ঢাকা ১১:২৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

নাটোর জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী ইজিবাইক চালক

জালাল উদ্দিন গুরুদাসপুর (নাটোর)

নাটোরে জেলা পরিষদ নির্বাচনের চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন ইজিবাইক চালক রায়হান শাহ। গুরুদাসপুর উপজেলা সদরের বাসিন্দা রায়হান শাহ বুধবার নাটোর নির্বাচন অফিসে তার মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। এছাড়া মনোনয়ন পত্র দাখিলের শেষ দিন বৃহস্পতিবার আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান প্রশাসক আওয়ামীলীগের বষিৃয়ান নেতা অ্যাডভোকেট সাজেদুর রহমান খান ও জাতীয় পাটির (জিএম কাদের গ্রুপ) ড. নূরন্নবী মৃধা চেয়ারম্যান পদের মনোনয়ন পত্র দাখিল করেন। এতে নাটোর জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পদে ৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এই তিন প্রার্থীর মধ্যে গুরুদাসপুরের ইজিবাইক চালক রায়হান শাহ চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হওয়ায় চ্যাঞ্চল্যসহ আলোচনার ঝড় শুরু হয়েছে। গুরুদাসপুর উপজেলা সদরের বাসিন্দা রায়হান শাহ কোন রাজনৈতিক দলের সাথে সম্পৃক্ত নন। তবে ইজি বাইক চালক হিসেবে সবার কাছে পরিচিত তিনি।

রায়হান শাহর মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি প্রার্থী হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে মানবকন্ঠকে বলেন, তিনি পেশায় একজন ইজিবাইক চালক। কৃষি কাজও করেন। একমাত্র মেয়েকে বিয়ে দিয়েছেন। বাবা জীবিত। মা জীবিত নেই। স্ত্রীকে নিয়ে বেশ ভালভাবেই দিন কাটে তাদের। স্বপ্ন দেখতেন দেশের একজন জনপ্রতিনিধি হিসেবে জনগনের কাজ করছেন। তার সেই স্বপ্ন পুরনরে সুযোগ করে দিয়েছে জেলা পরিষদ নির্বাচন। তিনি চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে তার মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। তিনি জানেন কাদের কাছে ভোট চাইতে হবে। তিনি জেলার ৫২টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচিত প্রতিনিধি ও পৌরসভার নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের কাছে গিয়ে ভোট চাইবেন। ৮০৬ জন ভোটারের কাছে তাকে যেতে হবে। তিনি সেই প্রস্তুতি নিয়েই নির্বাচনে নেমেছেন। তিনি কোন রাজনীতির সাথে জড়িত নন। তাই সব মানুষ তাকে ভালবাসে। তিনি আশা করছেন সকল ভোটার তাকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করে তার স্বপ্ন পুরন করবেন।

অপর দুই প্রার্থীর মধ্যে জাতীয় পার্টি (জিএম কাদের) মনোনীত প্রার্থী ড.নূরন্নবী মৃধা বলেন, ভোটে অংশ নেয়া মানেই প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অংশ নেয়া। তিনি জনগনের জন্য জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন। সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদের আদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে তিনি জাতীয় পার্টির পতাকা তলে রয়েছেন। লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে ভোট করতে চান। ৮০৬ জন ভোটার মন জয় করা কঠিন কিছু নয়। সবাই তাকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করবেন বলে তিনি আশাবাদি।

আওয়ামীলীগ প্রার্থী বর্ষিয়ান সাজেদুর রহমান বলেন,তিনি তার বিজয় শতভাগ নিশ্চিত বলে মনে করছেন। এই মুহুর্তে নাটোরে তার প্রার্থীতা নিয়ে দলের মধ্যে কোন বিরোধ নেই। তার পক্ষে দলের সকলেই রয়েছেন।

জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক শরিফুল ইসলাম রমজান বলেন, আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে বর্তমান প্রশাসক বর্ষিয়ান আওয়ামীলীগ নেতা অ্যাডভোকেট সাজেদুর রহমান খান দলীয় মনোনীত প্রার্থী। চেয়ারম্যান পদে দলীয় সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে জেলা পরিষদ নির্বাচনে আবারও মনোনয়ন দিয়েছেন। নাটোরে আওয়ামীলীগ ঐক্যবদ্ধ একটি দল। এখানে আওয়ামীলীগের কোন বিদ্রোহী প্রার্থী নেই। ইনশাল্লাহ আমরাই বিজয়ী হব।
এদিকে নির্বাচনে ৭ জন সাধারন সদস্য পদে ৩৯ জন এবং ২টি সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ১৩ জন মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন।

জেলা নির্বাচন অফিসার আনোয়ারুল হক ৩ জন চেয়ারম্যান ও ৩৯ জন সাধারন সদস্য এবং ১৩ জন সংরক্ষিত মহিলা সদস্য মনোনয়ন পত্র জমাদানের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, জেলায় মোট প্রার্থী ৫৫ জন। আগামী রোববার মনোনয়ন পত্র বাছাই করা হবে।
জেলা পরিষদ নির্বাচনের রির্টানিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক শামীম আহমেদ বলেন, সুষ্ঠ নির্বাচনের জন্য যে ধরনের প্রস্ততি প্রয়োজন তার সাব প্রস্তুতি রয়েছে। সকলের সহযোগীতায় সুষ্ঠ, শান্তিপুর্ন ও নিরপেক্ষ নির্বাচন উপহার দিতে পারব বলে প্রত্যাশা করছি।

Tag :

আবদুল্লা আল মামুন নোয়াখালীর শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক  

