ঢাকা ১০:১৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ২০ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে তলব করে কড়া প্রতিবাদ ও নিন্দা

বাংলাদেশ সীমান্তের ভেতরে মিয়ানমারের ছোঁড়া গোলায় প্রাণহানি ও গুলিবর্ষণের ঘটনায় ফের গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ঢাকা। এসব ঘটনায় দেশটির রাষ্ট্রদূতকে ফের তলব করে কড়া প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। তলবে ঢাকা এই ঘটনার পুনরাবৃত্তি চায় না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে।

রোববার (১৮ সেপ্টেম্বর) মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত উ অং কিয়াউ মো-কে তলব করে সীমান্তে গুলির ঘটনায় তীব্র অসন্তোষ প্রকাশ করে ঢাকা। এসব ঘটনার ব্যাখ্যাও চাওয়া হয় মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতের কাছে।

এ নিয়ে এক মাসের ব্যবধানে চতুর্থবারের মতো মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে তলব করে প্রতিবাদ জানালো ঢাকা।

রাষ্ট্রদূতকে তলবের দিনে সকালেও মিয়ানমারে গুলির শব্দে কেঁপেছে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্ত এলাকা। এতে স্থানীয়দের মাঝে এখনো আতঙ্ক বিরাজ করছে।

রোববার (১৮ সেপ্টেম্বর) সকাল নয়টায় সীমান্তের কয়েকটি এলাকা দিয়ে মিয়ানমারে বোমার ও গুলির শব্দ শুনতে পান স্থানীয়রা।

স্থানীয়রা জানান, এক মাসের বেশি সময় ধরে মিয়ানমার সেনাবাহিনী ও আরকান বিদ্রোহীদের সঙ্গে চলমান সংঘর্ষে কয়েকবার বাংলাদেশ সীমান্তের অভ্যন্তরে গোলা পড়েছে। এতে একজন নিহত হওয়ার পাশাপাশি কয়েকজনের আহত হওয়ারও ঘটনা ঘটেছে। ফলে নাইক্ষ্যংছড়ি ঘুমধুম ইউপির ২ নম্বর ওয়ার্ড কোনারপাড়া ও তমব্রু সীমান্ত এলাকার বাসিন্দাদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

গত ২০ আগস্ট মিয়ানমার থেকে মর্টার শেল এসে বাংলাদেশ সীমানায় পড়ার পরদিন ২১ মিয়ানমার রাষ্ট্রদূতকে ডেকে প্রতিবাদ জানায় ঢাকা।

এক সপ্তাহ যেতে না যেতে ২৮ আগস্ট ফের মর্টার শেল পড়ার খবর পাওয়া যায়। এর প্রেক্ষিতে ২৯ আগস্ট রাষ্ট্রদূতকে ডেকে আবারও সতর্ক করা হয়।

ছয় দিন পর ৩ সেপ্টেম্বর সকালে মিয়ানমারের অন্তত চারটি যুদ্ধবিমান থেকে ছোড়া দুটি গোলা বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়ন এলাকায় পড়ে। পরদিন মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত অং কিয়াউ মো-র হাতে এ-সংক্রান্ত আনুষ্ঠানিক প্রতিবাদপত্র দেওয়া হয়। আজ চতুর্থবারের মতো প্রতিবাদ জানানো হলো ঢাকার পক্ষ থেকে।

Tag :

পঞ্চগড়ে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হলো দূর্গা পূজা

মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে তলব করে কড়া প্রতিবাদ ও নিন্দা

প্রকাশের সময় : ০৯:২৭:২০ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২২

বাংলাদেশ সীমান্তের ভেতরে মিয়ানমারের ছোঁড়া গোলায় প্রাণহানি ও গুলিবর্ষণের ঘটনায় ফের গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ঢাকা। এসব ঘটনায় দেশটির রাষ্ট্রদূতকে ফের তলব করে কড়া প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। তলবে ঢাকা এই ঘটনার পুনরাবৃত্তি চায় না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে।

রোববার (১৮ সেপ্টেম্বর) মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত উ অং কিয়াউ মো-কে তলব করে সীমান্তে গুলির ঘটনায় তীব্র অসন্তোষ প্রকাশ করে ঢাকা। এসব ঘটনার ব্যাখ্যাও চাওয়া হয় মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতের কাছে।

এ নিয়ে এক মাসের ব্যবধানে চতুর্থবারের মতো মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে তলব করে প্রতিবাদ জানালো ঢাকা।

রাষ্ট্রদূতকে তলবের দিনে সকালেও মিয়ানমারে গুলির শব্দে কেঁপেছে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্ত এলাকা। এতে স্থানীয়দের মাঝে এখনো আতঙ্ক বিরাজ করছে।

রোববার (১৮ সেপ্টেম্বর) সকাল নয়টায় সীমান্তের কয়েকটি এলাকা দিয়ে মিয়ানমারে বোমার ও গুলির শব্দ শুনতে পান স্থানীয়রা।

স্থানীয়রা জানান, এক মাসের বেশি সময় ধরে মিয়ানমার সেনাবাহিনী ও আরকান বিদ্রোহীদের সঙ্গে চলমান সংঘর্ষে কয়েকবার বাংলাদেশ সীমান্তের অভ্যন্তরে গোলা পড়েছে। এতে একজন নিহত হওয়ার পাশাপাশি কয়েকজনের আহত হওয়ারও ঘটনা ঘটেছে। ফলে নাইক্ষ্যংছড়ি ঘুমধুম ইউপির ২ নম্বর ওয়ার্ড কোনারপাড়া ও তমব্রু সীমান্ত এলাকার বাসিন্দাদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

গত ২০ আগস্ট মিয়ানমার থেকে মর্টার শেল এসে বাংলাদেশ সীমানায় পড়ার পরদিন ২১ মিয়ানমার রাষ্ট্রদূতকে ডেকে প্রতিবাদ জানায় ঢাকা।

এক সপ্তাহ যেতে না যেতে ২৮ আগস্ট ফের মর্টার শেল পড়ার খবর পাওয়া যায়। এর প্রেক্ষিতে ২৯ আগস্ট রাষ্ট্রদূতকে ডেকে আবারও সতর্ক করা হয়।

ছয় দিন পর ৩ সেপ্টেম্বর সকালে মিয়ানমারের অন্তত চারটি যুদ্ধবিমান থেকে ছোড়া দুটি গোলা বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়ন এলাকায় পড়ে। পরদিন মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত অং কিয়াউ মো-র হাতে এ-সংক্রান্ত আনুষ্ঠানিক প্রতিবাদপত্র দেওয়া হয়। আজ চতুর্থবারের মতো প্রতিবাদ জানানো হলো ঢাকার পক্ষ থেকে।