ঢাকা ১১:৪০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সীতাকুণ্ড থেকে ঢাকায় বিক্ষোভ করতে যাওয়ার সময় আলীনগরের ৬১ জন গ্রেপ্তার

সঞ্জয় চৌধুরী, সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি

চট্টগ্রামে সীতাকুণ্ডের জঙ্গল সলিমপুরে আলীনগর হতে দুটি বাসযোগে চলমান উচ্ছেদ অভিযান ঠেকাতে বিক্ষোভ সমাবেশের পরিকল্পনা নিয়ে ঢাকায় যাওয়ার পথে আলিনগরের ৬৩ জন বাসিন্দাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাঁদের বহনকারী বাস দুটি উপজেলার পৌর সদর এলাকায় গেলে ৬১ বাসিন্দাকে গ্রেপ্তার করা হয়।
এর আগে শনিবার রাত ১টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পৌর সদরের বাইপাস এলাকা থেকে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়।গতকাল রোববার দুপুরে এদের মধ্যে ২২ জনকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। বাকিদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানান, সীতাকুণ্ড থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন বণিক।
তিনি বলেন, ‘সীতাকুণ্ডের জঙ্গল সলিমপুর ও আলীনগর থেকে দুটি বাসযোগে বিক্ষোভকারীরা ঢাকার উদ্দেশে রওনা হয়েছে বলে আমরা গোপন সূত্রে জানতে পারি। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার রাত ১টার দিকে পৌর সদর বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৬৩ জনকে আটক করা হয়। পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন বণিক আরও বলেন, গ্রেপ্তারকৃতরা গত ২৩ আগস্ট উপজেলার ফৌজদারহাটে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক ছয় ঘণ্টা অবরোধ করে রাখে। এ ঘটনায় পুলিশের ওপর হামলা, গাড়ি ভাঙচুর ও হাতবোমা বিস্ফোরণ মামলার আসামি তাঁরা।

সীতাকুণ্ড উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. শাহাদাত হোসেন বলেন, পাহাড়ঘেরা দুর্গম জঙ্গল সলিমপুর সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্য হিসেবে সীতাকুণ্ডে পরিচিত। বেশ কয়েকজন গডফাদার দ্বারা নিয়ন্ত্রিত এসব সন্ত্রাসী বাহিনী এখানে সরকারি পাহাড় কেটে হাজারো অবৈধ স্থাপনা গড়ে তোলেন। সম্প্রতি সরকারের মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নে খাস জায়গায় থাকা অবৈধ স্থাপনা সরাতে উচ্ছেদ অভিযান চালাচ্ছে জেলা প্রশাসন। কিন্তু সন্ত্রাসী চক্র উচ্ছেদ প্রক্রিয়া বানচাল করতে শনিবার রাতে জঙ্গল সলিমপুর ও আলীনগরের ৬৩ জন বাসিন্দাকে দুটি বাসে করে নিয়ে ঢাকার দিকে রওনা হয়। ঢাকায় প্রেসক্লাব কিংবা অন্য কোনো জায়গায় তাঁরা বিক্ষোভ দেখাতে যাচ্ছিলেন বলে প্রশাসন খবর পেয়েছে। খবর পেয়ে পৌর সদর এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়।

প্রসঙ্গত, সীতাকুণ্ডের জঙ্গল সলিমপুরের আলীনগর পাহাড়ে ৩ হাজার ১০০ একর সরকারি পাহাড় অবৈধ দখলমুক্ত করার লক্ষ্যে আজ রোববার সরকারের উচ্চপর্যায়ে বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে। সম্প্রতি জেলা প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযানে ওই এলাকায় প্রথম দফায় দুই শতাধিক অবৈধ স্থাপনা ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়। চার শতাধিক পরিবারের বিদ্যুতের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়।

এরই মধ্যে সেখানে অবৈধ দখলদারদের কবলে থাকা ৭০০ একর খাসজমি উদ্ধার করা হয়েছে। বিদ্যুতে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার পর আলীনগরের ৩ হাজারের বেশি বিক্ষুব্ধ নারী-পুরুষ মহাসড়কের ফৌজদারহাট এলাকায় অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল ও ভাঙচুর করেন। এ ঘটনায় উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ বাদী হয়ে সাতটি মামলা দায়ের করেন।
এ ছাড়া সরকারি সিদ্ধান্ত মেনে স্বেচ্ছায় আলীনগর ছাড়তে চাওয়া পরিবারগুলোকে প্রশাসন নিরাপদে বহির্গমনে সহযোগিতা করতে গেলে গত বৃহস্পতিবার প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ওপর আলিনগরের অবৈধ দখলদার ও সন্ত্রাসী বাহিনীরা হামলা চালায়। এতে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ও বেশ কিছু রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। দফায় দফায় চালানো এ হামলায় সীতাকুণ্ড থানার এক উপপরিদর্শকসহ (এসআই) আট পুলিশ আহত হন। এতে আলীনগরের নিরীহ বেশ কিছু বাসিন্দাসহ আরও ২২ জন আহত হন। হামলার পরদিন পুলিশ বাদী হয়ে ২৫ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা ১৪০ জনকে আসামি করা হয়।

Tag :

আবদুল্লা আল মামুন নোয়াখালীর শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক  

