ঢাকা ০৯:৫১ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কর্মীরা যেসব কারণে চাকরি ছেড়ে দেয়

একটি সময় গিয়ে আপনার মনে হতে পারে যে এই চাকরি ছেড়ে দেওয়া প্রয়োজন। এটি নিয়ে আপনার মধ্যে দ্বিধা-দ্বন্দ্ব কাজ করতে পারে, কারণ আপনার চাকরিটি বেশ ভালো এবং ইতিমধ্যেই স্থায়ী হয়েছে। এমন পরিস্থিতি আসতে পারে যখন মনে হবে, যত ভালোই হোক, চাকরি ছাড়তে হবে। কিন্তু কখন বুঝবেন আপনার চাকরিটি ছাড়তে হবে? জেনে নিন-

আরও ভালো চাকরির সুযোগ
আপনি যদি আরও ভালো চাকরির সুযোগ পেয়ে থাকেন তবে তা নিয়ে নিন। সুযোগ প্রত্যাখ্যান করবেন না কারণ আপনার ইতিমধ্যে একটি ভালো চাকরি আছে। আরও অর্জনের চেষ্টা করুন। নতুন লক্ষ্যগুলো অর্জন করুন, যা করার সামর্থ্য আপনার রয়েছে। আপনি সারাজীবন একই জায়গায় থাকলে সামনে এগোতে পারবেন না।

আপনি আপনার কাজ নিয়ে সত্যিই খুশি নন
আপনি যদি নিজের কাজ নিয়ে সন্তুষ্ট না হন তবে চাকরি পরিবর্তন করতে হতে পারে। আপনার এমন একটি চাকরিতে যোগ দেওয়া উচিত যা আপনাকে সকালে উঠতে এবং পুরো সপ্তাহ কাজে যেতে উৎসাহ দেবে। আপনি আনন্দ নিয়ে কাজ করতে পারবেন।

নেতিবাচক অফিস সংস্কৃতি
আপনি জীবনের বেশিরভাগ সময় কর্মক্ষেত্রে ব্যয় করেন তাই চারপাশে ভালো মনের সহকর্মী থাকা জরুরি, যারা আপনার কাজকে সহনীয় করে তুলবে। বিষাক্ত পরিবেশে কাজ করলে তা আপনাকে চাকরির প্রতি বিদ্বেষমূলক করে তুলবে। কাজ করতে ভালো লাগবে না এবং মনোবলও কমিয়ে দেবে।

দীর্ঘ কর্মঘণ্টা
একটি ভালো চাকরি মানে এই নয় যে আপনি স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি সময় কাজ করবেন। যদি আপনাকে কখনো কখনো দীর্ঘ সময় ধরে কাজ করতে বলা হয় তবে এটি ঠিক আছে। কিন্তু আপনার বস যদি এটিকে অভ্যাস করে তোলেন, তাহলে আপনাকে নতুন করে সিদ্ধান্ত নিতে হতে পারে। আপনার ব্যক্তিগত জীবনে ভারসাম্য রাখতে হবে। কারণ দীর্ঘ কর্মঘণ্টা আপনার মানসিক এবং শারীরিক স্বাস্থ্যকেও প্রভাবিত করতে পারে।

স্বাস্থ্য সমস্যা
আপনি যদি ক্রমাগত স্বাস্থ্য সমস্যায় ভুগতে থাকেন, তবে আপনার চাকরি ছেড়ে দেওয়ার প্রয়োজন হতে পারে। আপনি হয়তো চাকরির কারণে অনেক বেশি মানসিক চাপ অনুভব করছেন, যার ফলে বড় ধরনের স্বাস্থ্য সমস্যা হচ্ছে। আপনার যদি কিছু সময়ের জন্য পর্যাপ্ত সঞ্চয় থাকে তবে সুস্থ হয়ে ওঠার জন্য কিছু সময় বিশ্রামে যেতে পারেন।

Tag :
জনপ্রিয়

সিলেটে ক্বিন ব্রিজের পাশে হবে আরেকটি ব্রিজ : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

