ঢাকা ০৪:০০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

যাদুবিদ্যার জনক! শফিউল আলমের পথচলা

বিচিত্রধর্মী নানান হাস্যরসাত্নক ভিডিওর মাধ্যমে দর্শকদের বিনোদন দিয়ে যাচ্ছেন শফিউল আলম।সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি যাদুবিদ্যার জনক নামে সর্বাধিক পরিচিত।

শফিউল “যাদুবিদ্যার ডেইলি ব্লগ” শিরোনামে ভিডিও বানিয়ে থাকেন।তার এই শিরোনামের জন্য সবাই তাকে যাদুবিদ্যার জনক বলে থাকেন।তিনি নিছক মজার ছলে শিরোনামে যাদুবিদ্যার জনক শব্দটি ব্যবহার করেন।এর কোন বিশেষত্ব নেই।

তার ভিডিওতে সবচেয়ে বেশি প্রাধান্য পায় দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে ঘটে যাওয়া বিভিন্ন মজার ঘটনাবলি।কয়েকদিন আগে তিনি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়ে ডেইলি ব্লগ তৈরি করে বেশ সাড়া পেয়েছেন।

বিশ্ববিদ্যালয় জীবনে-হল লাইফ,ক্যাম্পাসে বন্ধুদের সাথে আড্ডা,ক্যাম্পাসে সুন্দর ও গুরুত্বপূর্ণ জায়গাগুলোকে তুলে ধরেন সাবলীল বাচনভঙ্গির মাধ্যমে।

শফিউল আলম বিনোদনধর্মী ভিডিও তৈরির পাশাপাশি সমাজের নানা অসঙ্গতি নিয়ে ভিডিও বানিয়ে থাকেন।তিনি ২০২০ সালের দিকে ভাঙা রাস্তা মেরামতের দাবিতে ভিডিও দিয়ে কন্টেন্ট ক্রিয়েশন জগতে যাত্রা।প্রতিবাদধর্মী ভিডিওর জন্য তাকে নানা সময় অপ্রীতিকর ঘটনার সম্মুখীন হতে হয়েছে।সবকিছুকে ছাড়িয়ে গিয়ে শফিউল আলম সোশ্যাল মিডিয়ায় অতি অল্প সময়ে তুমুল জনপ্রিয়তা অর্জন করেন।তার ফেসবুক পেজে অনুসারীর সংখ্যা প্রায় দুই লাখ।

শফিউল আলমের জন্ম ২০০২ সালের নভেম্বর মাসে।কক্সবাজার, চকরিয়া’র কোনাখালীতে তার বেড়ে ওঠা।বর্তমানে তিনি শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়া বিজ্ঞান বিষয়ে চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত আছেন।

তিনি মূলত চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসকে ঘিরে যাদুবিদ্যার ডেইলি ব্লগ তৈরি করেন। ক্যাম্পাস জীবনে ঘটে যাওয়া বিষয়গুলো চমৎকারভাবে তুলে ধরেন শফিউল আলম।তার সহপাঠী, সিনিয়র, জুনিয়র থেকে শুরু করে সকলের প্রশংসায় পঞ্চমুখ তিনি।

শফিউল আলমের কন্টেন্ট ক্রিয়েশন নিয়ে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা জানতে চাইলে তিনি বলেন –
কন্টেন্ট ক্রিয়েশন নিয়ে আমার অনেক বড় একটা স্বপ্ন আছে,সেটা আপাতত বলতে চাচ্ছি না।কিছুদিন আগে পেইজে মনিটাইজেশন পেয়েছি।এখন আপাতত লক্ষ্য মানুষকে বিনোদন দেওয়া পাশাপাশি নিজের পকেট খরচটা চালিয়ে নেওয়া।সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন।

