ঢাকা ১১:৫১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

নায়িকা থেকে খলনায়িকারা

বাংলা সিনেমায় খল চরিত্রে পুরুষদের একচ্ছত্র আধিপত্য থাকলেও এই চরিত্রে সফলতা দেখিয়েছেন নারীরাও। প্রয়াত অভিনেত্রী মায়া হাজারীকা, রীনা আকরাম, রানী সরকার, রওশন জামিল ও সুমিতা দেবীর পথ ধরে পরবর্তীতে চলচ্চিত্রে খল চরিত্রে নিজেদের মেলে ধরেন দুলারী, রীনা খান ও শবনম পারভীন। নায়িকা হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে এদের চলচ্চিত্রে অভিষেক হলেও নেতিবাচক চরিত্রে তারা দর্শকদের হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছেন। খল চরিত্র তাদের ক্যারিয়ারে এনেছে সফলতা। অভিনয়ের ক্যানভাসে এই ধরনের চরিত্রের অনেক গুরুত্ব। চ্যালেঞ্জিংও বটে। তারপরেও অনেক অভিনেত্রী চরিত্রের বৈচিত্র্য আনতে খল চরিত্রের প্রতি আগ্রহ প্রকাশ করেন। রূপের ঝলকানি আর অভিনয় দিয়ে গল্পের নায়িকা হয়ে এতদিন দর্শক মাতালেও বড় পর্দায় খল চরিত্রে নাম লেখিয়েছেন সময়ের আলোচিত কয়েকজন অভিনেত্রী।

‘মনপুরা’ খ্যাত পরিচালক গিয়াসউদ্দিন সেলিমের ‘কাজল রেখা’ চলচ্চিত্রের জন্য প্রথমবারের মতো খল চরিত্রে প্রথমবারের মতো নাম লেখিয়েছেন অভিনেত্রী রাফিয়াত রশীদ মিথিলা। ‘কাজল রেখা’য় কঙ্কন দাসীর চরিত্রে দেখা যাবে এই অভিনেত্রীকে। নায়িকা থেকে হঠাৎ খলনায়িকা হওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এমন চরিত্রে আগে কখনো কাজ করিনি। এটা ১৬০০ খ্রিষ্টাব্দের রূপকথা। যেখানে কঙ্কন দাসী অত্যন্ত পাওয়ারফুল এক চরিত্র। খুবই বুদ্ধিমতী, কিছুটা উচ্চাকাঙ্ক্ষী। চরিত্রটি পর্দায় ফুটিয়ে তোলার সর্বোচ্চ চেষ্টা থাকবে।’ ছোট পর্দার অভিনেত্রী রোজী সেলিম। চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেন। এই অভিনেত্রীকে সাধারণত ইতিবাচক চরিত্রেই দর্শকরা দেখে আসছেন। তবে ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো খল চরিত্রে নিজেকে উপস্থাপন করেছেন রায়হান রাফি পরিচালিত সময়ের আলোচিত ‘পরান’ চলচ্চিত্রে। তার ভাষ্য, ‘নেতিবাচক চরিত্রে কাজ করার কারণ হলো এখানে নিজেকে ভাঙার সুযোগ পেয়েছি।’ একই চলচ্চিত্রে ‘অনন্যা’ চরিত্রে অভিনয় করেছেন চিত্রনায়িকা বিদ্যা সিনহা মীম। তাকে কেন্দ্র করেই এগিয়েছে গল্প। ‘অনন্যা’ চরিত্রটিকে রীতিমতো গালমন্দ করছে দর্শক। কারণ ২০১৯ সালের বরগুনার বহুল আলোচিত হত্যা ঘটনার ছায়া অবলম্বনে নির্মিত হয়েছে এই চলচ্চিত্র। আর সেই আলোচিত ঘটনার আয়েশা সিদ্দীকা মিন্নির চরিত্রে দেখা গেছে মীমকে।

ছোট ও বড় পর্দার অভিনেত্রী দীপা খন্দকার খলনায়িকা হয়ে আসছেন ‘রিভেঞ্জ’ চলচ্চিত্রে। এটি তার তৃতীয় চলচ্চিত্র। এটি পরিচালনা করছেন মোহম্মদ ইকবাল। আগের চলচ্চিত্রগুলোতে দীপা নায়কের বোন ও মায়ের মতো সহনায়িকার ভূমিকায় অভিনয় করলেও খল চরিত্রে এই প্রথম। এই চলচ্চিত্রটিতে তার স্বামীর ভূমিকায় থাকছেন আরেক খল অভিনেতা মিশা সওদাগর। দীপা বলেন, ‘সব সময় চেয়েছি, ভিন্ন কোনো গল্প বা চরিত্রে অভিনয় করব। তেমনই একটি গল্প ও চরিত্র পেয়েছি। ছেলেরাই মূলত চলচ্চিত্রে এ ধরনের চরিত্র আগে করেছেন। এটা আমার জন্য চ্যালেঞ্জিং।’

