ঢাকা ০৩:০৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

পজিটিভ বিষয়ই ভাগ করে নিতে চাই: মিথিলা

চাকরির সুবাদে বিশ্বের নানা প্রান্তে যেতে হয় তাকে। সেখানকার নৈসর্গিক সৌন্দর্যের ছবি ফেসবুকেও পোস্ট করেন মডেল ও অভিনেত্রী মিথিলা। কিন্তু আনন্দের মধ্যেও যে কষ্ট আছে তা সবার অজানাই থেকে যায়।

মিথিলা জানান, গত দুই সপ্তাহ তিনি উগান্ডায় বিভিন্ন রকম ট্রেনিং, ওয়ার্কশপ, ফিল্ড ভিজিট শেষ করে সেখান থেকে ওয়েস্ট আফ্রিকার সিয়েরা লিওনে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে একটা আর্লি চাইল্ডহুড ডেভেলপমেন্ট বিষয়ক কর্মশালার আয়োজন করতে আসেন তিনি। কর্মশালা শেষ করেই শুক্রবার রাতেই সিয়েরা লিওন থেকে ঢাকায় যাওয়ার ফ্লাইট ছিল।

মিথিলা কষ্টের কথা বলতে গিয়ে বলেন, শুক্রবার বিকাল থেকেই প্রচণ্ড ঝড়বৃষ্টি। সিয়েরা লিওনের রাজধানী, ফ্রি টাউন ও আটলান্টিক মহাসাগরের তীরে। ঝড়বৃষ্টির কারণে একটু বেশিই চিন্তিত ছিলাম কারণ সমুদ্র যেমন ভালো লাগে, তেমনি উত্তাল সমুদ্র ভয়ও লাগে। সাত ঘণ্টার মতো জার্নি করে কাসাবলঙ্কায় পৌঁছাই। পরবর্তী সময়ে টার্কিশ এয়ারলাইন্সে চড়ে অনেক ঝক্কিঝামেলা পেরিয়ে ঢাকায় আসি।

মিথিলার ভাষ্য, গত তিন সপ্তাহ ধরে মেয়েকে বাড়িতে রেখে, হাজার হাজার মাইল দূরে নানা দেশে গিয়ে বিভিন্ন জনগোষ্ঠীর সঙ্গে কাজ করা, সেটা নিতান্তই জীবিকার তাগিদে; আমোদ-ফুর্তির জন্য নয়। সবসময় সুন্দর ছবি আর ভালো কথাগুলো শেয়ার করি কারণ যা কিছু ভালো আর পজিটিভ বিষয়ই ভাগ করে নিতে চাই। একজন আন্তর্জাতিক উন্নয়নকর্মী হিসেবে আমার কাজ নিয়ে ভীষণ গর্ববোধ করি। তাই পেছনের কঠিন সময়গুলোকেও অভিজ্ঞতা হিসেবেই দেখি।

Tag :

পুলিশের হাতে কামড় দিয়ে হ্যান্ডকাপসহ পালালো আসামি

পজিটিভ বিষয়ই ভাগ করে নিতে চাই: মিথিলা

প্রকাশের সময় : ০৯:১৪:০৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১১ সেপ্টেম্বর ২০২২

চাকরির সুবাদে বিশ্বের নানা প্রান্তে যেতে হয় তাকে। সেখানকার নৈসর্গিক সৌন্দর্যের ছবি ফেসবুকেও পোস্ট করেন মডেল ও অভিনেত্রী মিথিলা। কিন্তু আনন্দের মধ্যেও যে কষ্ট আছে তা সবার অজানাই থেকে যায়।

মিথিলা জানান, গত দুই সপ্তাহ তিনি উগান্ডায় বিভিন্ন রকম ট্রেনিং, ওয়ার্কশপ, ফিল্ড ভিজিট শেষ করে সেখান থেকে ওয়েস্ট আফ্রিকার সিয়েরা লিওনে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে একটা আর্লি চাইল্ডহুড ডেভেলপমেন্ট বিষয়ক কর্মশালার আয়োজন করতে আসেন তিনি। কর্মশালা শেষ করেই শুক্রবার রাতেই সিয়েরা লিওন থেকে ঢাকায় যাওয়ার ফ্লাইট ছিল।

মিথিলা কষ্টের কথা বলতে গিয়ে বলেন, শুক্রবার বিকাল থেকেই প্রচণ্ড ঝড়বৃষ্টি। সিয়েরা লিওনের রাজধানী, ফ্রি টাউন ও আটলান্টিক মহাসাগরের তীরে। ঝড়বৃষ্টির কারণে একটু বেশিই চিন্তিত ছিলাম কারণ সমুদ্র যেমন ভালো লাগে, তেমনি উত্তাল সমুদ্র ভয়ও লাগে। সাত ঘণ্টার মতো জার্নি করে কাসাবলঙ্কায় পৌঁছাই। পরবর্তী সময়ে টার্কিশ এয়ারলাইন্সে চড়ে অনেক ঝক্কিঝামেলা পেরিয়ে ঢাকায় আসি।

মিথিলার ভাষ্য, গত তিন সপ্তাহ ধরে মেয়েকে বাড়িতে রেখে, হাজার হাজার মাইল দূরে নানা দেশে গিয়ে বিভিন্ন জনগোষ্ঠীর সঙ্গে কাজ করা, সেটা নিতান্তই জীবিকার তাগিদে; আমোদ-ফুর্তির জন্য নয়। সবসময় সুন্দর ছবি আর ভালো কথাগুলো শেয়ার করি কারণ যা কিছু ভালো আর পজিটিভ বিষয়ই ভাগ করে নিতে চাই। একজন আন্তর্জাতিক উন্নয়নকর্মী হিসেবে আমার কাজ নিয়ে ভীষণ গর্ববোধ করি। তাই পেছনের কঠিন সময়গুলোকেও অভিজ্ঞতা হিসেবেই দেখি।