ঢাকা ১২:৫৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ওয়াহিদ স্বাধীনতা বিরোধীপক্ষের একটি সংগঠনে জড়িত: রিয়াজ

সম্প্রতি ‘অপারেশন সুন্দরবন’ সিনেমার পোস্টার উন্মোচন অনুষ্ঠানে নিজের অভিনেতা হওয়ার সেই গল্প শোনান রিয়াজ।। সেখানে বক্তৃতা দিতে গিয়ে রিয়াজ জানিয়েছেন, আসাদুজ্জামান নূর অভিনীত বিখ্যাত নাটক ‘কোথাও কেউ নেই’-এর শেষ পর্ব সিনিয়রদের না জানিয়ে দেখতে গিয়েছিলেন বলে এয়ারফোর্স থেকে বহিষ্কার হন।

এ ঘটনার পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে রিয়াজকে নিয়ে একটি বিতর্কিত লেখা প্রকাশ করেন মুহাম্মদ ওয়াহিদ উন নবী নামের এক ব্যক্তি। তিনি নিজেকে এই নায়কের কোর্সমেট দাবি করে জানান, রিয়াজ প্রকৃত সত্য আড়াল করেছেন। নাটক বা সিরিয়াল দেখার অপরাধে তাঁকে বরখাস্ত করা হয়নি। প্রশিক্ষণে ব্যর্থ হয়েই চাকরি থেকে অব্যাহতি নিয়েছিলেন। সেই সঙ্গে এ নায়কের ব্যক্তিগত জীবন নিয়েও আপত্তিকর মন্তব্য করেন।

গণমাধ্যমের কাছে এ বিষয়ে মুখ খুলেছেন রিয়াজ। তিনি স্বীকার করেছেন এই যুবককে চেনেন। রিয়াজ বলেন, ‘আমি ওনাকে চিনি। তিনি অবসরপ্রাপ্ত স্কোয়াড্রন লিডার ওয়াহিদ উন নবী। আমার জুনিয়র। ওই কোর্সে তিনি আমাদের সঙ্গে ছিলেন।’

রিয়াজ আরও বলেন, ‘বর্তমানে ওয়াহিদ যে সংগঠনের সঙ্গে জড়িত আছেন, সেটা স্বাধীনতা বিরোধীপক্ষের একটি সংগঠন। মিডিয়ায় গুজব ছড়ানোই তাঁদের একমাত্র কাজ। তিনি বিদেশে পালিয়ে আছেন। এর আগে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে গ্রেপ্তার হয়েছিলেন। এখনো তাঁর নামে মামলা চলমান। আমি যেহেতু স্বাধীনতার পক্ষে কথা বলি, সে কারণে আমার বিরুদ্ধে তাঁরা গুজব ছড়াচ্ছেন। এমনকি প্রধানমন্ত্রীর নামেও অপপ্রচার চালান তাঁরা।’

রিয়াজ এখন রুপালি পর্দায় নিয়মিত নন। সর্বশেষ তাঁর অভিনীত ইমপ্রেস টেলিফিল্মের ‘কৃষ্ণপক্ষ’ সিনেমাটি মুক্তি পেয়েছিল। এরপর কেটে গেছে সাড়ে ছয় বছর। দীর্ঘ বিরতির পর আবারও প্রেক্ষাগৃহে আসছে রিয়াজ অভিনীত সিনেমা ‘অপারেশন সুন্দরবন’। ২৩ সেপ্টেম্বর দেশের সিনেমা হলে সিনেমাটি মুক্তি পেতে যাচ্ছে। ছয় বছর পর নিজের সিনেমা মুক্তি পাওয়ায় বেশ উচ্ছ্বসিত অভিনেতা।

Tag :
জনপ্রিয়

ছেলের হত্যাকারীর মৃত্যুদণ্ড নিজ হাতে কার্যকর করলেন বাবা

ওয়াহিদ স্বাধীনতা বিরোধীপক্ষের একটি সংগঠনে জড়িত: রিয়াজ

প্রকাশের সময় : ০৯:৪৮:৩৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১১ সেপ্টেম্বর ২০২২

সম্প্রতি ‘অপারেশন সুন্দরবন’ সিনেমার পোস্টার উন্মোচন অনুষ্ঠানে নিজের অভিনেতা হওয়ার সেই গল্প শোনান রিয়াজ।। সেখানে বক্তৃতা দিতে গিয়ে রিয়াজ জানিয়েছেন, আসাদুজ্জামান নূর অভিনীত বিখ্যাত নাটক ‘কোথাও কেউ নেই’-এর শেষ পর্ব সিনিয়রদের না জানিয়ে দেখতে গিয়েছিলেন বলে এয়ারফোর্স থেকে বহিষ্কার হন।

এ ঘটনার পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে রিয়াজকে নিয়ে একটি বিতর্কিত লেখা প্রকাশ করেন মুহাম্মদ ওয়াহিদ উন নবী নামের এক ব্যক্তি। তিনি নিজেকে এই নায়কের কোর্সমেট দাবি করে জানান, রিয়াজ প্রকৃত সত্য আড়াল করেছেন। নাটক বা সিরিয়াল দেখার অপরাধে তাঁকে বরখাস্ত করা হয়নি। প্রশিক্ষণে ব্যর্থ হয়েই চাকরি থেকে অব্যাহতি নিয়েছিলেন। সেই সঙ্গে এ নায়কের ব্যক্তিগত জীবন নিয়েও আপত্তিকর মন্তব্য করেন।

গণমাধ্যমের কাছে এ বিষয়ে মুখ খুলেছেন রিয়াজ। তিনি স্বীকার করেছেন এই যুবককে চেনেন। রিয়াজ বলেন, ‘আমি ওনাকে চিনি। তিনি অবসরপ্রাপ্ত স্কোয়াড্রন লিডার ওয়াহিদ উন নবী। আমার জুনিয়র। ওই কোর্সে তিনি আমাদের সঙ্গে ছিলেন।’

রিয়াজ আরও বলেন, ‘বর্তমানে ওয়াহিদ যে সংগঠনের সঙ্গে জড়িত আছেন, সেটা স্বাধীনতা বিরোধীপক্ষের একটি সংগঠন। মিডিয়ায় গুজব ছড়ানোই তাঁদের একমাত্র কাজ। তিনি বিদেশে পালিয়ে আছেন। এর আগে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে গ্রেপ্তার হয়েছিলেন। এখনো তাঁর নামে মামলা চলমান। আমি যেহেতু স্বাধীনতার পক্ষে কথা বলি, সে কারণে আমার বিরুদ্ধে তাঁরা গুজব ছড়াচ্ছেন। এমনকি প্রধানমন্ত্রীর নামেও অপপ্রচার চালান তাঁরা।’

রিয়াজ এখন রুপালি পর্দায় নিয়মিত নন। সর্বশেষ তাঁর অভিনীত ইমপ্রেস টেলিফিল্মের ‘কৃষ্ণপক্ষ’ সিনেমাটি মুক্তি পেয়েছিল। এরপর কেটে গেছে সাড়ে ছয় বছর। দীর্ঘ বিরতির পর আবারও প্রেক্ষাগৃহে আসছে রিয়াজ অভিনীত সিনেমা ‘অপারেশন সুন্দরবন’। ২৩ সেপ্টেম্বর দেশের সিনেমা হলে সিনেমাটি মুক্তি পেতে যাচ্ছে। ছয় বছর পর নিজের সিনেমা মুক্তি পাওয়ায় বেশ উচ্ছ্বসিত অভিনেতা।