Tag :
জনপ্রিয়

হোসেনপুর বাজার সনাতন ধর্মাবলম্বী ব্যাবসায়িকদের উদ্যোগে বস্ত্র বিতরণ

যাদুবিদ্যার জনক! শফিউল আলমের পথচলা

প্রকাশের সময় : ১০:৫৭:২৮ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১০ সেপ্টেম্বর ২০২২

বিচিত্রধর্মী নানান হাস্যরসাত্নক ভিডিওর মাধ্যমে দর্শকদের বিনোদন দিয়ে যাচ্ছেন শফিউল আলম।সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি যাদুবিদ্যার জনক নামে সর্বাধিক পরিচিত।

শফিউল “যাদুবিদ্যার ডেইলি ব্লগ” শিরোনামে ভিডিও বানিয়ে থাকেন।তার এই শিরোনামের জন্য সবাই তাকে যাদুবিদ্যার জনক বলে থাকেন।তিনি নিছক মজার ছলে শিরোনামে যাদুবিদ্যার জনক শব্দটি ব্যবহার করেন।এর কোন বিশেষত্ব নেই।

তার ভিডিওতে সবচেয়ে বেশি প্রাধান্য পায় দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে ঘটে যাওয়া বিভিন্ন মজার ঘটনাবলি।কয়েকদিন আগে তিনি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়ে ডেইলি ব্লগ তৈরি করে বেশ সাড়া পেয়েছেন।

বিশ্ববিদ্যালয় জীবনে-হল লাইফ,ক্যাম্পাসে বন্ধুদের সাথে আড্ডা,ক্যাম্পাসে সুন্দর ও গুরুত্বপূর্ণ জায়গাগুলোকে তুলে ধরেন সাবলীল বাচনভঙ্গির মাধ্যমে।

শফিউল আলম বিনোদনধর্মী ভিডিও তৈরির পাশাপাশি সমাজের নানা অসঙ্গতি নিয়ে ভিডিও বানিয়ে থাকেন।তিনি ২০২০ সালের দিকে ভাঙা রাস্তা মেরামতের দাবিতে ভিডিও দিয়ে কন্টেন্ট ক্রিয়েশন জগতে যাত্রা।প্রতিবাদধর্মী ভিডিওর জন্য তাকে নানা সময় অপ্রীতিকর ঘটনার সম্মুখীন হতে হয়েছে।সবকিছুকে ছাড়িয়ে গিয়ে শফিউল আলম সোশ্যাল মিডিয়ায় অতি অল্প সময়ে তুমুল জনপ্রিয়তা অর্জন করেন।তার ফেসবুক পেজে অনুসারীর সংখ্যা প্রায় দুই লাখ।

শফিউল আলমের জন্ম ২০০২ সালের নভেম্বর মাসে।কক্সবাজার, চকরিয়া’র কোনাখালীতে তার বেড়ে ওঠা।বর্তমানে তিনি শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়া বিজ্ঞান বিষয়ে চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত আছেন।

তিনি মূলত চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসকে ঘিরে যাদুবিদ্যার ডেইলি ব্লগ তৈরি করেন। ক্যাম্পাস জীবনে ঘটে যাওয়া বিষয়গুলো চমৎকারভাবে তুলে ধরেন শফিউল আলম।তার সহপাঠী, সিনিয়র, জুনিয়র থেকে শুরু করে সকলের প্রশংসায় পঞ্চমুখ তিনি।

শফিউল আলমের কন্টেন্ট ক্রিয়েশন নিয়ে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা জানতে চাইলে তিনি বলেন –
কন্টেন্ট ক্রিয়েশন নিয়ে আমার অনেক বড় একটা স্বপ্ন আছে,সেটা আপাতত বলতে চাচ্ছি না।কিছুদিন আগে পেইজে মনিটাইজেশন পেয়েছি।এখন আপাতত লক্ষ্য মানুষকে বিনোদন দেওয়া পাশাপাশি নিজের পকেট খরচটা চালিয়ে নেওয়া।সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন।