ঢাকা ০৭:২৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মেসি একাই তিন দেশের সমান

‘মেসি একাই তিন দেশের সমান’- না আচমকা লিওনেল মেসি আকার-আকৃতিতে বেঢপ ফুলে যাননি। অবশ্য বদলালেও মেসি তিন দেশ দূরে থাক, একজন মানুষের চেয়েও বেশি হতে পারবেন না।

তবে মেসি কীভাবে তিন দেশের সমান হলেন? বিশ্ব ফুটবলের অন্যতম মহাতারকা তার ফুটবলীয় কীর্তিতে তিনটি দেশের সমান হয়েছেন। বিশ্ব ফুটবলের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ পুরস্কার ব্যালন ডি’অর জেতার ক্ষেত্রে মেসি একাই তিনটি ভিন্ন দেশের সমান হয়েছেন।

বিশ্ব ফুটবলের ইতিহাসে ব্যালন ডি’অর জেতার ক্ষেত্রে মেসিই একমাত্র ফুটবলার যিনি সপ্তম স্বর্গে স্পর্শ করতে পেরেছেন। এই আর্জেন্টাইন প্রথম ফুটবলার হিসেবে জিতেছেন সাতটি ব্যালন ডি’অর।

একটি নির্দিষ্ট দেশের ফুটবলারদের মোট ব্যালন ডি’অর জেতার ক্ষেত্রেও এই ‘৭’-ই সর্বোচ্চ। দেশ হিসেবে জার্মানি, নেদারল্যান্ডস, পর্তুগাল এবং আর্জেন্টিনার ফুটবলাররা ৭টি করে ব্যালন ডি’অর জিতেছে। যেখানে আর্জেন্টিনার পক্ষে মেসিই একা জিতেছেন ৭টির সবকটি।

অন্য দেশের মধ্যে জার্মানির ফুটবলাররা ৭টি ব্যালন ডি’অর জিতেছেন ৫জন মিলে। দেশটির পক্ষে ফ্রাঞ্জ বেকেনবাওয়ার, কার্ল হেইঞ্জ রুবেনিজ্ঞে, গার্ড মুলার, লোথার ম্যাথিউজ, ম্যাথিয়াস স্যামার জিতেছেন ব্যালন ডি’অর।

নেদারল্যান্ডস এবং পর্তুগালের তিনজন করে ফুটবলার মিলে জিতেছেন ৭টি করে ব্যালন ডি’অর। এরমধ্যে পর্তুগালের ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো একাই জিতেছেন ৫টি। পর্তুগালের অন্য দুটি ব্যালন জিতেছেন ইউসেবিও এবং লুইস ফিগো।

এছাড়াও নেদারল্যান্ডসের পক্ষে ইয়োহান ক্রুইফ, রুদ খুলিত এবং মার্কো ভ্যান বাস্তেন তিনজন মিলে জিতেছেন ৭টি ব্যালন ডি’অর। অন্য দেশগুলোর মধ্যে ফ্রান্সের ৪ ফুটবলার মিলে মর্যাদাপূর্ণ এই পুরস্কারটি জিতেছে মোট ৬বার।

এছাড়াও ইতালি, ব্রাজিল এবং ইংল্যান্ডের ফুটবলাররা ৫ বার করে জিতেছেন ব্যালন ডি’অরের পুরস্কার। ফুটবল বিশ্বের অন্যতম শক্তিধর সাবেক দেশ সোভিয়েত ইউনিয়নের ফুটবলাররা জিতেছেন ৩টি ব্যালন ডি’অর। সমান ৩টি জিতেছে স্পেনের ফুটবলাররা। যার দুটি কিংবদন্তি আলফ্রেডো ডি স্টেফানো এবং অন্য নামটি চমক জাগানিয়া, লুইস সুয়ারেজ।

