ঢাকা ০৩:৫০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সাবেক অভিনেত্রী এ্যানিকে নগ্ন ছবি পাঠায় কারা?

গুরুতর অভিযোগ করলেন সাবেক অভিনেত্রী এ্যানি খান। বছর দুয়েক আগে অভিনয় ছাড়লেও তার পিছু ছাড়ছে না নানা রকম কটাক্ষ আর সমালোচনা। অনেকে তাকে সোশ্যাল মিডিয়ায় নানাভাবে বিরক্তও করেন বলে অভিযোগ। তবে সম্প্রতি সেই মাত্রা ছাড়িয়ে গেছে বলে এ্যানি জানান। তাকে ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে পাঠানো হচ্ছে নগ্ন ছবি।

সম্প্রতি ফেসবুক লাইভে এসে এমনই অভিযোগ করেছেন এ্যানি খান। কিন্তু কারা পাঠায় তাকে নগ্ন ছবি? কারও নাম অবশ্য লাইভে প্রকাশ করেননি এই সাবেক অভিনেত্রী। তবে তার দাবি, ছেলেরাই ফেসবুকে বেনামে আইডি খুলে এসব নোংরামি করে। একটা মেয়ে কখনোই আরেকটা মেয়েকে নগ্ন ছবি পাঠাবে না বলে যুক্তি দেন তিনি।

এ্যানির কথায়, ‘এখন যেহেতু ফেসবুক আমাদের হাতের মুঠোয় চলে এসেছে, যে কেউ যেকোনো ভাবে লাইভ করতে পারে। মুখোশধারী অনেকে আছে টুপি-পাঞ্জাবি-পাজামা পরেন। অনেকে আছেন আমাকে উলঙ্গ ছবি পাঠান মেসেঞ্জারে। অনেকে বাচ্চার একটা ছবি দিয়ে রেখেছেন। এগুলো কারও মায়ের সন্তান। অবশ্যই ছেলে মানুষরা এটা করেন। কোনো মেয়ে এটা করবেন না।’

দুই বছর আগে অভিনয়কে বিদায় জানিয়ে অনলাইনে বোরকার ব্যবসা শুরু করেছিলেন এ্যানি খান। এখনো করছেন। অভিনয় ছাড়ার পর অবসাদ কাটাতে তিনি বোরকার ব্যবসায় নেমেছিলেন বলে লাইভে জানান এ্যানি। তিনি বলেন, ‘এরপর আপনাদের অনেক কটাক্ষ শুনেছি। তার পরও আমি হাল ছাড়িনি। কারণ সবকিছুকে আমি পজিটিভলি গ্রহণ করেছি।’

পর্দার করার প্রসঙ্গ টেনে এ্যানি বলেন, ‘অনেক বোনরা আছেন ইয়াং জেনারেশন, মিডল এইজ বা আরেকটু বেশি। তারা হয়তো বা একেবারেই পর্দা করতেন না, যেভাবে ইসলাম বলে। একসময় আমিও করতাম না। যখন আমি পর্দা করা শুরু করলাম, আমাকে দেখে অনেকেই এ পথে এসেছে। দুনিয়াতে আমি অনেক কামিয়াবি ছিলাম। পৃথিবীর সাকসেস আমি পেয়েছিলাম।’

বোরকার বিজনেস শুরুর পর তার ওপর তুমুল অ্যাটাক এসেছে বলে দাবি করেন এ্যানি। বলেন, ‘অভিনেত্রীরা এখন বোরকার ব্যবসায়ী, তোর এ হচ্ছে না, ও হচ্ছে না- এভাবে নানা কটাক্ষ শুনতে হয়েছে। আমাকে দালালও বানিয়েছেন আপনারা। অনেকগুলো গ্রুপের মধ্যে ফেলে দিয়েছেন, যেগুলো সম্পর্কে আমার ধারণাই ছিল না। কে কোন গ্রুপের, কে কোন ঘরানার- এতকিছু আমার জানা ছিল না। জানতে চাইও না।’

এ্যানি বলেন, ‘আমি আল্লাহর একাত্ববাদ স্বীকার করি। আমার রব একাই আছেন। রবের শক্তি আমার কাছে ক্লিয়ার, আলহামদুলিল্লাহ। আমার নবীজির দেখানো পথ আমাকে ফলো করতে হবে। তিনি যেভাবে সালাত আদায় করেছেন, আমাকে সেভাবে সালাত আদায় করতে হবে। কোরআর অনুযায়ী জীবনযাপন করে দেখিয়েছেন তিনি।’

