ঢাকা ০৮:৫৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কালীগঞ্জের পানজোড়া গ্রামের বাড়ি থেকে অজ্ঞাত এক ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার

গাজীপুরের কালীগঞ্জের পানজোড়া গ্রামের বাড়ি থেকে অজ্ঞাত এক ব্যক্তির (৫৫) অগ্নিদগ্ধ মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে উপজেলার নাগরী ইউনিয়নের মাইজ পানজোড়া গ্রামের আরমান কাজীর বাড়ি থেকে মরদেহ উদ্ধার করা হয়। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা পর্যন্ত পুলিশ ওই মরদেহের পরিচয় শনাক্ত করতে পারেনি।

কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনিসুর রহমান মরদেহ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

নাগরী ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মুজিবুর রহমান দাবি করেন, নাগরী ইউনিয়নের মাইজ পানজোড়া গ্রামের আরমান কাজীর বাড়িতে ভাই-বোন পরিচয়ে বাসা ভাড়া নিয়ে প্রায় পাঁচ মাস ধরে বসবাস করে আসছেন খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বী পঞ্চাশোর্ধ নারী ও পুরুষ। ওই বাড়ির তৃতীয় তলার উত্তর পাশের তিন কক্ষ বিশিষ্ট ফ্ল্যাট ভাড়া নিয়ে আলাদা আলাদা কক্ষে বসবাস করতে তারা। দিনের বেশিরভাগ সময় বাসার মধ্যেই অবস্থান করতে তারা।

তিনি বলেন, ওই ভবনের অন্যান্য ভাড়াটিয়ারা মালিককে জানান, গত দুই দিন ধরে তৃতীয় তলার উত্তর পাশের ফ্ল্যাটের দরজা বন্ধ রয়েছে। পরে বাড়ির মালিক আরমান কাজী বুধবার দুপুরে আমাকে বিষয়টি মোবাইলে কল করে জানান। খবর পেয়ে কালীগঞ্জ থানাধীন উলুখোলা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই মধুসদন পান্ডে বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে এসে ওই বাড়ির দরজায় নক করলে দরজা খুলে যায়। পরে ঘরে প্রবশে করে তারা মেঝেতে অগ্নিদগ্ধ মরদেহ পড়ে থাকতে দেখেন। লাশের পাশেই একটি গ্যাস সিলিন্ডার থেকে চুলায় থাকা সংযোগ লাইনের পাইপ আগুনে পোড়া ছিল। পাশের কক্ষেই ছিল ওই নারী। তার পাসপোর্ট দেখে জানা গেছে, নিহত ব্যক্তি রাজধানীর তেজগাঁও (ফার্মগেট) এলাকার বাসিন্দা।

তিনি আরও বলেন, ওই কক্ষের ভেতরে কোনও আসবাবপত্রসহ অন্য কিছু ছিল না। পাশের অন্য দুই কক্ষেও কোনও আসবাবপত্র চোখে পড়েনি। তবে পাশের কক্ষে থাকা নারী নিহত ব্যক্তিকে চেনেন না বলে পুলিশের কাছে দাবি করেন। ওই নারীর অসংলগ্ন কথাবার্তায় কোনও কিছু বোঝা যায়নি। বাড়ির মালিক তাদের পরিচয় জানাতে না পারলেও ভাই-বোন পরিচয়ে তারা বাসা বাসা ভাড়া নিয়েছে বলে জানান। কিন্তু ওই নারী বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন নিহত ব্যক্তিকে তিনি চেনেন না। তারা একসঙ্গে নয়, আলাদা বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করে আসছেন।

কালীগঞ্জ থানার ওসি আনিসুর রহমান জানান, বাড়ির মালিক আরমান কাজী ও ওই নারীকে জিজ্ঞাসাবাদের পর ছেড়ে দেয় পুলিশ। তবে তাদের কাছ থেকে কোনও তথ্য পাওয়া যায়নি। নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহতের সঠিক পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা চলছে।

Tag :