ঢাকাই চলচ্চিত্রের আলোচিত নায়িকা মাহিয়া মাহী ২০২০ সালে খলনায়িকার চরিত্রের জন্য চুক্তিবদ্ধ হন ‘বস্নাড’ নামের একটি চলচ্চিত্রে। ওয়াজেদ আলী সুমন পরিচালিত এ চলচ্চিত্রটি নিয়ে মাহী বলেন, ‘এখানে আমাকে দ্বৈত চরিত্রে দেখা যাবে। একটি নায়িকার চরিত্র, অন্যটি খলনায়িকার। অনেক দিন ধরেই ইচ্ছে ছিল খল চরিত্রে অভিনয়ের। অবশেষে সেই সুযোগটা ধরা দেয়।’

ফখরুল আরেফিন খান পরিচালিত ‘গন্ডি’ চলচ্চিত্রে প্রথমবারের মতো নেতিবাচক চরিত্রে অভিনয় করেন অভিনেত্রী অপর্ণা ঘোষ। তিনি বলেন, ‘এখানে আমি নেতিবাচক চরিত্রে অভিনয় করেছি। এর আগে এ ধরনের চরিত্রে অভিনয় চলচ্চিত্রে তো নয়ই নাটকেও করেছি কি না মনে পড়ে না। কাজটি করে খুব ভালো লেগেছে।’ ‘গন্ডি’ দেশের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তিপায় ২০২০ সালের ফেব্রম্নয়ারিতে। এতে অপর্ণা ছাড়াও অভিনয় করেছেন বাংলাদেশের গুণী অভিনেত্রী সুবর্ণা মুস্তাফা ও কলকতার বরেণ্য অভিনেতা সব্যসাচী চক্রবর্তী। ২০১৮ সালে মিজানুর রহমান মিজান পরিচালিত ‘তোলপাড়’ চলচ্চিত্রে খল চরিত্রের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয় একসময়ের দাপুটে চিত্রনায়িকা মুনমুন। সেই সময় তিনি বলেন, ‘একদম মারদাঙ্গা সিনেমা। যেখানে আন্ডারওয়ার্ল্ডের ডন হিসেবে দেখা যাবে আমাকে।’ এর আগে এই মুনমুন একই পরিচালকের ‘রাগী’ চলচ্চিত্রে খল চরিত্রে অভিনয় করেন।

Tag :

আবদুল্লা আল মামুন নোয়াখালীর শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক  

নায়িকা থেকে খলনায়িকারা

প্রকাশের সময় : ০৮:৫৯:৪৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১১ সেপ্টেম্বর ২০২২

বাংলা সিনেমায় খল চরিত্রে পুরুষদের একচ্ছত্র আধিপত্য থাকলেও এই চরিত্রে সফলতা দেখিয়েছেন নারীরাও। প্রয়াত অভিনেত্রী মায়া হাজারীকা, রীনা আকরাম, রানী সরকার, রওশন জামিল ও সুমিতা দেবীর পথ ধরে পরবর্তীতে চলচ্চিত্রে খল চরিত্রে নিজেদের মেলে ধরেন দুলারী, রীনা খান ও শবনম পারভীন। নায়িকা হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে এদের চলচ্চিত্রে অভিষেক হলেও নেতিবাচক চরিত্রে তারা দর্শকদের হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছেন। খল চরিত্র তাদের ক্যারিয়ারে এনেছে সফলতা। অভিনয়ের ক্যানভাসে এই ধরনের চরিত্রের অনেক গুরুত্ব। চ্যালেঞ্জিংও বটে। তারপরেও অনেক অভিনেত্রী চরিত্রের বৈচিত্র্য আনতে খল চরিত্রের প্রতি আগ্রহ প্রকাশ করেন। রূপের ঝলকানি আর অভিনয় দিয়ে গল্পের নায়িকা হয়ে এতদিন দর্শক মাতালেও বড় পর্দায় খল চরিত্রে নাম লেখিয়েছেন সময়ের আলোচিত কয়েকজন অভিনেত্রী।