সীতাকুণ্ড থেকে ঢাকায় বিক্ষোভ করতে যাওয়ার সময় আলীনগরের ৬১ জন গ্রেপ্তার

প্রকাশের সময় : ১১:২৪:২৮ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১১ সেপ্টেম্বর ২০২২

সঞ্জয় চৌধুরী, সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি

চট্টগ্রামে সীতাকুণ্ডের জঙ্গল সলিমপুরে আলীনগর হতে দুটি বাসযোগে চলমান উচ্ছেদ অভিযান ঠেকাতে বিক্ষোভ সমাবেশের পরিকল্পনা নিয়ে ঢাকায় যাওয়ার পথে আলিনগরের ৬৩ জন বাসিন্দাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাঁদের বহনকারী বাস দুটি উপজেলার পৌর সদর এলাকায় গেলে ৬১ বাসিন্দাকে গ্রেপ্তার করা হয়।
এর আগে শনিবার রাত ১টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পৌর সদরের বাইপাস এলাকা থেকে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়।গতকাল রোববার দুপুরে এদের মধ্যে ২২ জনকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। বাকিদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানান, সীতাকুণ্ড থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন বণিক।
তিনি বলেন, ‘সীতাকুণ্ডের জঙ্গল সলিমপুর ও আলীনগর থেকে দুটি বাসযোগে বিক্ষোভকারীরা ঢাকার উদ্দেশে রওনা হয়েছে বলে আমরা গোপন সূত্রে জানতে পারি। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার রাত ১টার দিকে পৌর সদর বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৬৩ জনকে আটক করা হয়। পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন বণিক আরও বলেন, গ্রেপ্তারকৃতরা গত ২৩ আগস্ট উপজেলার ফৌজদারহাটে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক ছয় ঘণ্টা অবরোধ করে রাখে। এ ঘটনায় পুলিশের ওপর হামলা, গাড়ি ভাঙচুর ও হাতবোমা বিস্ফোরণ মামলার আসামি তাঁরা।

সীতাকুণ্ড উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. শাহাদাত হোসেন বলেন, পাহাড়ঘেরা দুর্গম জঙ্গল সলিমপুর সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্য হিসেবে সীতাকুণ্ডে পরিচিত। বেশ কয়েকজন গডফাদার দ্বারা নিয়ন্ত্রিত এসব সন্ত্রাসী বাহিনী এখানে সরকারি পাহাড় কেটে হাজারো অবৈধ স্থাপনা গড়ে তোলেন। সম্প্রতি সরকারের মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নে খাস জায়গায় থাকা অবৈধ স্থাপনা সরাতে উচ্ছেদ অভিযান চালাচ্ছে জেলা প্রশাসন। কিন্তু সন্ত্রাসী চক্র উচ্ছেদ প্রক্রিয়া বানচাল করতে শনিবার রাতে জঙ্গল সলিমপুর ও আলীনগরের ৬৩ জন বাসিন্দাকে দুটি বাসে করে নিয়ে ঢাকার দিকে রওনা হয়। ঢাকায় প্রেসক্লাব কিংবা অন্য কোনো জায়গায় তাঁরা বিক্ষোভ দেখাতে যাচ্ছিলেন বলে প্রশাসন খবর পেয়েছে। খবর পেয়ে পৌর সদর এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়।

প্রসঙ্গত, সীতাকুণ্ডের জঙ্গল সলিমপুরের আলীনগর পাহাড়ে ৩ হাজার ১০০ একর সরকারি পাহাড় অবৈধ দখলমুক্ত করার লক্ষ্যে আজ রোববার সরকারের উচ্চপর্যায়ে বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে। সম্প্রতি জেলা প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযানে ওই এলাকায় প্রথম দফায় দুই শতাধিক অবৈধ স্থাপনা ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়। চার শতাধিক পরিবারের বিদ্যুতের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়।

এরই মধ্যে সেখানে অবৈধ দখলদারদের কবলে থাকা ৭০০ একর খাসজমি উদ্ধার করা হয়েছে। বিদ্যুতে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার পর আলীনগরের ৩ হাজারের বেশি বিক্ষুব্ধ নারী-পুরুষ মহাসড়কের ফৌজদারহাট এলাকায় অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল ও ভাঙচুর করেন। এ ঘটনায় উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ বাদী হয়ে সাতটি মামলা দায়ের করেন।
এ ছাড়া সরকারি সিদ্ধান্ত মেনে স্বেচ্ছায় আলীনগর ছাড়তে চাওয়া পরিবারগুলোকে প্রশাসন নিরাপদে বহির্গমনে সহযোগিতা করতে গেলে গত বৃহস্পতিবার প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ওপর আলিনগরের অবৈধ দখলদার ও সন্ত্রাসী বাহিনীরা হামলা চালায়। এতে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ও বেশ কিছু রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। দফায় দফায় চালানো এ হামলায় সীতাকুণ্ড থানার এক উপপরিদর্শকসহ (এসআই) আট পুলিশ আহত হন। এতে আলীনগরের নিরীহ বেশ কিছু বাসিন্দাসহ আরও ২২ জন আহত হন। হামলার পরদিন পুলিশ বাদী হয়ে ২৫ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা ১৪০ জনকে আসামি করা হয়।