মধ্যনগরে দুর্গোৎসব উপলক্ষে ৩৩টি পূজামন্ডপে নগদ অর্থ প্রদান করেন, এমপি রতন

কালীগঞ্জের পানজোড়া গ্রামের বাড়ি থেকে অজ্ঞাত এক ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার

প্রকাশের সময় : ০৫:৪৬:৪৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২

গাজীপুরের কালীগঞ্জের পানজোড়া গ্রামের বাড়ি থেকে অজ্ঞাত এক ব্যক্তির (৫৫) অগ্নিদগ্ধ মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে উপজেলার নাগরী ইউনিয়নের মাইজ পানজোড়া গ্রামের আরমান কাজীর বাড়ি থেকে মরদেহ উদ্ধার করা হয়। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা পর্যন্ত পুলিশ ওই মরদেহের পরিচয় শনাক্ত করতে পারেনি।

কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনিসুর রহমান মরদেহ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

নাগরী ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মুজিবুর রহমান দাবি করেন, নাগরী ইউনিয়নের মাইজ পানজোড়া গ্রামের আরমান কাজীর বাড়িতে ভাই-বোন পরিচয়ে বাসা ভাড়া নিয়ে প্রায় পাঁচ মাস ধরে বসবাস করে আসছেন খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বী পঞ্চাশোর্ধ নারী ও পুরুষ। ওই বাড়ির তৃতীয় তলার উত্তর পাশের তিন কক্ষ বিশিষ্ট ফ্ল্যাট ভাড়া নিয়ে আলাদা আলাদা কক্ষে বসবাস করতে তারা। দিনের বেশিরভাগ সময় বাসার মধ্যেই অবস্থান করতে তারা।

তিনি বলেন, ওই ভবনের অন্যান্য ভাড়াটিয়ারা মালিককে জানান, গত দুই দিন ধরে তৃতীয় তলার উত্তর পাশের ফ্ল্যাটের দরজা বন্ধ রয়েছে। পরে বাড়ির মালিক আরমান কাজী বুধবার দুপুরে আমাকে বিষয়টি মোবাইলে কল করে জানান। খবর পেয়ে কালীগঞ্জ থানাধীন উলুখোলা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই মধুসদন পান্ডে বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে এসে ওই বাড়ির দরজায় নক করলে দরজা খুলে যায়। পরে ঘরে প্রবশে করে তারা মেঝেতে অগ্নিদগ্ধ মরদেহ পড়ে থাকতে দেখেন। লাশের পাশেই একটি গ্যাস সিলিন্ডার থেকে চুলায় থাকা সংযোগ লাইনের পাইপ আগুনে পোড়া ছিল। পাশের কক্ষেই ছিল ওই নারী। তার পাসপোর্ট দেখে জানা গেছে, নিহত ব্যক্তি রাজধানীর তেজগাঁও (ফার্মগেট) এলাকার বাসিন্দা।

তিনি আরও বলেন, ওই কক্ষের ভেতরে কোনও আসবাবপত্রসহ অন্য কিছু ছিল না। পাশের অন্য দুই কক্ষেও কোনও আসবাবপত্র চোখে পড়েনি। তবে পাশের কক্ষে থাকা নারী নিহত ব্যক্তিকে চেনেন না বলে পুলিশের কাছে দাবি করেন। ওই নারীর অসংলগ্ন কথাবার্তায় কোনও কিছু বোঝা যায়নি। বাড়ির মালিক তাদের পরিচয় জানাতে না পারলেও ভাই-বোন পরিচয়ে তারা বাসা বাসা ভাড়া নিয়েছে বলে জানান। কিন্তু ওই নারী বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন নিহত ব্যক্তিকে তিনি চেনেন না। তারা একসঙ্গে নয়, আলাদা বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করে আসছেন।

কালীগঞ্জ থানার ওসি আনিসুর রহমান জানান, বাড়ির মালিক আরমান কাজী ও ওই নারীকে জিজ্ঞাসাবাদের পর ছেড়ে দেয় পুলিশ। তবে তাদের কাছ থেকে কোনও তথ্য পাওয়া যায়নি। নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহতের সঠিক পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা চলছে।