ঢাকা ১০:০২ অপরাহ্ন, বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ২০ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

‘শাকিবকে নিয়ে ভেতরে ভেতরে অনেক কিছু হচ্ছে, বলতে চাই না’

সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিতে ক’দিন ধরেই অস্থির একটা পরিবেশ বিরাজ করছে। ভেতরে ভেতরে জোরালো আলোচনা- ঢাকাই সিনেমার সুপারস্টার শাকিব খানের সময়টা ভালো যাচ্ছে না। তার অনেক কাছের মানুষই সরে যাচ্ছেন দূরে। শুধু তাই নয়, দূরে গিয়ে তারা এই চিত্রনায়ককে নিয়ে নানা সমালোচনাও করছেন।বিষয়টি সিনেমা ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে জড়িত সবারই কমবেশি জানা। তবুও যেন সবাই নিশ্চুপ।

তবে এবার এ বিষয়ে মুখ খুললেন সফল নির্মাতা মালেক আফসারী। তার ভাষ্য, ‘যার কোনো বন্ধু নাই, তার কোনো শত্রু নাই। এটা কিন্তু আমার কথা না, মুরব্বিরা বলে। বন্ধু থাকা মানে শত্রু তৈরি হওয়া! আমার দৃষ্টিতে শাকিব খানের বন্ধু একমাত্র শাকিব ভক্তরাই। কিন্তু সিনেমার ভেতরে এই মূহুর্তে তার কোনো বন্ধু আছে কিনা আমার জানা নেই। অনেক আপনজন পর হয়ে গেছে।’

২০১৯ সালের পর থেকে এসব ঘটেছে জানিয়ে এই নির্মাতা বলেন, ‘আমি যতদিন কাছাকাছি ছিলাম আর যা দেখেছি শাকিব খান, ইকবাল সাহেব (শাকিব খানের বন্ধু প্রযোজক মো. ইকবাল), বুবলী ও তার টিম-খুব সুন্দর ছিল। আমাদের কিং খান মানসিকভাবে ভালো নেই। কোনো একটা দুশ্চিন্তায় আছে। উনার খুব কাছের মানুষ খসরু ভাই (প্রযোজক খোরশেদ আলম খসরু)। কিন্তু ক’দিন আগে আমরা কি দেখলাম। “কিল হিম” সিনেমার মহরতে হওয়ার আগে আগে উনি সবার সামনে বলে বসলেন, “আমার কিন্তু গলুই ছবির টাকা উঠে নাই।” এটা নিয়ে অনেক কথা উঠেছে তখন। তার এমন কথায় সবাই কষ্ট পেয়েছে।’

মালেক আফসারী বলেন, ‘আমি শাকিব খানের অবস্থানে থাকলে একটা ফোন দিতাম ইকবাল সাহেবকে। বলতাম, “ভাইজান কই আপনে? বাসায় আসেন আপনার সঙ্গে কথা বলি।” সামনা-সামনি কথা বলতাম, “কি সমস্যা ভাইজান আপনার? আপনি আমার বন্ধু তো। বন্ধুত্ব রাখতে চান না শেষ! তবে এগুলো কি বলেন।” মিটমাট করতামই। কারণ একটা কথায় বলে, সবচেয়ে কাছের মানুষই বেশি ক্ষতি করতে পারে। সবচেয়ে কাছের মানুষই তো ইকবাল ছিল আপনার। সে পর হয়ে গেল। খসরু সাহেব পর হয়েছে কিনা জানি না। কিন্তু আমার ধারণা, কথাবার্তা শুনে মনে হয় অনেকেই পর হয়ে গেছে।’

দুই নায়িকার দ্বন্দ্বের প্রসঙ্গে টেনে এই নির্মাতা বলেন, ‘কোথাকার কোন দুই নায়িকা গণ্ডগোল করেছে সেখানে শাকিব খানকে জড়াচ্ছেন অনেকে। ভেতরে ভেতরে অনেক কিছু হচ্ছে। আমি এগুলো খুলে বলতে চাই না।’

যুক্তরাষ্ট্রের প্রসঙ্গ টেনে মালেক আফসারী বলেন, ‘৯ মাস আমেরিকায় থেকে আসল একটা গ্রিন কার্ডের আশায়। কিন্তু সাধারণ বিচারে, এমন একটা গ্রিন কার্ডের স্বপ্ন দেখতে পারে মফস্বলের একটা যুবক। শাকিব খান কেন করল? শাকিব কি বুঝে না, নিশ্চয়ই বোঝে। হয়তো ঢাকার পরিবেশ তার জন্য ভালো ছিল না।’

সবশেষে শাকিবের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আপনি চুপ থাকেন কেন? মাঝেমধ্যে মুখ খুলবেন। আপনার ভক্তরা কার জন্য প্রতিবাদ করছে? আপনার জন্য। তাই মাঝে মধ্যে আপনিও প্রতিবাদ করবেন।’

Tag :