নাটোর জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী ইজিবাইক চালক

প্রকাশের সময় : ১১:৪২:৩৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২২

জালাল উদ্দিন গুরুদাসপুর (নাটোর)

নাটোরে জেলা পরিষদ নির্বাচনের চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন ইজিবাইক চালক রায়হান শাহ। গুরুদাসপুর উপজেলা সদরের বাসিন্দা রায়হান শাহ বুধবার নাটোর নির্বাচন অফিসে তার মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। এছাড়া মনোনয়ন পত্র দাখিলের শেষ দিন বৃহস্পতিবার আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান প্রশাসক আওয়ামীলীগের বষিৃয়ান নেতা অ্যাডভোকেট সাজেদুর রহমান খান ও জাতীয় পাটির (জিএম কাদের গ্রুপ) ড. নূরন্নবী মৃধা চেয়ারম্যান পদের মনোনয়ন পত্র দাখিল করেন। এতে নাটোর জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পদে ৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এই তিন প্রার্থীর মধ্যে গুরুদাসপুরের ইজিবাইক চালক রায়হান শাহ চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হওয়ায় চ্যাঞ্চল্যসহ আলোচনার ঝড় শুরু হয়েছে। গুরুদাসপুর উপজেলা সদরের বাসিন্দা রায়হান শাহ কোন রাজনৈতিক দলের সাথে সম্পৃক্ত নন। তবে ইজি বাইক চালক হিসেবে সবার কাছে পরিচিত তিনি।

রায়হান শাহর মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি প্রার্থী হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে মানবকন্ঠকে বলেন, তিনি পেশায় একজন ইজিবাইক চালক। কৃষি কাজও করেন। একমাত্র মেয়েকে বিয়ে দিয়েছেন। বাবা জীবিত। মা জীবিত নেই। স্ত্রীকে নিয়ে বেশ ভালভাবেই দিন কাটে তাদের। স্বপ্ন দেখতেন দেশের একজন জনপ্রতিনিধি হিসেবে জনগনের কাজ করছেন। তার সেই স্বপ্ন পুরনরে সুযোগ করে দিয়েছে জেলা পরিষদ নির্বাচন। তিনি চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে তার মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। তিনি জানেন কাদের কাছে ভোট চাইতে হবে। তিনি জেলার ৫২টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচিত প্রতিনিধি ও পৌরসভার নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের কাছে গিয়ে ভোট চাইবেন। ৮০৬ জন ভোটারের কাছে তাকে যেতে হবে। তিনি সেই প্রস্তুতি নিয়েই নির্বাচনে নেমেছেন। তিনি কোন রাজনীতির সাথে জড়িত নন। তাই সব মানুষ তাকে ভালবাসে। তিনি আশা করছেন সকল ভোটার তাকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করে তার স্বপ্ন পুরন করবেন।

অপর দুই প্রার্থীর মধ্যে জাতীয় পার্টি (জিএম কাদের) মনোনীত প্রার্থী ড.নূরন্নবী মৃধা বলেন, ভোটে অংশ নেয়া মানেই প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অংশ নেয়া। তিনি জনগনের জন্য জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন। সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদের আদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে তিনি জাতীয় পার্টির পতাকা তলে রয়েছেন। লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে ভোট করতে চান। ৮০৬ জন ভোটার মন জয় করা কঠিন কিছু নয়। সবাই তাকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করবেন বলে তিনি আশাবাদি।

আওয়ামীলীগ প্রার্থী বর্ষিয়ান সাজেদুর রহমান বলেন,তিনি তার বিজয় শতভাগ নিশ্চিত বলে মনে করছেন। এই মুহুর্তে নাটোরে তার প্রার্থীতা নিয়ে দলের মধ্যে কোন বিরোধ নেই। তার পক্ষে দলের সকলেই রয়েছেন।

জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক শরিফুল ইসলাম রমজান বলেন, আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে বর্তমান প্রশাসক বর্ষিয়ান আওয়ামীলীগ নেতা অ্যাডভোকেট সাজেদুর রহমান খান দলীয় মনোনীত প্রার্থী। চেয়ারম্যান পদে দলীয় সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে জেলা পরিষদ নির্বাচনে আবারও মনোনয়ন দিয়েছেন। নাটোরে আওয়ামীলীগ ঐক্যবদ্ধ একটি দল। এখানে আওয়ামীলীগের কোন বিদ্রোহী প্রার্থী নেই। ইনশাল্লাহ আমরাই বিজয়ী হব।
এদিকে নির্বাচনে ৭ জন সাধারন সদস্য পদে ৩৯ জন এবং ২টি সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ১৩ জন মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন।

জেলা নির্বাচন অফিসার আনোয়ারুল হক ৩ জন চেয়ারম্যান ও ৩৯ জন সাধারন সদস্য এবং ১৩ জন সংরক্ষিত মহিলা সদস্য মনোনয়ন পত্র জমাদানের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, জেলায় মোট প্রার্থী ৫৫ জন। আগামী রোববার মনোনয়ন পত্র বাছাই করা হবে।
জেলা পরিষদ নির্বাচনের রির্টানিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক শামীম আহমেদ বলেন, সুষ্ঠ নির্বাচনের জন্য যে ধরনের প্রস্ততি প্রয়োজন তার সাব প্রস্তুতি রয়েছে। সকলের সহযোগীতায় সুষ্ঠ, শান্তিপুর্ন ও নিরপেক্ষ নির্বাচন উপহার দিতে পারব বলে প্রত্যাশা করছি।