ঢাকা ০২:২২ অপরাহ্ন, রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সাফজয়ী কৃষ্ণা রানী ও শামসুন্নাহারের লাগেজ থেকে ডলার-কাপড় সরালো কারা?

বুক ভরা আনন্দ নিয়ে দেশে ফিরে তা মুহূর্তেই বিষাদে পরিণত হলো সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জয়ী বাংলাদেশ নারী দলের দুই সদস্য কৃষ্ণা রানী সরকার ও শামসুন্নাহারের। তাদের লাগেজ থেকে ডলার, কাপড় এবং আরও কিছু জিনিসপত্র চুরি হয়েছে বলে অভিযোগ।

নেপাল থেকে বুধবার দুপুরে হয়রত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নামার পর এই ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছেন কৃষ্ণা ও শামসুন্নাহার। বিমানবন্দরের মতো একটি জায়গায় কারা করল এমন ঘৃণিত কাজ? উঠেছে প্রশ্ন। উত্তর খুঁজতে এরইমধ্যে কাজ শুরু করেছে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ।

বৃহস্পতিবার সকালে কৃষ্ণা রাণীর বাবা বাসুদেব সরকার গণমাধ্যমকে জানান, ‘সকালে মেয়ে আমাকে ফোন করেছিল। ওর ভীষণ মন খারাপ। কৃষ্ণা আমাকে বলেছে, ওর লাগেজ থেকে ৪০০ ডলার চুরি গেছে। আর শামসুন্নাহারের লাগেজ থেকেও কিছু নেপালি মুদ্রা ও কাপড়চোপড় হারিয়েছে।’

এ ঘটনায় প্রচন্ড হতাশ বাংলাদেশ ফুটবল দলের সহকারী কোচ মাহবুবুর রহমানও। তিনি বলেছেন, ‘বিষয়টি আমরা বাফুফের মহিলা উইং চেয়ারম্যান মাহফুজা আক্তার কিরণকে জানিয়েছি। তিনি এরই মধ্যে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। তারা বিষয়টির সমাধান দেবেন বলে আশ্বস্ত করেছেন।’

বুধবার দুপুরে নারী ফুটবলাররা বিমানবন্দরের নামার পর লাগেজ বেল্টের এক পাশে পড়ে ছিল তাদের লাগেজগুলো। সেখানকার কর্মকর্তারা সে সময় বলছিলেন, ‘এই লাগেজগুলো কাদের। কেউ নিচ্ছে না কেন?’

এরপর বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের লোকেরা লাগেজগুলো বুঝে নেন। কিন্তু বাফুফে ভবনে গিয়ে কৃষ্ণা ও শামসুন্নাহার তাদের লাগেজের তালা ভাঙা পান। এর পরই তাদের উৎসবের রেশ ম্লান হয়ে যায়।

Tag :
জনপ্রিয়

আজ যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শহীদ শেখ মনির ৮৪তম জন্মদিন।

সাফজয়ী কৃষ্ণা রানী ও শামসুন্নাহারের লাগেজ থেকে ডলার-কাপড় সরালো কারা?

প্রকাশের সময় : ০৯:৩৯:৩৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২

বুক ভরা আনন্দ নিয়ে দেশে ফিরে তা মুহূর্তেই বিষাদে পরিণত হলো সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জয়ী বাংলাদেশ নারী দলের দুই সদস্য কৃষ্ণা রানী সরকার ও শামসুন্নাহারের। তাদের লাগেজ থেকে ডলার, কাপড় এবং আরও কিছু জিনিসপত্র চুরি হয়েছে বলে অভিযোগ।

নেপাল থেকে বুধবার দুপুরে হয়রত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নামার পর এই ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছেন কৃষ্ণা ও শামসুন্নাহার। বিমানবন্দরের মতো একটি জায়গায় কারা করল এমন ঘৃণিত কাজ? উঠেছে প্রশ্ন। উত্তর খুঁজতে এরইমধ্যে কাজ শুরু করেছে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ।

বৃহস্পতিবার সকালে কৃষ্ণা রাণীর বাবা বাসুদেব সরকার গণমাধ্যমকে জানান, ‘সকালে মেয়ে আমাকে ফোন করেছিল। ওর ভীষণ মন খারাপ। কৃষ্ণা আমাকে বলেছে, ওর লাগেজ থেকে ৪০০ ডলার চুরি গেছে। আর শামসুন্নাহারের লাগেজ থেকেও কিছু নেপালি মুদ্রা ও কাপড়চোপড় হারিয়েছে।’

এ ঘটনায় প্রচন্ড হতাশ বাংলাদেশ ফুটবল দলের সহকারী কোচ মাহবুবুর রহমানও। তিনি বলেছেন, ‘বিষয়টি আমরা বাফুফের মহিলা উইং চেয়ারম্যান মাহফুজা আক্তার কিরণকে জানিয়েছি। তিনি এরই মধ্যে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। তারা বিষয়টির সমাধান দেবেন বলে আশ্বস্ত করেছেন।’

বুধবার দুপুরে নারী ফুটবলাররা বিমানবন্দরের নামার পর লাগেজ বেল্টের এক পাশে পড়ে ছিল তাদের লাগেজগুলো। সেখানকার কর্মকর্তারা সে সময় বলছিলেন, ‘এই লাগেজগুলো কাদের। কেউ নিচ্ছে না কেন?’

এরপর বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের লোকেরা লাগেজগুলো বুঝে নেন। কিন্তু বাফুফে ভবনে গিয়ে কৃষ্ণা ও শামসুন্নাহার তাদের লাগেজের তালা ভাঙা পান। এর পরই তাদের উৎসবের রেশ ম্লান হয়ে যায়।