ঢাকা ১০:৩৩ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

‘জীবন গেলেও শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন নয়’

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান বলেছেন, স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনের সময় নূর হোসেন, জিহাদ, ডা. মিলনের রক্তের বিনিময়ে এরশাদের পতন ঘটেছিল। এ নির্বাচনেও হয়তো রক্তপাত হবে, কিন্তু শেখ হাসিনার অধীনে কোনো নির্বাচন হতে দেওয়া হবে না, জীবন গেলেও না।

শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) ঢাকা রিপোটার্স ইউনিটিতে ড. মোশাররফ ফাউন্ডেশন আয়োজিত গাজী মাজহারুল আনোয়ারের স্মরণসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

আমান উল্লাহ আমান বলেন, গাজী মাজহারুল আনোয়ারের আজ গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলনে সাংস্কৃতিক জগতে নেতৃত্ব দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু তিনি আমাদের মধ্যে নেই।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, গাজী মাজহারুল আনোয়ারের স্মৃতিসভা হওয়ার কথা ছিল রাষ্ট্রীয়ভাবে কিন্তু এখন জাতিকে বর্তমান সরকার এমনভাবে বিভক্ত করেছে সেটা সম্ভব হয়নি। বিভক্তি কখনো জাতিকে সামনের দিকে নিয়ে যায় না।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, গাজী মাজহারুল আনোয়ার আর কবে আসবেন সেটা আমরা জানি না, কিন্তু তিনি সবসময় স্মরণীয় হয়ে থাকবেন। রবীন্দ্রনাথের গান, লালন শাহয়ের গান যেমন স্মরণীয় হয়ে আছে, তিনিও তেমন স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।

অনুষ্ঠানে গাজী মাজহারুল আনোয়ারের সহধর্মিণী জোহরা গাজী বলেন, আগুনের সঙ্গে বসবাস করেছি আমি। প্রতিভার আগুনের সঙ্গে তিনি প্রজ্বলিত হয়েছিলেন আজীবন।

বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. সেলিমা রহমান বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সময় গাজী মাজহারুল আনোয়ারের গান দেশের মানুষকে উজ্জীবিত করেছিল। তার গান দেশের সংস্কৃতিকে সমৃদ্ধ করেছে।

Tag :

প্রতিমায় রং তুলির আঁচড়ে ব্যস্ত কারিগররা

‘জীবন গেলেও শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন নয়’

প্রকাশের সময় : ১০:৩৬:২৭ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান বলেছেন, স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনের সময় নূর হোসেন, জিহাদ, ডা. মিলনের রক্তের বিনিময়ে এরশাদের পতন ঘটেছিল। এ নির্বাচনেও হয়তো রক্তপাত হবে, কিন্তু শেখ হাসিনার অধীনে কোনো নির্বাচন হতে দেওয়া হবে না, জীবন গেলেও না।

শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) ঢাকা রিপোটার্স ইউনিটিতে ড. মোশাররফ ফাউন্ডেশন আয়োজিত গাজী মাজহারুল আনোয়ারের স্মরণসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

আমান উল্লাহ আমান বলেন, গাজী মাজহারুল আনোয়ারের আজ গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলনে সাংস্কৃতিক জগতে নেতৃত্ব দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু তিনি আমাদের মধ্যে নেই।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, গাজী মাজহারুল আনোয়ারের স্মৃতিসভা হওয়ার কথা ছিল রাষ্ট্রীয়ভাবে কিন্তু এখন জাতিকে বর্তমান সরকার এমনভাবে বিভক্ত করেছে সেটা সম্ভব হয়নি। বিভক্তি কখনো জাতিকে সামনের দিকে নিয়ে যায় না।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, গাজী মাজহারুল আনোয়ার আর কবে আসবেন সেটা আমরা জানি না, কিন্তু তিনি সবসময় স্মরণীয় হয়ে থাকবেন। রবীন্দ্রনাথের গান, লালন শাহয়ের গান যেমন স্মরণীয় হয়ে আছে, তিনিও তেমন স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।

অনুষ্ঠানে গাজী মাজহারুল আনোয়ারের সহধর্মিণী জোহরা গাজী বলেন, আগুনের সঙ্গে বসবাস করেছি আমি। প্রতিভার আগুনের সঙ্গে তিনি প্রজ্বলিত হয়েছিলেন আজীবন।

বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. সেলিমা রহমান বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সময় গাজী মাজহারুল আনোয়ারের গান দেশের মানুষকে উজ্জীবিত করেছিল। তার গান দেশের সংস্কৃতিকে সমৃদ্ধ করেছে।