ঢাকা ১২:৩৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর ২০২২, ২২ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

পাঁচ বছর আগের হারানো নোলক মিলল ফুসফুসে!

নিউমোনিয়া হয়েছে ভেবে হাসপাতালে গিয়েছিলেন আমেরিকার ওহায়ো বসবাসরত ৩৫ বছরের জোয়ি লাইকিন নামের এক ব্যক্তি। চিকিৎসকরা এক্স-রে করে দেখেন, ফুসফুসের মধ্যে আটকে আছে একটি নাকের নোলক। এ ব্যাপারে জোয়ি জানান, পাঁচ বছর আগে সেটি হারিয়ে গিয়েছিল। এই ঘটনায় আমেরিকার ওহায়োতে শোরগোল পড়ে গেছে।

বেশ কিছুদিন ধরে জোয়ি লাইকিনের কাশি হচ্ছিল। চিকিৎসকদের কাছে গেলে তারা জানান, সম্ভবত নিউমোনিয়া হয়েছে তার। কিন্তু ফুসফুসের অবস্থা কেমন, তা জানতে এক্স-রে পরীক্ষা করতেই চোখ কপালে চিকিৎসকদের।

এক্স-রে তে দেখা যায়, ফুসফুসের মধ্যে আটকে আছে একটি আস্ত নোলক! চমকে ওঠেন ওই ব্যক্তি নিজেও। কারণ, ওই নোলকটি হারিয়ে গিয়েছিল পাঁচ বছর আগে।

জোয়ি জানিয়েছেন, কয়েক সপ্তাহ আগে মধ্যরাতে প্রবল কাশি শুরু হয় তার। সঙ্গে দম আটকে আসতে থাকে। কিছুতেই কাশি না থামায় হাসপাতালে যান তিনি। সেখানে এক্স-রে পরীক্ষায় দেখা যায় তার বাঁ দিকের ফুসফুসে ঘোড়ার ক্ষুরের মতো ছোট কিছু একটা আটকে আছে। সেই এক্স-রে প্লেট তাকে দেখান চিকিৎসকরা। দেখেই চমকে ওঠেন জোয়ি। কারণ, জিনিসটি আসলে তার নাকের নোলক!

পাঁচ বছর আগে এই নোলকটি নাকে লাগিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু এক দিন ঘুম থেকে উঠে দেখেন, সেটি আর নাকে নেই। ভেবেছিলেন আশপাশে কোথাও পড়ে গিয়েছে নোলকটি। তবে খোঁজাখুঁজি করেও সেটির সন্ধান পাননি।

জোয়ির এমন কথা শুনে চিকিৎসকদের ধারণা, ঘুমের মধ্যেই নোলকটি কোনোভাবে তার শ্বাসনালিতে ঢুকে যায়। এতদিন সেখানেই ছিল সেটি। শেষ পর্যন্ত ব্রঙ্কোস্কোপি করে বার করা হয়েছে নোলকটি। সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন

Tag :

২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ২ সহস্রাধিক, আক্রান্ত সাড়ে ৬ লাখ

পাঁচ বছর আগের হারানো নোলক মিলল ফুসফুসে!

প্রকাশের সময় : ১০:৪১:০৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২২

নিউমোনিয়া হয়েছে ভেবে হাসপাতালে গিয়েছিলেন আমেরিকার ওহায়ো বসবাসরত ৩৫ বছরের জোয়ি লাইকিন নামের এক ব্যক্তি। চিকিৎসকরা এক্স-রে করে দেখেন, ফুসফুসের মধ্যে আটকে আছে একটি নাকের নোলক। এ ব্যাপারে জোয়ি জানান, পাঁচ বছর আগে সেটি হারিয়ে গিয়েছিল। এই ঘটনায় আমেরিকার ওহায়োতে শোরগোল পড়ে গেছে।

বেশ কিছুদিন ধরে জোয়ি লাইকিনের কাশি হচ্ছিল। চিকিৎসকদের কাছে গেলে তারা জানান, সম্ভবত নিউমোনিয়া হয়েছে তার। কিন্তু ফুসফুসের অবস্থা কেমন, তা জানতে এক্স-রে পরীক্ষা করতেই চোখ কপালে চিকিৎসকদের।

এক্স-রে তে দেখা যায়, ফুসফুসের মধ্যে আটকে আছে একটি আস্ত নোলক! চমকে ওঠেন ওই ব্যক্তি নিজেও। কারণ, ওই নোলকটি হারিয়ে গিয়েছিল পাঁচ বছর আগে।

জোয়ি জানিয়েছেন, কয়েক সপ্তাহ আগে মধ্যরাতে প্রবল কাশি শুরু হয় তার। সঙ্গে দম আটকে আসতে থাকে। কিছুতেই কাশি না থামায় হাসপাতালে যান তিনি। সেখানে এক্স-রে পরীক্ষায় দেখা যায় তার বাঁ দিকের ফুসফুসে ঘোড়ার ক্ষুরের মতো ছোট কিছু একটা আটকে আছে। সেই এক্স-রে প্লেট তাকে দেখান চিকিৎসকরা। দেখেই চমকে ওঠেন জোয়ি। কারণ, জিনিসটি আসলে তার নাকের নোলক!

পাঁচ বছর আগে এই নোলকটি নাকে লাগিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু এক দিন ঘুম থেকে উঠে দেখেন, সেটি আর নাকে নেই। ভেবেছিলেন আশপাশে কোথাও পড়ে গিয়েছে নোলকটি। তবে খোঁজাখুঁজি করেও সেটির সন্ধান পাননি।

জোয়ির এমন কথা শুনে চিকিৎসকদের ধারণা, ঘুমের মধ্যেই নোলকটি কোনোভাবে তার শ্বাসনালিতে ঢুকে যায়। এতদিন সেখানেই ছিল সেটি। শেষ পর্যন্ত ব্রঙ্কোস্কোপি করে বার করা হয়েছে নোলকটি। সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন