ঢাকা ০৯:৫২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

রিয়াদকে ছাড়াই বিশ্বকাপ দল

অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপের জন্য এখনো বাংলাদেশ দল ঘোষণা করেনি বিসিবি। শ্রীরামের তিন দিনের বিশেষ ক্যাম্প শেষে আগামী বৃহস্পতিবার দল ঘোষণা করা হতে পারে। বাতাসে গুঞ্জন, বিশ্বকাপ দল থেকে বাদ পড়ছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। গত এক বছর ধরে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে অভিজ্ঞ এই অলরাউন্ডার খারাপ সময় পার করছেন। সর্বশেষ এশিয়া কাপে ৬ নম্বর পজিশনে ব্যাটিংয়ে নেমে ২৭ বলে ২৫ (প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান) ও ২২ বলে ২৭ (প্রতিপক্ষ শ্রীলংকা) রান করেছেন। গুরুত্বপূর্ণ পজিশনে ব্যাটিংয়ে নেমে মন্থর গতিতে ব্যাট করার কারণে তীব্র সমালোচনার শিকার হয়েছেন। কিছুদিন আগেই অধিনায়কত্ব হারানো মাহমুদউল্লাহ সর্বশেষ ফিফটি করেছেন গত বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ম্যাচে পিএনজির বিপক্ষে। এর পর খেলা ১৬ ম্যাচে তার কোনো ফিফটি রানের ইনিংস নেই। টি-টোয়েন্টিতে দলকে ঢেলে সাজানোর কাজ শুরু করেছে বিসিবি। এই সংস্করণে তাই তরুণদের প্রাধান্য দিতে চায় টিম ম্যানেজমেন্ট। ৩৬ বছর বয়সী মাহমুদউল্লাহর কারণে একজন তরুণ ক্রিকেটার সুযোগ পাচ্ছেন না দলে।

বয়স ও ফর্ম বিবেচনায় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মতো গুরুত্বপূর্ণ আসরে তাই মাহমুদউল্লাহকে বাদ দেওয়ার পক্ষে অধিকাংশ বোর্ড পরিচালক! শেষ পর্যন্ত যদি তিনি টিকেও যান তা হলে সেটা সাকিবের কল্যাণে। জানা গেছে, টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক অভিজ্ঞতা বিবেচনায় বিশ^কাপ দলে মাহমুদউল্লাহকে চান। তবে মাহমুদউল্লাহকে বিশ্বকাপ দলে রাখা হবে কিনা সে বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি বলে জানিয়েছেন খালেদ মাহমুদ সুজন। জাতীয় দলের এই টিম ডিরেক্টর বলেন, ‘যেহেতু রিয়াদ (মাহমুদউল্লাহ) ক্যাম্পে আছে অবশ্যই আমাদের জন্য সে গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়। সাদা বলে এবং ওর জায়গায় (ব্যাটিং পজিশন) তো অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ। আমরা এখনো ওই চিন্তা (বাদ দেওয়া) বা ফোকাস করিনি তা নয়, চিন্তা আছে মাথায়, যখন টিম হবে তখন সিদ্ধান্ত হবে। রিয়াদ থাকবে কি থাকবে না, বা রিয়াদকে আমাদের দলে প্রয়োজন আছে কি নেই, সেটা আমরা হয়তোবা তখন চিন্তা করব।

আমরা যখন সিলেকশনে বসব, কথা যে এদিক-ওদিক হচ্ছে না তা নয়, বাট একটা প্রপার সিলেকশন মিটিং যখন না হবে ওখানে বার্গেনিং হবে, কথা হবে, সেটা আমিও চাই। বার্গেনিং হোক, কেন আমরা রিয়াদকে চাই, রিয়াদকে যদি দরকার না থাকে তাহলে কেনইবা দরকার নেই, বা ওর জায়গায় যদি অন্য কাউকে সুযোগ দেওয়া হয় তাহলে ওই বা কেন সুযোগ পাবে বা রিয়াদের জায়গায় রিয়াদ কেন থাকবে এটাও গুরুত্বপূর্ণ। রিয়াদ যে অটোমেটিক চয়েচ না সেটা কিন্তু বলা যাবে না। আমরা যখন নতুন টিমের কথা বলছি সবকিছু নিয়েই চিন্তা করব। নাম নয় আমরা চিন্তা করব বাংলাদেশ দল। দলের ভালোর জন্য যেটা প্রয়োজন আমরা সেটাই করব।’

এশিয়া কাপ শেষেই মাহমুদউল্লাহর বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত কেন নেওয়া হলো না জানতে চাইলে খালেদ মাহমুদ বলেন, ‘রিয়াদকে নিয়ে হঠাৎ করেই সিদ্ধান্ত নেব চিন্তার বিষয়। ও অনেক দিন ধরে দলকে সার্ভিস দিচ্ছে। পঞ্চপাণ্ড বের অবদান অস্বীকার করার সুযোগ নেই। তবে ওর বিষয়ে ডিসিশন একটা হবেই দল নির্বাচনের দিন। রিয়াদের কাছে আমরা যেটা প্রত্যাশা করি সেটা হয়তো পাইনি। আমি মনে করি, ব্যক্তির চেয়ে দেশ এবং দল অনেক বড়।’

Tag :
জনপ্রিয়

করোনা মোকাবিলার অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে স্বাস্থ্যখাতের মানোন্নয়ন করা হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

