ঢাকা ১০:২৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

২০ বছর অনুসন্ধানের পর হারানো কয়েন ফিরে পেল ইসরায়েল

টানা প্রায় ২০ বছর অনুসন্ধানের পর বিশ্বে ইহুদি জাতির উত্থানের সঙ্গে সম্পৃক্ত একটি কয়েন ফেরত পাচ্ছে ইসরায়েল। যুক্তরাষ্ট্র থেকে ইসরায়েলে কয়েনটি ফেরত পাঠানোর যাবতীয় প্রক্রিয়া ইতোমধ্যে সুসম্পন্ন হয়েছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বিবিসি।

কয়েনটির বয়স দু’হাজার বছরেরও বেশি উল্লেখ করে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় সরকারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় হোমল্যান্ড সিকিউরিটির জেষ্ঠ্য কর্মকর্তা রিকি জে প্যাটেল বিবিসিকে বলেন, ‘ইতিহাসের অমূল্য এই সম্পদটি অবশেষে বাড়ি ফিরে যাচ্ছে।’

দু’হাজার বছর পুরনো যে কোনো মূল্যবান প্রাচীন সামগ্রীর (অ্যান্টিক) বর্তমান বাজার মূল্য ১০ লাখ ডলার বা তার কিছু কমবেশি। কিন্তু এই কয়েনটির স্বতন্ত্র ইতিহাসের কারণেই এটির দাম তার চেয়েও অনেক বেশি।

বর্তমানে আমরা ইসরায়েল ও ফিলিস্তিন নামে যে ভূখণ্ডকে চিনি, একসময় সেটি ছিল প্রাচীন রোমান সম্রাজ্যের অন্তর্ভুক্ত। রোমান শাসকদের অধীনে নিজ দেশে দাসের মত জীবন-যাপন করতেন সে সময়কার ইহুদি জনগোষ্ঠী। আজ থেকে প্রায় তিন হাজার বছর আগে এই ভূখণ্ডেই ইহুদি ধর্মের আবির্ভাব হয়েছিল।

শত শত বছর দাসত্বের জীবন কাটানোার পর আজ থেকে প্রায় দু’হাজার বছর আগে, খ্রিস্টিয় ৬৯ অব্দে রোমান শাসকদের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করেন ইহুদিরা, জয়ীও হোন। সেই সময়কার ইহুদি শাসকদের আমলে এই মুদ্রাটি তৈরি হয়েছিল।

ইসরায়েলের এল্লা উপত্যাকা এলাকার একটি গোপন সংগ্রহশালায় সংরক্ষিত ছিল কয়েনটি। ২০০২ সালে কয়েকজন ফিলিস্তিনি সেই সংগ্রশালা থেকে কিছু অ্যান্টিক চুরি করেন। সেসব সামগ্রীর মধ্যে এই কয়েনটিও ছিল।

ইসরায়েল সরকারের প্রাচীন পুরাকীর্তি সম্পর্কিত কর্তৃপক্ষ (ইসরায়েল অ্যান্টিকুইটিস অথরিটি—আইএএ) যখন এই চুরির ঘটনা জানতে পারে, ততক্ষণে কয়েনটি অবৈধভাবে ইসরায়েল থেকে পাচার হয়ে গেছে।

আইএএর তত্ত্বাবধানে তারপর শুরু হয় কয়েনটির সন্ধান তৎপরতা। ইসরায়েল, জর্ডান, যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন অ্যান্টিক মার্কেটে তন্ন তন্ন করে সন্ধান চালানো হয়, কিন্তু বছরের পর বছর পেরিয়ে গেলেও কয়েনটি কোথায় কী অবস্থায় আছে, জানা যায়নি।

অবশেষে ২০১৭ সালে যুক্তরাষ্ট্রের কলোরাডো অঙ্গরাজ্যের ডেনভার জেলার এক নিলাম অনুষ্ঠানে দেখা মেলে সেই কয়েনটির।

যুক্তরাষ্ট্রে সেই কয়েনটি আছে— সংবাদটি জানার পরই হোমল্যান্ড সিকিউরিটির সঙ্গে যোগাযোগ করে আইএএ। তারপর কয়েনটি উদ্ধার ও হস্তান্তর সম্পর্কিত আইনি প্রক্রিয়া শেষে সোমবার যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত ইসরায়েলের রাষ্ট্রদূতের কাছে সেটি ফেরত দেওয়া হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে বিবিসির প্রতিবেদনে।

আইএএর নির্বাহী কর্মকর্তা ইলান হাদাদ বিবিসিকে বলেন, ‘এটি কেবল একটি কয়েন নয়। এটির একটি পরাক্রমশালী সাম্রাজ্যের বিরুদ্ধে নিপীড়িত জাতির উত্থানের ইতিহাস সরাসরি যুক্ত। এ কারণে এ কয়েনটি অমূল্য।’

Tag :

