ঢাকা ১১:০৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বিদেশি ঋণ নিয়ে কোনো ভয় নেই: পরিকল্পনা মন্ত্রী

বিদেশি ঋণের ক্ষেত্রে সতর্কতা অবলম্বনে তাগিদ দিয়ে পরিকল্পনা মন্ত্রী এমএ মান্নান বলেছেন, পাকিস্তান আমলে আমরা ঋণের অংশীদার ছিলাম। স্বাধীনতার পরও ঋণ নেওয়া হচ্ছে দেশের উন্নয়নে।

রবিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) রাজধানী শেরে বাংলা নগরে এনএসসি সম্মেলন কক্ষে এক সেমিনারে তিনি এ সব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, বিদেশি ঋণ নিয়ে কোনো ভয় নেই। যেকোনো দেশের অর্থনীতির জন্য ঋণ নিতে হয়। তা জেনে বুঝে শুনে নিতে হবে। অনেকে ভয় দেখায়। যা ঠিক নয়।

সুশাসন নিশ্চিতকরণে বিদেশি ঋণ ব্যবস্থাপনা শীর্ষক আলোচনা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান জানান, বিদেশি ঋণের কোনো বিকল্প নেই। আমরা যে ঋণ নিই, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অত্যন্ত সতর্কভাবে তা দেখে থাকেন প্রকল্প অনুমোদনের সময়।

তিনি আরও বলেন, ফিজিবিলি স্টাডি করে প্রকল্প নেওয়া হয়। বিদেশি রিন টেন্ডার প্রক্রিয়া ভালোভাবে দেখা হয়। তাই আমি বলবো, বিদেশি ঋণ নিয়ে কোনো ভয় নেই। এ সব ঋণ হিসাব করে নিতে হবে। যেন অর্থনীতিতে উৎপাদন প্রক্রিয়ায় কাজে লাগে। বিদেশি ঋণ বিষয়ে ভাল অবস্থানে আছে বাংলাদেশ। ঋণ নেওয়ার ক্ষেত্রে বাছাই প্রক্রিয়া করে নেওয়া হয়। ফিজিবিলিটি স্টাডিজ ছাড়া প্রকল্প নেওয়া হয় না। তবে তারপরও অনেকে সুবিধা নেওয়ার চেষ্টা করে। এসব থাকবেই। তবে এখন প্লানিং কমিশন অনেক শক্তিশালী। আপদকালীন ভালোভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রীপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম, ইআরডি সচিব শরীফ খান, পরিকল্পনা সচিব মামুন আল রশীদ, আইএমইডি সচিব আবুহেনা মোরশেদ জামান।

Tag :

আবদুল্লা আল মামুন নোয়াখালীর শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক  

বিদেশি ঋণ নিয়ে কোনো ভয় নেই: পরিকল্পনা মন্ত্রী

প্রকাশের সময় : ০৯:২৫:৪৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২২

বিদেশি ঋণের ক্ষেত্রে সতর্কতা অবলম্বনে তাগিদ দিয়ে পরিকল্পনা মন্ত্রী এমএ মান্নান বলেছেন, পাকিস্তান আমলে আমরা ঋণের অংশীদার ছিলাম। স্বাধীনতার পরও ঋণ নেওয়া হচ্ছে দেশের উন্নয়নে।

রবিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) রাজধানী শেরে বাংলা নগরে এনএসসি সম্মেলন কক্ষে এক সেমিনারে তিনি এ সব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, বিদেশি ঋণ নিয়ে কোনো ভয় নেই। যেকোনো দেশের অর্থনীতির জন্য ঋণ নিতে হয়। তা জেনে বুঝে শুনে নিতে হবে। অনেকে ভয় দেখায়। যা ঠিক নয়।

সুশাসন নিশ্চিতকরণে বিদেশি ঋণ ব্যবস্থাপনা শীর্ষক আলোচনা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান জানান, বিদেশি ঋণের কোনো বিকল্প নেই। আমরা যে ঋণ নিই, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অত্যন্ত সতর্কভাবে তা দেখে থাকেন প্রকল্প অনুমোদনের সময়।

তিনি আরও বলেন, ফিজিবিলি স্টাডি করে প্রকল্প নেওয়া হয়। বিদেশি রিন টেন্ডার প্রক্রিয়া ভালোভাবে দেখা হয়। তাই আমি বলবো, বিদেশি ঋণ নিয়ে কোনো ভয় নেই। এ সব ঋণ হিসাব করে নিতে হবে। যেন অর্থনীতিতে উৎপাদন প্রক্রিয়ায় কাজে লাগে। বিদেশি ঋণ বিষয়ে ভাল অবস্থানে আছে বাংলাদেশ। ঋণ নেওয়ার ক্ষেত্রে বাছাই প্রক্রিয়া করে নেওয়া হয়। ফিজিবিলিটি স্টাডিজ ছাড়া প্রকল্প নেওয়া হয় না। তবে তারপরও অনেকে সুবিধা নেওয়ার চেষ্টা করে। এসব থাকবেই। তবে এখন প্লানিং কমিশন অনেক শক্তিশালী। আপদকালীন ভালোভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রীপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম, ইআরডি সচিব শরীফ খান, পরিকল্পনা সচিব মামুন আল রশীদ, আইএমইডি সচিব আবুহেনা মোরশেদ জামান।