রিয়াদকে ছাড়াই বিশ্বকাপ দল

প্রকাশের সময় : ০৯:৫৫:৪০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২

অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপের জন্য এখনো বাংলাদেশ দল ঘোষণা করেনি বিসিবি। শ্রীরামের তিন দিনের বিশেষ ক্যাম্প শেষে আগামী বৃহস্পতিবার দল ঘোষণা করা হতে পারে। বাতাসে গুঞ্জন, বিশ্বকাপ দল থেকে বাদ পড়ছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। গত এক বছর ধরে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে অভিজ্ঞ এই অলরাউন্ডার খারাপ সময় পার করছেন। সর্বশেষ এশিয়া কাপে ৬ নম্বর পজিশনে ব্যাটিংয়ে নেমে ২৭ বলে ২৫ (প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান) ও ২২ বলে ২৭ (প্রতিপক্ষ শ্রীলংকা) রান করেছেন। গুরুত্বপূর্ণ পজিশনে ব্যাটিংয়ে নেমে মন্থর গতিতে ব্যাট করার কারণে তীব্র সমালোচনার শিকার হয়েছেন। কিছুদিন আগেই অধিনায়কত্ব হারানো মাহমুদউল্লাহ সর্বশেষ ফিফটি করেছেন গত বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ম্যাচে পিএনজির বিপক্ষে। এর পর খেলা ১৬ ম্যাচে তার কোনো ফিফটি রানের ইনিংস নেই। টি-টোয়েন্টিতে দলকে ঢেলে সাজানোর কাজ শুরু করেছে বিসিবি। এই সংস্করণে তাই তরুণদের প্রাধান্য দিতে চায় টিম ম্যানেজমেন্ট। ৩৬ বছর বয়সী মাহমুদউল্লাহর কারণে একজন তরুণ ক্রিকেটার সুযোগ পাচ্ছেন না দলে।

বয়স ও ফর্ম বিবেচনায় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মতো গুরুত্বপূর্ণ আসরে তাই মাহমুদউল্লাহকে বাদ দেওয়ার পক্ষে অধিকাংশ বোর্ড পরিচালক! শেষ পর্যন্ত যদি তিনি টিকেও যান তা হলে সেটা সাকিবের কল্যাণে। জানা গেছে, টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক অভিজ্ঞতা বিবেচনায় বিশ^কাপ দলে মাহমুদউল্লাহকে চান। তবে মাহমুদউল্লাহকে বিশ্বকাপ দলে রাখা হবে কিনা সে বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি বলে জানিয়েছেন খালেদ মাহমুদ সুজন। জাতীয় দলের এই টিম ডিরেক্টর বলেন, ‘যেহেতু রিয়াদ (মাহমুদউল্লাহ) ক্যাম্পে আছে অবশ্যই আমাদের জন্য সে গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়। সাদা বলে এবং ওর জায়গায় (ব্যাটিং পজিশন) তো অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ। আমরা এখনো ওই চিন্তা (বাদ দেওয়া) বা ফোকাস করিনি তা নয়, চিন্তা আছে মাথায়, যখন টিম হবে তখন সিদ্ধান্ত হবে। রিয়াদ থাকবে কি থাকবে না, বা রিয়াদকে আমাদের দলে প্রয়োজন আছে কি নেই, সেটা আমরা হয়তোবা তখন চিন্তা করব।

আমরা যখন সিলেকশনে বসব, কথা যে এদিক-ওদিক হচ্ছে না তা নয়, বাট একটা প্রপার সিলেকশন মিটিং যখন না হবে ওখানে বার্গেনিং হবে, কথা হবে, সেটা আমিও চাই। বার্গেনিং হোক, কেন আমরা রিয়াদকে চাই, রিয়াদকে যদি দরকার না থাকে তাহলে কেনইবা দরকার নেই, বা ওর জায়গায় যদি অন্য কাউকে সুযোগ দেওয়া হয় তাহলে ওই বা কেন সুযোগ পাবে বা রিয়াদের জায়গায় রিয়াদ কেন থাকবে এটাও গুরুত্বপূর্ণ। রিয়াদ যে অটোমেটিক চয়েচ না সেটা কিন্তু বলা যাবে না। আমরা যখন নতুন টিমের কথা বলছি সবকিছু নিয়েই চিন্তা করব। নাম নয় আমরা চিন্তা করব বাংলাদেশ দল। দলের ভালোর জন্য যেটা প্রয়োজন আমরা সেটাই করব।’

এশিয়া কাপ শেষেই মাহমুদউল্লাহর বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত কেন নেওয়া হলো না জানতে চাইলে খালেদ মাহমুদ বলেন, ‘রিয়াদকে নিয়ে হঠাৎ করেই সিদ্ধান্ত নেব চিন্তার বিষয়। ও অনেক দিন ধরে দলকে সার্ভিস দিচ্ছে। পঞ্চপাণ্ড বের অবদান অস্বীকার করার সুযোগ নেই। তবে ওর বিষয়ে ডিসিশন একটা হবেই দল নির্বাচনের দিন। রিয়াদের কাছে আমরা যেটা প্রত্যাশা করি সেটা হয়তো পাইনি। আমি মনে করি, ব্যক্তির চেয়ে দেশ এবং দল অনেক বড়।’