পঞ্চগড়ে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হলো দূর্গা পূজা

‘শাকিবকে নিয়ে ভেতরে ভেতরে অনেক কিছু হচ্ছে, বলতে চাই না’

প্রকাশের সময় : ০৯:১৩:৩৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১১ সেপ্টেম্বর ২০২২

সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিতে ক’দিন ধরেই অস্থির একটা পরিবেশ বিরাজ করছে। ভেতরে ভেতরে জোরালো আলোচনা- ঢাকাই সিনেমার সুপারস্টার শাকিব খানের সময়টা ভালো যাচ্ছে না। তার অনেক কাছের মানুষই সরে যাচ্ছেন দূরে। শুধু তাই নয়, দূরে গিয়ে তারা এই চিত্রনায়ককে নিয়ে নানা সমালোচনাও করছেন।বিষয়টি সিনেমা ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে জড়িত সবারই কমবেশি জানা। তবুও যেন সবাই নিশ্চুপ।

তবে এবার এ বিষয়ে মুখ খুললেন সফল নির্মাতা মালেক আফসারী। তার ভাষ্য, ‘যার কোনো বন্ধু নাই, তার কোনো শত্রু নাই। এটা কিন্তু আমার কথা না, মুরব্বিরা বলে। বন্ধু থাকা মানে শত্রু তৈরি হওয়া! আমার দৃষ্টিতে শাকিব খানের বন্ধু একমাত্র শাকিব ভক্তরাই। কিন্তু সিনেমার ভেতরে এই মূহুর্তে তার কোনো বন্ধু আছে কিনা আমার জানা নেই। অনেক আপনজন পর হয়ে গেছে।’

২০১৯ সালের পর থেকে এসব ঘটেছে জানিয়ে এই নির্মাতা বলেন, ‘আমি যতদিন কাছাকাছি ছিলাম আর যা দেখেছি শাকিব খান, ইকবাল সাহেব (শাকিব খানের বন্ধু প্রযোজক মো. ইকবাল), বুবলী ও তার টিম-খুব সুন্দর ছিল। আমাদের কিং খান মানসিকভাবে ভালো নেই। কোনো একটা দুশ্চিন্তায় আছে। উনার খুব কাছের মানুষ খসরু ভাই (প্রযোজক খোরশেদ আলম খসরু)। কিন্তু ক’দিন আগে আমরা কি দেখলাম। “কিল হিম” সিনেমার মহরতে হওয়ার আগে আগে উনি সবার সামনে বলে বসলেন, “আমার কিন্তু গলুই ছবির টাকা উঠে নাই।” এটা নিয়ে অনেক কথা উঠেছে তখন। তার এমন কথায় সবাই কষ্ট পেয়েছে।’

মালেক আফসারী বলেন, ‘আমি শাকিব খানের অবস্থানে থাকলে একটা ফোন দিতাম ইকবাল সাহেবকে। বলতাম, “ভাইজান কই আপনে? বাসায় আসেন আপনার সঙ্গে কথা বলি।” সামনা-সামনি কথা বলতাম, “কি সমস্যা ভাইজান আপনার? আপনি আমার বন্ধু তো। বন্ধুত্ব রাখতে চান না শেষ! তবে এগুলো কি বলেন।” মিটমাট করতামই। কারণ একটা কথায় বলে, সবচেয়ে কাছের মানুষই বেশি ক্ষতি করতে পারে। সবচেয়ে কাছের মানুষই তো ইকবাল ছিল আপনার। সে পর হয়ে গেল। খসরু সাহেব পর হয়েছে কিনা জানি না। কিন্তু আমার ধারণা, কথাবার্তা শুনে মনে হয় অনেকেই পর হয়ে গেছে।’

দুই নায়িকার দ্বন্দ্বের প্রসঙ্গে টেনে এই নির্মাতা বলেন, ‘কোথাকার কোন দুই নায়িকা গণ্ডগোল করেছে সেখানে শাকিব খানকে জড়াচ্ছেন অনেকে। ভেতরে ভেতরে অনেক কিছু হচ্ছে। আমি এগুলো খুলে বলতে চাই না।’

যুক্তরাষ্ট্রের প্রসঙ্গ টেনে মালেক আফসারী বলেন, ‘৯ মাস আমেরিকায় থেকে আসল একটা গ্রিন কার্ডের আশায়। কিন্তু সাধারণ বিচারে, এমন একটা গ্রিন কার্ডের স্বপ্ন দেখতে পারে মফস্বলের একটা যুবক। শাকিব খান কেন করল? শাকিব কি বুঝে না, নিশ্চয়ই বোঝে। হয়তো ঢাকার পরিবেশ তার জন্য ভালো ছিল না।’

সবশেষে শাকিবের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আপনি চুপ থাকেন কেন? মাঝেমধ্যে মুখ খুলবেন। আপনার ভক্তরা কার জন্য প্রতিবাদ করছে? আপনার জন্য। তাই মাঝে মধ্যে আপনিও প্রতিবাদ করবেন।’