কর্মীরা যেসব কারণে চাকরি ছেড়ে দেয়

প্রকাশের সময় : ০৯:১৩:৩৮ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১১ সেপ্টেম্বর ২০২২

একটি সময় গিয়ে আপনার মনে হতে পারে যে এই চাকরি ছেড়ে দেওয়া প্রয়োজন। এটি নিয়ে আপনার মধ্যে দ্বিধা-দ্বন্দ্ব কাজ করতে পারে, কারণ আপনার চাকরিটি বেশ ভালো এবং ইতিমধ্যেই স্থায়ী হয়েছে। এমন পরিস্থিতি আসতে পারে যখন মনে হবে, যত ভালোই হোক, চাকরি ছাড়তে হবে। কিন্তু কখন বুঝবেন আপনার চাকরিটি ছাড়তে হবে? জেনে নিন-

আরও ভালো চাকরির সুযোগ
আপনি যদি আরও ভালো চাকরির সুযোগ পেয়ে থাকেন তবে তা নিয়ে নিন। সুযোগ প্রত্যাখ্যান করবেন না কারণ আপনার ইতিমধ্যে একটি ভালো চাকরি আছে। আরও অর্জনের চেষ্টা করুন। নতুন লক্ষ্যগুলো অর্জন করুন, যা করার সামর্থ্য আপনার রয়েছে। আপনি সারাজীবন একই জায়গায় থাকলে সামনে এগোতে পারবেন না।

আপনি আপনার কাজ নিয়ে সত্যিই খুশি নন
আপনি যদি নিজের কাজ নিয়ে সন্তুষ্ট না হন তবে চাকরি পরিবর্তন করতে হতে পারে। আপনার এমন একটি চাকরিতে যোগ দেওয়া উচিত যা আপনাকে সকালে উঠতে এবং পুরো সপ্তাহ কাজে যেতে উৎসাহ দেবে। আপনি আনন্দ নিয়ে কাজ করতে পারবেন।

নেতিবাচক অফিস সংস্কৃতি
আপনি জীবনের বেশিরভাগ সময় কর্মক্ষেত্রে ব্যয় করেন তাই চারপাশে ভালো মনের সহকর্মী থাকা জরুরি, যারা আপনার কাজকে সহনীয় করে তুলবে। বিষাক্ত পরিবেশে কাজ করলে তা আপনাকে চাকরির প্রতি বিদ্বেষমূলক করে তুলবে। কাজ করতে ভালো লাগবে না এবং মনোবলও কমিয়ে দেবে।

দীর্ঘ কর্মঘণ্টা
একটি ভালো চাকরি মানে এই নয় যে আপনি স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি সময় কাজ করবেন। যদি আপনাকে কখনো কখনো দীর্ঘ সময় ধরে কাজ করতে বলা হয় তবে এটি ঠিক আছে। কিন্তু আপনার বস যদি এটিকে অভ্যাস করে তোলেন, তাহলে আপনাকে নতুন করে সিদ্ধান্ত নিতে হতে পারে। আপনার ব্যক্তিগত জীবনে ভারসাম্য রাখতে হবে। কারণ দীর্ঘ কর্মঘণ্টা আপনার মানসিক এবং শারীরিক স্বাস্থ্যকেও প্রভাবিত করতে পারে।

স্বাস্থ্য সমস্যা
আপনি যদি ক্রমাগত স্বাস্থ্য সমস্যায় ভুগতে থাকেন, তবে আপনার চাকরি ছেড়ে দেওয়ার প্রয়োজন হতে পারে। আপনি হয়তো চাকরির কারণে অনেক বেশি মানসিক চাপ অনুভব করছেন, যার ফলে বড় ধরনের স্বাস্থ্য সমস্যা হচ্ছে। আপনার যদি কিছু সময়ের জন্য পর্যাপ্ত সঞ্চয় থাকে তবে সুস্থ হয়ে ওঠার জন্য কিছু সময় বিশ্রামে যেতে পারেন।