ঢাকা ০১:৪৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

‘প্রথম ম্যাচে হার ভালোর জন্যই হয়েছিল’

দেশে চলছিল অর্থনৈতিক দুর্দশা। বিক্ষোভ, রাজনৈতিক অস্থিরতায় পর্যদুস্ত ছিল শ্রীলঙ্কা। এশিয়া কাপ দেশের মাটিতে আয়োজনও করতে পারেনি তারা। আয়োজক হলেও খেলতে হয়েছে নিরপেক্ষ ভেন্যুতে। শুরুটাও হয় বড় হার দিয়ে, তাও আবার আফগানিস্তানের কাছে।

সেই শ্রীলঙ্কা দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ায়। একের পর এক ‘কামব্যাকের’ দৃষ্টান্ত তৈরি করে তারাই চ্যাম্পিয়ন। আফগানিস্তানের কাছে ১০৫ রানে অলআউট হয়ে ৮ উইকেটে হার। তারপর বাংলাদেশের বিপক্ষে শ্বাসরুদ্ধকর জয়, আর পেছনে ফিরতে হয়নি। শক্তিশালী দল হিসেবে বাকি সময় মাঠে আধিপত্য বিস্তার করে ষষ্ঠ এশিয়া কাপ ট্রফি ঘরে নিলো লঙ্কানরা।

আফগানিস্তানের কাছে হারের পর টানা তিন ম্যাচে একশ সত্তরের বেশি রান তাড়া করে জিতেছে শ্রীলঙ্কা। টস ভাগ্যকে বদলে দিয়ে ফাইনালে আগে ব্যাট করে জিতলো তারা। কীভাবে এমন বদলে যাাওয়া।

তাহলে কি প্রথম ম্যাচ হেরে ভালোই হয়েছে? ওই ম্যাচের পর কী আলোচনা হয়েছিল জানতে চাইলে লঙ্কান অধিনায়ক দাসুন শানাকা বললেন, ‘এটা যে কোনও ভালো দলের ক্ষেত্রে হতে পারে। আমাদের ভালোর জন্যই এটা হয়েছিল। ওই ম্যাচ শেষে আমাদের মধ্যে গুরুতর বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছিল। আমাদের ভালো সামর্থ্যবান খেলোয়াড় আছে এবং তারা ভালোভাবে ঘুরে দাঁড়ালো। এভাবেই আমরা চ্যাম্পিয়ন হলাম।’

ফাইনালে শ্রীলঙ্কার দুর্দান্ত ফিল্ডিং নজর কেড়েছে। ভুলগুলো শুধরে নিয়ে এই জায়গায় উন্নতি বললেন শানাকা, ‘সময়ের সঙ্গে সঙ্গে এটা অনেক উন্নত হয়েছে। আমরা শুরুতে ভুল করেছিলাম। কিন্তু ফাইনাল সবসময় ফাইনাল। আমরা আজ শতভাগ দিয়েছিলাম। খেলোয়াড় ও কোচিং স্টাফদের কৃতিত্ব দিতে হয়। আমাদের সমর্থন দেওয়ায় ও পাশে থাকায় আমি শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটকে ধন্যবাদ জানাই, নির্বাচকদের কথাও ভোলা যাবে না।’

Tag :
জনপ্রিয়

বোমা ফেলে থামানোর চেষ্টা বিশ্বের বৃহত্তম জীবন্ত আগ্নেয়গিরির লাভাস্রোত!

‘প্রথম ম্যাচে হার ভালোর জন্যই হয়েছিল’

প্রকাশের সময় : ০৯:১২:২৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১২ সেপ্টেম্বর ২০২২

দেশে চলছিল অর্থনৈতিক দুর্দশা। বিক্ষোভ, রাজনৈতিক অস্থিরতায় পর্যদুস্ত ছিল শ্রীলঙ্কা। এশিয়া কাপ দেশের মাটিতে আয়োজনও করতে পারেনি তারা। আয়োজক হলেও খেলতে হয়েছে নিরপেক্ষ ভেন্যুতে। শুরুটাও হয় বড় হার দিয়ে, তাও আবার আফগানিস্তানের কাছে।

সেই শ্রীলঙ্কা দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ায়। একের পর এক ‘কামব্যাকের’ দৃষ্টান্ত তৈরি করে তারাই চ্যাম্পিয়ন। আফগানিস্তানের কাছে ১০৫ রানে অলআউট হয়ে ৮ উইকেটে হার। তারপর বাংলাদেশের বিপক্ষে শ্বাসরুদ্ধকর জয়, আর পেছনে ফিরতে হয়নি। শক্তিশালী দল হিসেবে বাকি সময় মাঠে আধিপত্য বিস্তার করে ষষ্ঠ এশিয়া কাপ ট্রফি ঘরে নিলো লঙ্কানরা।

আফগানিস্তানের কাছে হারের পর টানা তিন ম্যাচে একশ সত্তরের বেশি রান তাড়া করে জিতেছে শ্রীলঙ্কা। টস ভাগ্যকে বদলে দিয়ে ফাইনালে আগে ব্যাট করে জিতলো তারা। কীভাবে এমন বদলে যাাওয়া।

তাহলে কি প্রথম ম্যাচ হেরে ভালোই হয়েছে? ওই ম্যাচের পর কী আলোচনা হয়েছিল জানতে চাইলে লঙ্কান অধিনায়ক দাসুন শানাকা বললেন, ‘এটা যে কোনও ভালো দলের ক্ষেত্রে হতে পারে। আমাদের ভালোর জন্যই এটা হয়েছিল। ওই ম্যাচ শেষে আমাদের মধ্যে গুরুতর বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছিল। আমাদের ভালো সামর্থ্যবান খেলোয়াড় আছে এবং তারা ভালোভাবে ঘুরে দাঁড়ালো। এভাবেই আমরা চ্যাম্পিয়ন হলাম।’

ফাইনালে শ্রীলঙ্কার দুর্দান্ত ফিল্ডিং নজর কেড়েছে। ভুলগুলো শুধরে নিয়ে এই জায়গায় উন্নতি বললেন শানাকা, ‘সময়ের সঙ্গে সঙ্গে এটা অনেক উন্নত হয়েছে। আমরা শুরুতে ভুল করেছিলাম। কিন্তু ফাইনাল সবসময় ফাইনাল। আমরা আজ শতভাগ দিয়েছিলাম। খেলোয়াড় ও কোচিং স্টাফদের কৃতিত্ব দিতে হয়। আমাদের সমর্থন দেওয়ায় ও পাশে থাকায় আমি শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটকে ধন্যবাদ জানাই, নির্বাচকদের কথাও ভোলা যাবে না।’