ঢাকা ০৮:১৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সাতক্ষীরায় স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা করলো স্বামী

আরাফাত আলী,স্টাফ রিপোর্টার:

সাতক্ষীরার আশাশুনিতে শামসুন্নাহার (৪৫) নামে তিন সন্তানের জননীকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত স্বামী গোলাম মোস্তফা পলাতক রয়েছে।সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) ভোররাতে উপজেলার প্রতাপনগর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

গোলাম মোস্তফার ভাই নুরুল ইসলাম জানান, রোববার রাতে স্বামী-স্ত্রী একসাথে ঘুমিয়ে পড়েছিল। ভোররাতে শামসুন্নাহারের গোঙানি শুনতে পান তিনি। এসময় তাদের ঘরের পাশে গিয়ে দরজা বন্ধ দেখেন নুরুল। দরজা ধাক্কাধাক্কির একপর্যায়ে গোলাম মোস্তফা দরজার ছিটকানি খুলে পালিয়ে রুম থেকে পালিয়ে যায়। ভেতরে গিয়ে শামসুন্নাহারকে মুমূর্ষু অবস্থায় দেখতে পেয়ে হাসপাতালে নেওয়ার প্রস্তুতি নেয়ার মধ্যেই তিনি মারা যান।

তিনি আরো জানান, তার ভাই গোলাম মোস্তফা মানসিকভাবে কিছুটা অসুস্থ ছিল। এজন্য প্রত্যেক মাসে একবার ইনজেকশন দিতে হতো তাকে। ইনজেকশন না দিলে তার পাগলামি বেড়ে যেত। সম্প্রতি তার পাগলামি বেড়ে গিয়েছিল।

এ নিয়ে আশাশুনি থানার ওসি মোমিনুর রহমান জানান,নিহত গৃহবধূর স্বামীকে মোস্ত পাগলা বলে এলাকায় সবাই ডাকত। ভোররাতে নামাজ পড়তে উঠেছিল মোস্ত। এ সময় কোনো বিষয় নিয়ে তর্কাতর্কি হয় স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে। এরপর মোস্তফা কুপিয়ে স্ত্রীকে হত্যা করে পালিয়ে যায়। মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে। এছাড়া ঘাতক স্বামীকে আটক করতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানান তিনি।

Tag :
জনপ্রিয়

সংবাদ প্রকাশের জেরে তিন সাংবাদিকসহ ৫জনের নামে চোরাকারবারির মামলা

সাতক্ষীরায় স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা করলো স্বামী

প্রকাশের সময় : ১১:২৮:২৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২

আরাফাত আলী,স্টাফ রিপোর্টার:

সাতক্ষীরার আশাশুনিতে শামসুন্নাহার (৪৫) নামে তিন সন্তানের জননীকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত স্বামী গোলাম মোস্তফা পলাতক রয়েছে।সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) ভোররাতে উপজেলার প্রতাপনগর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

গোলাম মোস্তফার ভাই নুরুল ইসলাম জানান, রোববার রাতে স্বামী-স্ত্রী একসাথে ঘুমিয়ে পড়েছিল। ভোররাতে শামসুন্নাহারের গোঙানি শুনতে পান তিনি। এসময় তাদের ঘরের পাশে গিয়ে দরজা বন্ধ দেখেন নুরুল। দরজা ধাক্কাধাক্কির একপর্যায়ে গোলাম মোস্তফা দরজার ছিটকানি খুলে পালিয়ে রুম থেকে পালিয়ে যায়। ভেতরে গিয়ে শামসুন্নাহারকে মুমূর্ষু অবস্থায় দেখতে পেয়ে হাসপাতালে নেওয়ার প্রস্তুতি নেয়ার মধ্যেই তিনি মারা যান।

তিনি আরো জানান, তার ভাই গোলাম মোস্তফা মানসিকভাবে কিছুটা অসুস্থ ছিল। এজন্য প্রত্যেক মাসে একবার ইনজেকশন দিতে হতো তাকে। ইনজেকশন না দিলে তার পাগলামি বেড়ে যেত। সম্প্রতি তার পাগলামি বেড়ে গিয়েছিল।

এ নিয়ে আশাশুনি থানার ওসি মোমিনুর রহমান জানান,নিহত গৃহবধূর স্বামীকে মোস্ত পাগলা বলে এলাকায় সবাই ডাকত। ভোররাতে নামাজ পড়তে উঠেছিল মোস্ত। এ সময় কোনো বিষয় নিয়ে তর্কাতর্কি হয় স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে। এরপর মোস্তফা কুপিয়ে স্ত্রীকে হত্যা করে পালিয়ে যায়। মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে। এছাড়া ঘাতক স্বামীকে আটক করতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানান তিনি।