‘মনপুরা’ খ্যাত পরিচালক গিয়াসউদ্দিন সেলিমের ‘কাজল রেখা’ চলচ্চিত্রের জন্য প্রথমবারের মতো খল চরিত্রে প্রথমবারের মতো নাম লেখিয়েছেন অভিনেত্রী রাফিয়াত রশীদ মিথিলা। ‘কাজল রেখা’য় কঙ্কন দাসীর চরিত্রে দেখা যাবে এই অভিনেত্রীকে। নায়িকা থেকে হঠাৎ খলনায়িকা হওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এমন চরিত্রে আগে কখনো কাজ করিনি। এটা ১৬০০ খ্রিষ্টাব্দের রূপকথা। যেখানে কঙ্কন দাসী অত্যন্ত পাওয়ারফুল এক চরিত্র। খুবই বুদ্ধিমতী, কিছুটা উচ্চাকাঙ্ক্ষী। চরিত্রটি পর্দায় ফুটিয়ে তোলার সর্বোচ্চ চেষ্টা থাকবে।’ ছোট পর্দার অভিনেত্রী রোজী সেলিম। চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেন। এই অভিনেত্রীকে সাধারণত ইতিবাচক চরিত্রেই দর্শকরা দেখে আসছেন। তবে ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো খল চরিত্রে নিজেকে উপস্থাপন করেছেন রায়হান রাফি পরিচালিত সময়ের আলোচিত ‘পরান’ চলচ্চিত্রে। তার ভাষ্য, ‘নেতিবাচক চরিত্রে কাজ করার কারণ হলো এখানে নিজেকে ভাঙার সুযোগ পেয়েছি।’ একই চলচ্চিত্রে ‘অনন্যা’ চরিত্রে অভিনয় করেছেন চিত্রনায়িকা বিদ্যা সিনহা মীম। তাকে কেন্দ্র করেই এগিয়েছে গল্প। ‘অনন্যা’ চরিত্রটিকে রীতিমতো গালমন্দ করছে দর্শক। কারণ ২০১৯ সালের বরগুনার বহুল আলোচিত হত্যা ঘটনার ছায়া অবলম্বনে নির্মিত হয়েছে এই চলচ্চিত্র। আর সেই আলোচিত ঘটনার আয়েশা সিদ্দীকা মিন্নির চরিত্রে দেখা গেছে মীমকে।

ছোট ও বড় পর্দার অভিনেত্রী দীপা খন্দকার খলনায়িকা হয়ে আসছেন ‘রিভেঞ্জ’ চলচ্চিত্রে। এটি তার তৃতীয় চলচ্চিত্র। এটি পরিচালনা করছেন মোহম্মদ ইকবাল। আগের চলচ্চিত্রগুলোতে দীপা নায়কের বোন ও মায়ের মতো সহনায়িকার ভূমিকায় অভিনয় করলেও খল চরিত্রে এই প্রথম। এই চলচ্চিত্রটিতে তার স্বামীর ভূমিকায় থাকছেন আরেক খল অভিনেতা মিশা সওদাগর। দীপা বলেন, ‘সব সময় চেয়েছি, ভিন্ন কোনো গল্প বা চরিত্রে অভিনয় করব। তেমনই একটি গল্প ও চরিত্র পেয়েছি। ছেলেরাই মূলত চলচ্চিত্রে এ ধরনের চরিত্র আগে করেছেন। এটা আমার জন্য চ্যালেঞ্জিং।’

ঢাকাই চলচ্চিত্রের আলোচিত নায়িকা মাহিয়া মাহী ২০২০ সালে খলনায়িকার চরিত্রের জন্য চুক্তিবদ্ধ হন ‘বস্নাড’ নামের একটি চলচ্চিত্রে। ওয়াজেদ আলী সুমন পরিচালিত এ চলচ্চিত্রটি নিয়ে মাহী বলেন, ‘এখানে আমাকে দ্বৈত চরিত্রে দেখা যাবে। একটি নায়িকার চরিত্র, অন্যটি খলনায়িকার। অনেক দিন ধরেই ইচ্ছে ছিল খল চরিত্রে অভিনয়ের। অবশেষে সেই সুযোগটা ধরা দেয়।’

ফখরুল আরেফিন খান পরিচালিত ‘গন্ডি’ চলচ্চিত্রে প্রথমবারের মতো নেতিবাচক চরিত্রে অভিনয় করেন অভিনেত্রী অপর্ণা ঘোষ। তিনি বলেন, ‘এখানে আমি নেতিবাচক চরিত্রে অভিনয় করেছি। এর আগে এ ধরনের চরিত্রে অভিনয় চলচ্চিত্রে তো নয়ই নাটকেও করেছি কি না মনে পড়ে না। কাজটি করে খুব ভালো লেগেছে।’ ‘গন্ডি’ দেশের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তিপায় ২০২০ সালের ফেব্রম্নয়ারিতে। এতে অপর্ণা ছাড়াও অভিনয় করেছেন বাংলাদেশের গুণী অভিনেত্রী সুবর্ণা মুস্তাফা ও কলকতার বরেণ্য অভিনেতা সব্যসাচী চক্রবর্তী। ২০১৮ সালে মিজানুর রহমান মিজান পরিচালিত ‘তোলপাড়’ চলচ্চিত্রে খল চরিত্রের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয় একসময়ের দাপুটে চিত্রনায়িকা মুনমুন। সেই সময় তিনি বলেন, ‘একদম মারদাঙ্গা সিনেমা। যেখানে আন্ডারওয়ার্ল্ডের ডন হিসেবে দেখা যাবে আমাকে।’ এর আগে এই মুনমুন একই পরিচালকের ‘রাগী’ চলচ্চিত্রে খল চরিত্রে অভিনয় করেন।