ঢাকা ০৮:১৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

নির্বাচনে ছোট স্ত্রীকে সর্মথন দিয়ে বড় স্ত্রীকে তালাক

রাজশাহী জেলা পরিষদ নির্বাচনে সংরক্ষিত নারী সদস্য হতে চান দুই সতীন। ইতোমধ্যে মনোনয়নপত্র জমাও দিয়েছেন ও তারা। নির্বাচনে দ্বিতীয় স্ত্রীকে সমর্থন দিয়েছেন বাগমারা উপজেলার মাড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রেজাউল হক। অবাধ্য হওয়ায় প্রথম স্ত্রীকে তালাকের নোটিশও দিয়েছেন তিনি।

স্থানীয়রা জানান,অনুষ্ঠিতব্য জেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ নিতে ২ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী সদস্যের মনোনয়ন সংগ্রহ করেছেন নাছিমা বেগম ও ফিরোজা খাতুন তারা দুইজন সতীন।তাদের দুইজনেরই স্বামী মাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল হক। রেজাউল হক রাজশাহী-৫৫ বাগমারা-৪ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য ইন্জিঃ এনামুল হকের আপন ভাই। তাই এলাকায় নিজেদের সমর্থনে গণসংযোগও করছেন তারা দুই সতীন।

গত বৃহস্পতিবার বড় স্ত্রী নাছিমা বেগম মনোনয়ন জমা দেন। তার দাবি, স্থানীয় সংসদ সদস্যের অনুমতি নিয়েই তিনি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

এর আগে স্বামীকে নিয়ে মনোনয়পত্র জমা দেন ফিরোজা খাতুন। তিনি বলেন, আমার স্বামীর অনুমতি ও স্থানীয় ইউনিয়নের সব সদস্যদের সমর্থনে নির্বাচনের ময়দানে দাঁড়িয়েছি।

এদিকে নিষেধ করার পরও মনোনয়ন সংগ্রহ করায় গত মঙ্গলবার বড় স্ত্রী নাছিমা বেগমকে তালাকের নোটিশ পাঠিয়েছেন রেজাউল হক। এতে করে তাদের ৩২ বছরের সংসার ভাঙছে। এ বিষয়ে স্বামী রেজাউল হক তিনি বলেন,সে আমার অবাধ্য। অনৈতিকভাবে চলাফেলা করছে সেই কারণে আমি তাকে তালাক দিবো, নোটিশ পাঠিয়েছি।

আগামী ১৭ অক্টোবর জেলা পরিষদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণের কথা রয়েছে। নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে চারজন, সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ১৮ জন ও সাধারণ সদস্য পদে ৩৯ জন মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। জেলার এক হাজার ১৮৫ জন তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

Tag :
জনপ্রিয়

সংবাদ প্রকাশের জেরে তিন সাংবাদিকসহ ৫জনের নামে চোরাকারবারির মামলা

নির্বাচনে ছোট স্ত্রীকে সর্মথন দিয়ে বড় স্ত্রীকে তালাক

প্রকাশের সময় : ১১:১৯:৪৮ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২২

রাজশাহী জেলা পরিষদ নির্বাচনে সংরক্ষিত নারী সদস্য হতে চান দুই সতীন। ইতোমধ্যে মনোনয়নপত্র জমাও দিয়েছেন ও তারা। নির্বাচনে দ্বিতীয় স্ত্রীকে সমর্থন দিয়েছেন বাগমারা উপজেলার মাড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রেজাউল হক। অবাধ্য হওয়ায় প্রথম স্ত্রীকে তালাকের নোটিশও দিয়েছেন তিনি।

স্থানীয়রা জানান,অনুষ্ঠিতব্য জেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ নিতে ২ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী সদস্যের মনোনয়ন সংগ্রহ করেছেন নাছিমা বেগম ও ফিরোজা খাতুন তারা দুইজন সতীন।তাদের দুইজনেরই স্বামী মাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল হক। রেজাউল হক রাজশাহী-৫৫ বাগমারা-৪ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য ইন্জিঃ এনামুল হকের আপন ভাই। তাই এলাকায় নিজেদের সমর্থনে গণসংযোগও করছেন তারা দুই সতীন।

গত বৃহস্পতিবার বড় স্ত্রী নাছিমা বেগম মনোনয়ন জমা দেন। তার দাবি, স্থানীয় সংসদ সদস্যের অনুমতি নিয়েই তিনি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

এর আগে স্বামীকে নিয়ে মনোনয়পত্র জমা দেন ফিরোজা খাতুন। তিনি বলেন, আমার স্বামীর অনুমতি ও স্থানীয় ইউনিয়নের সব সদস্যদের সমর্থনে নির্বাচনের ময়দানে দাঁড়িয়েছি।

এদিকে নিষেধ করার পরও মনোনয়ন সংগ্রহ করায় গত মঙ্গলবার বড় স্ত্রী নাছিমা বেগমকে তালাকের নোটিশ পাঠিয়েছেন রেজাউল হক। এতে করে তাদের ৩২ বছরের সংসার ভাঙছে। এ বিষয়ে স্বামী রেজাউল হক তিনি বলেন,সে আমার অবাধ্য। অনৈতিকভাবে চলাফেলা করছে সেই কারণে আমি তাকে তালাক দিবো, নোটিশ পাঠিয়েছি।

আগামী ১৭ অক্টোবর জেলা পরিষদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণের কথা রয়েছে। নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে চারজন, সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ১৮ জন ও সাধারণ সদস্য পদে ৩৯ জন মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। জেলার এক হাজার ১৮৫ জন তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।