালের ঘটনা। মুম্বাইয়ে একটি রেস্তোরাঁয়া চুম্বনরত অবস্থায় ফ্রেমবন্দি করা হয় কারিনা কাপুর ও শহিদ কাপুরকে। সেই ছবি মিড-ডে পত্রিকা প্রকাশ করেছিল। আর এ ছবি বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে ঝড় তুলেছিল। যা কারিনা-শহিদের জন্য মোটেও সুখকর ছিল না। পরে কারিনা-শহিদ ওই পত্রিকার বিরুদ্ধে আইনি নোটিশ পাঠায়। তারা দাবি করেন, এ ছবি উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে বানানো হয়েছে।

আইনি নোটিশে বলা হয়, কয়েক মাস কোনো রেস্তোরাঁয়ই যাননি কারিনা কাপুর। ব্যক্তিগত গোপনীয়তা ভঙ্গের অভিযোগ তুলে সংশ্লিষ্ট পত্রিকার কর্তৃপক্ষকে ক্ষমা চাইতে বলেন শহিদ-কারিনা। না হলে ২০ কোটি রুপি ক্ষতিপূরণ দাবি করে মামলা করার হুমকি দেন তারা।

আইনি নোটিশ পাওয়ার পর পত্রিকাটির সম্পাদক মিনাল বেগল তার অবস্থান থেকে নড়েননি। এক বিবৃতিতে জানান, এটি বানানো কোনো ছবি নয়। বরং কারিনা-শহিদের ওই মুহূর্ত মুঠোফোনে ভিডিও ধারণ করা হয়। কারিনা-শহিদ কোনো বেআইনি কাজ করেননি। এমনকী তাদের ছবিগুলোও অশ্লীল ছিল না।