ঢাকা ০১:০৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কম্বোডিয়াকে হারালো বাংলাদেশ

কম্বোডিয়ার বিপক্ষে ফিফা আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচের প্রথমার্ধে করা একমাত্র গোলে জিতে গেছে বাংলাদেশ। ১-০ গোলে কম্বোডিয়াকে হারায় জামাল ভূঁইয়ারা।

নমপেনের মরোডোক টেকো জাতীয় স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৬টায় ম্যাচটি শুরু হয়। প্রথমার্ধে একমাত্র গোলটি করেন রাকিব হোসেন। ২০২২ সালে এটি বাংলাদেশের প্রথম জয়। এর আগে ৬টি ম্যাচ খেলে ৪টিতে হেরেছে আর দুটিতে ড্র হয়েছে।

২৩ মিনিটে মতিন মিয়ার পাস ধরে ডি বক্সের মাথা থেকে ডান পায়ের শটে কম্বোডিয়ার গোলরক্ষককে ফাঁকি দেন রাকিব। এগিয়ে যায় লাল সবুজের দল।

যদিও তার আগেই বাংলাদেশ গোলের দেখা পেতে পারতো। ১৩ মিনিটে বিশ্বনাথ ঘোষের লম্বা থ্রো ইনে জামাল ঠিকঠাক পা ছোঁয়াতে পারেননি বলে গোল উদযাপন করতে পারেনি বাংলাদেশ। বল গোলপোস্ট ঘেঁষে বেরিয়ে যায়।

লিড নেওয়ার তিন মিনিট পর হলদু কার্ড দেখেন গোলরক্ষক আনিসুর রহমান জিকো। তিনি একটি দারুণ সেভে গোল খাওয়া থেকে বাঁচান বাংলাদেশকে। দ্বিতীয়ার্ধের ৭৬ মিনিটে মতিন মিয়ার একটি শট গোলবারে লেগে ফিরে আসে। শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ আর কোনও গোল দিতে না পারলেও গোলপোস্ট নিশ্ছিদ্র রেখেছিল। স্প্যানিশ কোচ কাবায়েরোর অধীনের বাংলাদেশের এটি প্রথম জয়।

দুই দলই লড়ছে সমানতালে। যদিও আক্রমণ করেছে বেশি কম্বোডিয়া। তারা বাংলাদেশের জাল লক্ষ্য করে ১০টি শট নিয়েছে। আর বাংলাদেশ নিতে পারে ৭টি। বল দখলের লড়াইয়ে এগিয়ে ছিল বাংলাদেশ। ম্যাচে জামালদের পায়ে বল ছিল ৫৬ শতাংশ সময়।

আগামী মঙ্গলবার দশরথ স্টেডিয়ামে নেপালের বিপক্ষে আরেকটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। কম্বোডিয়া থেকে সরাসরি নেপালে যাবে তারা।

Tag :
জনপ্রিয়

পুলিশের বাধায় কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে যেতে না পেরে ফিরে গেলেন মির্জা ফখরুল।

কম্বোডিয়াকে হারালো বাংলাদেশ

প্রকাশের সময় : ০৮:০৫:৩৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২

কম্বোডিয়ার বিপক্ষে ফিফা আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচের প্রথমার্ধে করা একমাত্র গোলে জিতে গেছে বাংলাদেশ। ১-০ গোলে কম্বোডিয়াকে হারায় জামাল ভূঁইয়ারা।

নমপেনের মরোডোক টেকো জাতীয় স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৬টায় ম্যাচটি শুরু হয়। প্রথমার্ধে একমাত্র গোলটি করেন রাকিব হোসেন। ২০২২ সালে এটি বাংলাদেশের প্রথম জয়। এর আগে ৬টি ম্যাচ খেলে ৪টিতে হেরেছে আর দুটিতে ড্র হয়েছে।

২৩ মিনিটে মতিন মিয়ার পাস ধরে ডি বক্সের মাথা থেকে ডান পায়ের শটে কম্বোডিয়ার গোলরক্ষককে ফাঁকি দেন রাকিব। এগিয়ে যায় লাল সবুজের দল।

যদিও তার আগেই বাংলাদেশ গোলের দেখা পেতে পারতো। ১৩ মিনিটে বিশ্বনাথ ঘোষের লম্বা থ্রো ইনে জামাল ঠিকঠাক পা ছোঁয়াতে পারেননি বলে গোল উদযাপন করতে পারেনি বাংলাদেশ। বল গোলপোস্ট ঘেঁষে বেরিয়ে যায়।

লিড নেওয়ার তিন মিনিট পর হলদু কার্ড দেখেন গোলরক্ষক আনিসুর রহমান জিকো। তিনি একটি দারুণ সেভে গোল খাওয়া থেকে বাঁচান বাংলাদেশকে। দ্বিতীয়ার্ধের ৭৬ মিনিটে মতিন মিয়ার একটি শট গোলবারে লেগে ফিরে আসে। শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ আর কোনও গোল দিতে না পারলেও গোলপোস্ট নিশ্ছিদ্র রেখেছিল। স্প্যানিশ কোচ কাবায়েরোর অধীনের বাংলাদেশের এটি প্রথম জয়।

দুই দলই লড়ছে সমানতালে। যদিও আক্রমণ করেছে বেশি কম্বোডিয়া। তারা বাংলাদেশের জাল লক্ষ্য করে ১০টি শট নিয়েছে। আর বাংলাদেশ নিতে পারে ৭টি। বল দখলের লড়াইয়ে এগিয়ে ছিল বাংলাদেশ। ম্যাচে জামালদের পায়ে বল ছিল ৫৬ শতাংশ সময়।

আগামী মঙ্গলবার দশরথ স্টেডিয়ামে নেপালের বিপক্ষে আরেকটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। কম্বোডিয়া থেকে সরাসরি নেপালে যাবে তারা।