Tag :
জনপ্রিয়

রসিক নির্বাচন ; আ’লীগের মেয়র প্রার্থী ডালিয়ার গণসংযোগ অনুষ্ঠিত

মেসি একাই তিন দেশের সমান

প্রকাশের সময় : ০৩:৪৮:২৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ১০ সেপ্টেম্বর ২০২২

‘মেসি একাই তিন দেশের সমান’- না আচমকা লিওনেল মেসি আকার-আকৃতিতে বেঢপ ফুলে যাননি। অবশ্য বদলালেও মেসি তিন দেশ দূরে থাক, একজন মানুষের চেয়েও বেশি হতে পারবেন না।

তবে মেসি কীভাবে তিন দেশের সমান হলেন? বিশ্ব ফুটবলের অন্যতম মহাতারকা তার ফুটবলীয় কীর্তিতে তিনটি দেশের সমান হয়েছেন। বিশ্ব ফুটবলের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ পুরস্কার ব্যালন ডি’অর জেতার ক্ষেত্রে মেসি একাই তিনটি ভিন্ন দেশের সমান হয়েছেন।

বিশ্ব ফুটবলের ইতিহাসে ব্যালন ডি’অর জেতার ক্ষেত্রে মেসিই একমাত্র ফুটবলার যিনি সপ্তম স্বর্গে স্পর্শ করতে পেরেছেন। এই আর্জেন্টাইন প্রথম ফুটবলার হিসেবে জিতেছেন সাতটি ব্যালন ডি’অর।

একটি নির্দিষ্ট দেশের ফুটবলারদের মোট ব্যালন ডি’অর জেতার ক্ষেত্রেও এই ‘৭’-ই সর্বোচ্চ। দেশ হিসেবে জার্মানি, নেদারল্যান্ডস, পর্তুগাল এবং আর্জেন্টিনার ফুটবলাররা ৭টি করে ব্যালন ডি’অর জিতেছে। যেখানে আর্জেন্টিনার পক্ষে মেসিই একা জিতেছেন ৭টির সবকটি।

অন্য দেশের মধ্যে জার্মানির ফুটবলাররা ৭টি ব্যালন ডি’অর জিতেছেন ৫জন মিলে। দেশটির পক্ষে ফ্রাঞ্জ বেকেনবাওয়ার, কার্ল হেইঞ্জ রুবেনিজ্ঞে, গার্ড মুলার, লোথার ম্যাথিউজ, ম্যাথিয়াস স্যামার জিতেছেন ব্যালন ডি’অর।

নেদারল্যান্ডস এবং পর্তুগালের তিনজন করে ফুটবলার মিলে জিতেছেন ৭টি করে ব্যালন ডি’অর। এরমধ্যে পর্তুগালের ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো একাই জিতেছেন ৫টি। পর্তুগালের অন্য দুটি ব্যালন জিতেছেন ইউসেবিও এবং লুইস ফিগো।

এছাড়াও নেদারল্যান্ডসের পক্ষে ইয়োহান ক্রুইফ, রুদ খুলিত এবং মার্কো ভ্যান বাস্তেন তিনজন মিলে জিতেছেন ৭টি ব্যালন ডি’অর। অন্য দেশগুলোর মধ্যে ফ্রান্সের ৪ ফুটবলার মিলে মর্যাদাপূর্ণ এই পুরস্কারটি জিতেছে মোট ৬বার।

এছাড়াও ইতালি, ব্রাজিল এবং ইংল্যান্ডের ফুটবলাররা ৫ বার করে জিতেছেন ব্যালন ডি’অরের পুরস্কার। ফুটবল বিশ্বের অন্যতম শক্তিধর সাবেক দেশ সোভিয়েত ইউনিয়নের ফুটবলাররা জিতেছেন ৩টি ব্যালন ডি’অর। সমান ৩টি জিতেছে স্পেনের ফুটবলাররা। যার দুটি কিংবদন্তি আলফ্রেডো ডি স্টেফানো এবং অন্য নামটি চমক জাগানিয়া, লুইস সুয়ারেজ।