ঢাকা ১০:৫৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

নোয়াখালীতে দুর্নীতির মামলায় পোস্টমাস্টারের ৯ বছরের কারাদন্ড

মোঃ ফখর উদ্দিন,নোয়াখালী ব্যুরো চীফঃ

নোয়াখালীতে দুর্নীতির মামলায় শ্রীবাস চন্দ্র দে নামের বরখাস্তকৃত এক পোস্টমাস্টারকে তিনটি ধারায় ৯ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১টার দিকে স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক এ.এন এম মোশেদ খান এ রায় দেন।আদালত একই সঙ্গে দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিকে তিনটি ধারায় ২৫ লাখ ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করে।দণ্ডপ্রাপ্ত শ্রীবাস চন্দ্র দে লক্ষ্মীপুর জেলার চন্দ্রগঞ্জ থানার দত্তপাড়া এলাকার নারায়ণ চন্দ্র দে এর ছেলে এবং দত্তপাড়া ডাকঘরের বরখাস্তকৃত পোস্টমাস্টার।

দুর্নীতি দমন কমিশনের জেলা কার্যালয় ও আদালত সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়,আসামি শ্রীবাস চন্দ্র দে ৬ জন আমানতকারীর থেকে ৩৮ লাখ ২৭ হাজার টাকা গ্রহণপূর্বক পাশ বহিতে লিপিবদ্ধ করলেও সরকারি কোষাগারে জমা না দিয়ে প্রতারণামূলকভাবে অপরাধজনক বিশ্বাসভঙ্গ করত আত্মসাত করায় দণ্ডবিধি ৪০৯/৪২০ ধারা তৎসহ ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ করায় কমিশনের অনুমোদন নিয়ে তদন্তকারী কর্মকর্তা সুবেল আহমেদ,সহকারী পরিচালক,দুর্নীতি দমন কমিশন,সমন্বিত জেলা কার্যালয়, নোয়াখালী কর্তৃক বিজ্ঞ আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।

এ বিষয়ে জেলা দুদকের পিপি অ্যাডভোকেট আবুল কাশেম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন,রায় প্রচারকালে আসামি আদালতে উপস্থিত থাকায় সাজা পরোয়ানা মূলে তাকে নোয়াখালী জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

Tag :
জনপ্রিয়

রামপালে বিএনপির ২০ নেতাকর্মীর নামে মামলা আটক-৬

নোয়াখালীতে দুর্নীতির মামলায় পোস্টমাস্টারের ৯ বছরের কারাদন্ড

প্রকাশের সময় : ১১:৪১:৩৬ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২

মোঃ ফখর উদ্দিন,নোয়াখালী ব্যুরো চীফঃ

নোয়াখালীতে দুর্নীতির মামলায় শ্রীবাস চন্দ্র দে নামের বরখাস্তকৃত এক পোস্টমাস্টারকে তিনটি ধারায় ৯ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১টার দিকে স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক এ.এন এম মোশেদ খান এ রায় দেন।আদালত একই সঙ্গে দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিকে তিনটি ধারায় ২৫ লাখ ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করে।দণ্ডপ্রাপ্ত শ্রীবাস চন্দ্র দে লক্ষ্মীপুর জেলার চন্দ্রগঞ্জ থানার দত্তপাড়া এলাকার নারায়ণ চন্দ্র দে এর ছেলে এবং দত্তপাড়া ডাকঘরের বরখাস্তকৃত পোস্টমাস্টার।

দুর্নীতি দমন কমিশনের জেলা কার্যালয় ও আদালত সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়,আসামি শ্রীবাস চন্দ্র দে ৬ জন আমানতকারীর থেকে ৩৮ লাখ ২৭ হাজার টাকা গ্রহণপূর্বক পাশ বহিতে লিপিবদ্ধ করলেও সরকারি কোষাগারে জমা না দিয়ে প্রতারণামূলকভাবে অপরাধজনক বিশ্বাসভঙ্গ করত আত্মসাত করায় দণ্ডবিধি ৪০৯/৪২০ ধারা তৎসহ ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ করায় কমিশনের অনুমোদন নিয়ে তদন্তকারী কর্মকর্তা সুবেল আহমেদ,সহকারী পরিচালক,দুর্নীতি দমন কমিশন,সমন্বিত জেলা কার্যালয়, নোয়াখালী কর্তৃক বিজ্ঞ আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।

এ বিষয়ে জেলা দুদকের পিপি অ্যাডভোকেট আবুল কাশেম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন,রায় প্রচারকালে আসামি আদালতে উপস্থিত থাকায় সাজা পরোয়ানা মূলে তাকে নোয়াখালী জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।