অভিনেত্রী এও বলেন, ‘এটা এক দিনে পারব, তা না। অনেক সাধনার ব্যাপার। বছরের পর বছর অনেকে সাধনা করে দেখা গেছে মরার আগে ঈমান হারিয়ে মারা গেছে। আবার দেখা গেছে কেউ কিছু করে নাই বছরের পর বছর, মরার আগে আল্লাহর ইশারায় তার ঈমান এসেছে এবং আল্লাহর ইশারায় জান্নাতবাসী হচ্ছে। আল্লাহ তাকে জান্নাতের জন্য কবুল করে নিচ্ছে। জান্নাত তো আসলে নির্ধারণ করেন আল্লাহ। আপনি আমি আমরা কেউ না।’

এ্যানির প্রশ্ন, ‘আমি যখন কবরে চলে যাবো। আমাকে যখন কবরে শুইয়ে রেখে সবাই চলে আসবে, আমার তখন কী হবে? আমি আমার রবের কাছে কী জবাব দেব? সেই জবাবগুলোকে আমার রব আদৌ সহজ করে দেবেন কিনা?

যারা শতভাগ পর্দা করে এ্যানিকে লাইভে আসতে বলেন তাদের উদ্দেশ্য অভিনেত্রী বলেন, ‘আল্লাহ তায়ালা ছেলেদের চোখের হেফাজত করতে বলেছেন। আপনারা জানেন আমি একজন মিডিয়াকর্মী ছিলাম। সেখান থেকে বেরিয়ে এসে আমি চেষ্টা করছি নিজেকে পরবর্তন করার। তাই আমাকে নসিহা না দিয়ে উৎসাহ দিন। অনেক প্রবাসী ভাই আছেন যারা বোরকা কিনে আমাকে উৎসাহিত করেছেন।’

শিশুশিল্পী হিসেবে শোবিজ অঙ্গনে পা রেখেছিলেন এ্যানি খান। এরপর দীর্ঘ ২৩ বছরের অভিনয় ক্যারিয়ার তার। ২০২০ সালের জুন মাসে সেই ক্যারিয়ারের ইতি টানেন তিনি। একজন সাধারণ ধার্মিক মানুষ হিসেবে বাকি জীবনটা কাটানোর সিদ্ধান্ত নেন তিনি। পাশাপাশি শুরু করেন অনলাইনে বোরকার ব্যবসা। নিজেও পর্দা করতে শুরু করেন।

Tag :
জনপ্রিয়

হোসেনপুর বাজার সনাতন ধর্মাবলম্বী ব্যাবসায়িকদের উদ্যোগে বস্ত্র বিতরণ

সাবেক অভিনেত্রী এ্যানিকে নগ্ন ছবি পাঠায় কারা?

প্রকাশের সময় : ১০:৪২:১৫ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২২

গুরুতর অভিযোগ করলেন সাবেক অভিনেত্রী এ্যানি খান। বছর দুয়েক আগে অভিনয় ছাড়লেও তার পিছু ছাড়ছে না নানা রকম কটাক্ষ আর সমালোচনা। অনেকে তাকে সোশ্যাল মিডিয়ায় নানাভাবে বিরক্তও করেন বলে অভিযোগ। তবে সম্প্রতি সেই মাত্রা ছাড়িয়ে গেছে বলে এ্যানি জানান। তাকে ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে পাঠানো হচ্ছে নগ্ন ছবি।

সম্প্রতি ফেসবুক লাইভে এসে এমনই অভিযোগ করেছেন এ্যানি খান। কিন্তু কারা পাঠায় তাকে নগ্ন ছবি? কারও নাম অবশ্য লাইভে প্রকাশ করেননি এই সাবেক অভিনেত্রী। তবে তার দাবি, ছেলেরাই ফেসবুকে বেনামে আইডি খুলে এসব নোংরামি করে। একটা মেয়ে কখনোই আরেকটা মেয়েকে নগ্ন ছবি পাঠাবে না বলে যুক্তি দেন তিনি।

এ্যানির কথায়, ‘এখন যেহেতু ফেসবুক আমাদের হাতের মুঠোয় চলে এসেছে, যে কেউ যেকোনো ভাবে লাইভ করতে পারে। মুখোশধারী অনেকে আছে টুপি-পাঞ্জাবি-পাজামা পরেন। অনেকে আছেন আমাকে উলঙ্গ ছবি পাঠান মেসেঞ্জারে। অনেকে বাচ্চার একটা ছবি দিয়ে রেখেছেন। এগুলো কারও মায়ের সন্তান। অবশ্যই ছেলে মানুষরা এটা করেন। কোনো মেয়ে এটা করবেন না।’

