ঢাকা ০৫:১১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বিমানের লাগেজে হাত দেওয়ার কোনো ধরনের সুযোগ নেই: বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী।

কাঠমুন্ডু থেকে সাফ বিজয়ীদের নিয়ে আসা বিমানটি ভিআইপি মর্যাদায় আনা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী। তিনি বলেছেন, বিমানের লাগেজে হাত দেওয়ার কোনো ধরনের সুযোগ নেই। যদি কারো বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ পাওয়া যায় তবে তার বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।

শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) রাতে রাজধানীর একটি হোটেলে বাংলাদেশ মনিটর আয়োজিত গালা অ্যাওয়ার্ড সিরিমনি শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা জানান তিনি।

মাহবুব আলী বলেন, সম্ভবত বিমানের পক্ষ থেকে আপনারা প্রেস রিলিজ পেয়েছেন। বিমানের ইডি সাহেব এখানে ছিলেন। আমি ওনার সঙ্গেও কথা বলেছি। যে ফ্লাইটটা কাঠমুন্ডু থেকে এটা এসেছে ওটা ৭৩৭। এটাকে ভিআইপি মর্যাদা দিয়ে ফ্লাইটে আনা হয়েছে কাঠমান্ডু থেকে। 737 কিন্তু বোডিং বে-তে ছিল। এটাকে বোর্ডিং ব্রিজে আনা হয়েছে। এ বিমানের যত লাগেজ সব ভিআইপি ট্রিটমেন্ট দিয়ে সব এজেন্সি সেখানে ছিল এবং বাফুফের লোকজন লাগেজ রিসিভ করেছে। হায়েস্ট কনসিডারেশন তাদের বেলায় দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, তাদেরকে আনার ব্যাপারে দেশবাসী যেমন আনন্দিত, তেমনি বিমানের পক্ষ থেকে বিমানের ভেতর কেক কাটা হয়েছে, মিষ্টি বিতরণ করা হয়েছে। দেশবাসী সবার সঙ্গে আমরাও আনন্দিত। কিন্তু যে এলিগেশনটা এসেছে সেটি বিমান থেকে লাগেজ বেল্টে আসা পর্যন্ত এবং বাফুফের লোকজন নেওয়া পর্যন্ত এই ধরনের কোনো ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা ছিল না। কোনো ধরনের ঘটনা ঘটেও নাই। সিসিটিভি আছে, আপনারা যদি প্রয়োজন মনে করেন আপনারা আসেন, আমরা একসঙ্গে বসে দেখি।

বিমানে নারী পাইলটদের হ্যারাসমেন্ট করা হচ্ছে এমন অভিযোগের বিষয়ে আপনি কিছু জানেন কিনা— জানতে চাইলে তিনি বলেন, ডেফিনেটলি এ অভিযোগগুলো গুরুত্ব সহকারে নেওয়া হবে। যদি কোনো সত্যতা পাওয়া যায় তবে সর্বোচ্চ শাস্তির বিধান নিশ্চিত করা হবে। আমরা চাই না যেকোনো পর্যায়ে নারীরা এরকম হয়রানির স্বীকার হোক।

বিমান প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, নেপাল হোক বা যেকোনো ডেস্টিনেশনে হোক বর্তমানে আমাদের সক্ষমতা ও অবকাঠামোর কিছু অভাব থাকতে পারে। সেজন্য হয়তো আমরা পূর্ণ সেবা দিতে পারি না। আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি যাতে বিমানবন্দরে কোনো ধরনের যাত্রী হয়রানি না হয়।

Tag :
জনপ্রিয়

হোসেনপুর বাজার সনাতন ধর্মাবলম্বী ব্যাবসায়িকদের উদ্যোগে বস্ত্র বিতরণ

বিমানের লাগেজে হাত দেওয়ার কোনো ধরনের সুযোগ নেই: বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী।

প্রকাশের সময় : ০৬:০৩:৫২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২

কাঠমুন্ডু থেকে সাফ বিজয়ীদের নিয়ে আসা বিমানটি ভিআইপি মর্যাদায় আনা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী। তিনি বলেছেন, বিমানের লাগেজে হাত দেওয়ার কোনো ধরনের সুযোগ নেই। যদি কারো বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ পাওয়া যায় তবে তার বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।

শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) রাতে রাজধানীর একটি হোটেলে বাংলাদেশ মনিটর আয়োজিত গালা অ্যাওয়ার্ড সিরিমনি শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা জানান তিনি।

মাহবুব আলী বলেন, সম্ভবত বিমানের পক্ষ থেকে আপনারা প্রেস রিলিজ পেয়েছেন। বিমানের ইডি সাহেব এখানে ছিলেন। আমি ওনার সঙ্গেও কথা বলেছি। যে ফ্লাইটটা কাঠমুন্ডু থেকে এটা এসেছে ওটা ৭৩৭। এটাকে ভিআইপি মর্যাদা দিয়ে ফ্লাইটে আনা হয়েছে কাঠমান্ডু থেকে। 737 কিন্তু বোডিং বে-তে ছিল। এটাকে বোর্ডিং ব্রিজে আনা হয়েছে। এ বিমানের যত লাগেজ সব ভিআইপি ট্রিটমেন্ট দিয়ে সব এজেন্সি সেখানে ছিল এবং বাফুফের লোকজন লাগেজ রিসিভ করেছে। হায়েস্ট কনসিডারেশন তাদের বেলায় দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, তাদেরকে আনার ব্যাপারে দেশবাসী যেমন আনন্দিত, তেমনি বিমানের পক্ষ থেকে বিমানের ভেতর কেক কাটা হয়েছে, মিষ্টি বিতরণ করা হয়েছে। দেশবাসী সবার সঙ্গে আমরাও আনন্দিত। কিন্তু যে এলিগেশনটা এসেছে সেটি বিমান থেকে লাগেজ বেল্টে আসা পর্যন্ত এবং বাফুফের লোকজন নেওয়া পর্যন্ত এই ধরনের কোনো ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা ছিল না। কোনো ধরনের ঘটনা ঘটেও নাই। সিসিটিভি আছে, আপনারা যদি প্রয়োজন মনে করেন আপনারা আসেন, আমরা একসঙ্গে বসে দেখি।

বিমানে নারী পাইলটদের হ্যারাসমেন্ট করা হচ্ছে এমন অভিযোগের বিষয়ে আপনি কিছু জানেন কিনা— জানতে চাইলে তিনি বলেন, ডেফিনেটলি এ অভিযোগগুলো গুরুত্ব সহকারে নেওয়া হবে। যদি কোনো সত্যতা পাওয়া যায় তবে সর্বোচ্চ শাস্তির বিধান নিশ্চিত করা হবে। আমরা চাই না যেকোনো পর্যায়ে নারীরা এরকম হয়রানির স্বীকার হোক।

বিমান প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, নেপাল হোক বা যেকোনো ডেস্টিনেশনে হোক বর্তমানে আমাদের সক্ষমতা ও অবকাঠামোর কিছু অভাব থাকতে পারে। সেজন্য হয়তো আমরা পূর্ণ সেবা দিতে পারি না। আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি যাতে বিমানবন্দরে কোনো ধরনের যাত্রী হয়রানি না হয়।