প্রতিমায় রং তুলির আঁচড়ে ব্যস্ত কারিগররা

২০ বছর অনুসন্ধানের পর হারানো কয়েন ফিরে পেল ইসরায়েল

প্রকাশের সময় : ১১:৪০:৩৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২

টানা প্রায় ২০ বছর অনুসন্ধানের পর বিশ্বে ইহুদি জাতির উত্থানের সঙ্গে সম্পৃক্ত একটি কয়েন ফেরত পাচ্ছে ইসরায়েল। যুক্তরাষ্ট্র থেকে ইসরায়েলে কয়েনটি ফেরত পাঠানোর যাবতীয় প্রক্রিয়া ইতোমধ্যে সুসম্পন্ন হয়েছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বিবিসি।

কয়েনটির বয়স দু’হাজার বছরেরও বেশি উল্লেখ করে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় সরকারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় হোমল্যান্ড সিকিউরিটির জেষ্ঠ্য কর্মকর্তা রিকি জে প্যাটেল বিবিসিকে বলেন, ‘ইতিহাসের অমূল্য এই সম্পদটি অবশেষে বাড়ি ফিরে যাচ্ছে।’

দু’হাজার বছর পুরনো যে কোনো মূল্যবান প্রাচীন সামগ্রীর (অ্যান্টিক) বর্তমান বাজার মূল্য ১০ লাখ ডলার বা তার কিছু কমবেশি। কিন্তু এই কয়েনটির স্বতন্ত্র ইতিহাসের কারণেই এটির দাম তার চেয়েও অনেক বেশি।

বর্তমানে আমরা ইসরায়েল ও ফিলিস্তিন নামে যে ভূখণ্ডকে চিনি, একসময় সেটি ছিল প্রাচীন রোমান সম্রাজ্যের অন্তর্ভুক্ত। রোমান শাসকদের অধীনে নিজ দেশে দাসের মত জীবন-যাপন করতেন সে সময়কার ইহুদি জনগোষ্ঠী। আজ থেকে প্রায় তিন হাজার বছর আগে এই ভূখণ্ডেই ইহুদি ধর্মের আবির্ভাব হয়েছিল।

শত শত বছর দাসত্বের জীবন কাটানোার পর আজ থেকে প্রায় দু’হাজার বছর আগে, খ্রিস্টিয় ৬৯ অব্দে রোমান শাসকদের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করেন ইহুদিরা, জয়ীও হোন। সেই সময়কার ইহুদি শাসকদের আমলে এই মুদ্রাটি তৈরি হয়েছিল।

ইসরায়েলের এল্লা উপত্যাকা এলাকার একটি গোপন সংগ্রহশালায় সংরক্ষিত ছিল কয়েনটি। ২০০২ সালে কয়েকজন ফিলিস্তিনি সেই সংগ্রশালা থেকে কিছু অ্যান্টিক চুরি করেন। সেসব সামগ্রীর মধ্যে এই কয়েনটিও ছিল।

ইসরায়েল সরকারের প্রাচীন পুরাকীর্তি সম্পর্কিত কর্তৃপক্ষ (ইসরায়েল অ্যান্টিকুইটিস অথরিটি—আইএএ) যখন এই চুরির ঘটনা জানতে পারে, ততক্ষণে কয়েনটি অবৈধভাবে ইসরায়েল থেকে পাচার হয়ে গেছে।

আইএএর তত্ত্বাবধানে তারপর শুরু হয় কয়েনটির সন্ধান তৎপরতা। ইসরায়েল, জর্ডান, যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন অ্যান্টিক মার্কেটে তন্ন তন্ন করে সন্ধান চালানো হয়, কিন্তু বছরের পর বছর পেরিয়ে গেলেও কয়েনটি কোথায় কী অবস্থায় আছে, জানা যায়নি।

অবশেষে ২০১৭ সালে যুক্তরাষ্ট্রের কলোরাডো অঙ্গরাজ্যের ডেনভার জেলার এক নিলাম অনুষ্ঠানে দেখা মেলে সেই কয়েনটির।

যুক্তরাষ্ট্রে সেই কয়েনটি আছে— সংবাদটি জানার পরই হোমল্যান্ড সিকিউরিটির সঙ্গে যোগাযোগ করে আইএএ। তারপর কয়েনটি উদ্ধার ও হস্তান্তর সম্পর্কিত আইনি প্রক্রিয়া শেষে সোমবার যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত ইসরায়েলের রাষ্ট্রদূতের কাছে সেটি ফেরত দেওয়া হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে বিবিসির প্রতিবেদনে।

আইএএর নির্বাহী কর্মকর্তা ইলান হাদাদ বিবিসিকে বলেন, ‘এটি কেবল একটি কয়েন নয়। এটির একটি পরাক্রমশালী সাম্রাজ্যের বিরুদ্ধে নিপীড়িত জাতির উত্থানের ইতিহাস সরাসরি যুক্ত। এ কারণে এ কয়েনটি অমূল্য।’