দুই বছর আগে অভিনয়কে বিদায় জানিয়ে অনলাইনে বোরকার ব্যবসা শুরু করেছিলেন এ্যানি খান। এখনো করছেন। অভিনয় ছাড়ার পর অবসাদ কাটাতে তিনি বোরকার ব্যবসায় নেমেছিলেন বলে লাইভে জানান এ্যানি। তিনি বলেন, ‘এরপর আপনাদের অনেক কটাক্ষ শুনেছি। তার পরও আমি হাল ছাড়িনি। কারণ সবকিছুকে আমি পজিটিভলি গ্রহণ করেছি।’

পর্দার করার প্রসঙ্গ টেনে এ্যানি বলেন, ‘অনেক বোনরা আছেন ইয়াং জেনারেশন, মিডল এইজ বা আরেকটু বেশি। তারা হয়তো বা একেবারেই পর্দা করতেন না, যেভাবে ইসলাম বলে। একসময় আমিও করতাম না। যখন আমি পর্দা করা শুরু করলাম, আমাকে দেখে অনেকেই এ পথে এসেছে। দুনিয়াতে আমি অনেক কামিয়াবি ছিলাম। পৃথিবীর সাকসেস আমি পেয়েছিলাম।’

বোরকার বিজনেস শুরুর পর তার ওপর তুমুল অ্যাটাক এসেছে বলে দাবি করেন এ্যানি। বলেন, ‘অভিনেত্রীরা এখন বোরকার ব্যবসায়ী, তোর এ হচ্ছে না, ও হচ্ছে না- এভাবে নানা কটাক্ষ শুনতে হয়েছে। আমাকে দালালও বানিয়েছেন আপনারা। অনেকগুলো গ্রুপের মধ্যে ফেলে দিয়েছেন, যেগুলো সম্পর্কে আমার ধারণাই ছিল না। কে কোন গ্রুপের, কে কোন ঘরানার- এতকিছু আমার জানা ছিল না। জানতে চাইও না।’

এ্যানি বলেন, ‘আমি আল্লাহর একাত্ববাদ স্বীকার করি। আমার রব একাই আছেন। রবের শক্তি আমার কাছে ক্লিয়ার, আলহামদুলিল্লাহ। আমার নবীজির দেখানো পথ আমাকে ফলো করতে হবে। তিনি যেভাবে সালাত আদায় করেছেন, আমাকে সেভাবে সালাত আদায় করতে হবে। কোরআর অনুযায়ী জীবনযাপন করে দেখিয়েছেন তিনি।’

অভিনেত্রী এও বলেন, ‘এটা এক দিনে পারব, তা না। অনেক সাধনার ব্যাপার। বছরের পর বছর অনেকে সাধনা করে দেখা গেছে মরার আগে ঈমান হারিয়ে মারা গেছে। আবার দেখা গেছে কেউ কিছু করে নাই বছরের পর বছর, মরার আগে আল্লাহর ইশারায় তার ঈমান এসেছে এবং আল্লাহর ইশারায় জান্নাতবাসী হচ্ছে। আল্লাহ তাকে জান্নাতের জন্য কবুল করে নিচ্ছে। জান্নাত তো আসলে নির্ধারণ করেন আল্লাহ। আপনি আমি আমরা কেউ না।’

এ্যানির প্রশ্ন, ‘আমি যখন কবরে চলে যাবো। আমাকে যখন কবরে শুইয়ে রেখে সবাই চলে আসবে, আমার তখন কী হবে? আমি আমার রবের কাছে কী জবাব দেব? সেই জবাবগুলোকে আমার রব আদৌ সহজ করে দেবেন কিনা?

যারা শতভাগ পর্দা করে এ্যানিকে লাইভে আসতে বলেন তাদের উদ্দেশ্য অভিনেত্রী বলেন, ‘আল্লাহ তায়ালা ছেলেদের চোখের হেফাজত করতে বলেছেন। আপনারা জানেন আমি একজন মিডিয়াকর্মী ছিলাম। সেখান থেকে বেরিয়ে এসে আমি চেষ্টা করছি নিজেকে পরবর্তন করার। তাই আমাকে নসিহা না দিয়ে উৎসাহ দিন। অনেক প্রবাসী ভাই আছেন যারা বোরকা কিনে আমাকে উৎসাহিত করেছেন।’

শিশুশিল্পী হিসেবে শোবিজ অঙ্গনে পা রেখেছিলেন এ্যানি খান। এরপর দীর্ঘ ২৩ বছরের অভিনয় ক্যারিয়ার তার। ২০২০ সালের জুন মাসে সেই ক্যারিয়ারের ইতি টানেন তিনি। একজন সাধারণ ধার্মিক মানুষ হিসেবে বাকি জীবনটা কাটানোর সিদ্ধান্ত নেন তিনি। পাশাপাশি শুরু করেন অনলাইনে বোরকার ব্যবসা। নিজেও পর্দা করতে শুরু করেন।