ঢাকা ০৮:২৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ২০ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

গঙ্গাচড়ায় বিএনপি-পুলিশ সংঘর্ষের মামলায় উপজেলা বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতিসহ গ্রেফতার ৭

গঙ্গাচড়া (রংপুর) প্রতিনিধি

রংপুরের গঙ্গাচড়ায় বিএনপির বিক্ষোভ মিছিলকে কেন্দ্র করে পুলিশ ও বিএনপির নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় আরও সাতজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (৯ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত থেকে শনিবার (১০ সেপ্টেম্বর) দুপুর পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে উপজেলা বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি মীর কাশেম মিঠুসহ সাতজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এরমধ্যে মিঠুসহ তিনজন এজারভুক্ত আসামি এবং চারজন প্রাথমিক তদন্তে ঘটনার সাথে জড়িত থাকায় গ্রেফতার করা হয়েছে।
গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে রংপুর জেলা পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার (এ সার্কেল) হোসাইন রায়হান বলেন, এজারভুক্ত তিনজনসহ সাতজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গ্রেফতার সকলেই পুলিশের উপর হামলা ও ভাঙচুরের সাথে জড়িত। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। এর আগে ঘটনার দিন বৃহস্পতিবার (৮ সেপ্টেম্বর) চারজনকে আটক করা হয়। পরে তাদের গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। এ নিয়ে ১১ জনকে গ্রেফতার করা হলো।

প্রসঙ্গত, নারায়নগঞ্জে যুবদল নেতা শাওন হত্যাসহ দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতির প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার গঙ্গাচড়ায় বিক্ষোভ কর্মসূচির ডাক দেয় বিএনপি। বিকেল সাড়ে ৩টা থেকে উপজেলার পুরাতন সোনালী ব্যাংক মোড় এলাকায় জড়ো হতে থাকেন দলীয় নেতাকর্মীরা।

এরপর বিকেল সাড়ে ৪টার পর বিএনপি নেতাকর্মীরা পুরাতন সোনালী ব্যাংক মোড় থেকে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে গঙ্গাচড়া বাজারের দিকে যেতে চাইলে পুলিশ বাঁধা দেয়। এতে পুলিশকে উদ্দেশ্য করে বিএনপি নেতাকর্মীরা ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করলে পুলিশ লাঠিচার্জ করে।

এ ঘটনায় গঙ্গাচড়া থানার ওসি দুলাল হোসেনসহ ১৫ পুলিশ সদস্য ও বিএনপি নেতাকর্মী, পথচারী, ব্যবসায়ী, সাংবাদিক মিলে অর্ধ শতাধিক মানুষ আহত হন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে টিয়ারসেল মেরে আন্দোলনকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয় পুলিশ।

এ ঘটনায় শুক্রবার (৯ সেপ্টেম্বর) বিকেলে পুলিশ বাদী হয়ে ৫০ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত দেড় থেকে দুই হাজার জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করে।

Tag :

কালীগঞ্জে মায়ের শাড়ি গলায় পেঁচিয়ে ছেলের আত্মহত্যা

গঙ্গাচড়ায় বিএনপি-পুলিশ সংঘর্ষের মামলায় উপজেলা বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতিসহ গ্রেফতার ৭

প্রকাশের সময় : ০১:৩২:৫৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১০ সেপ্টেম্বর ২০২২

গঙ্গাচড়া (রংপুর) প্রতিনিধি

রংপুরের গঙ্গাচড়ায় বিএনপির বিক্ষোভ মিছিলকে কেন্দ্র করে পুলিশ ও বিএনপির নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় আরও সাতজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (৯ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত থেকে শনিবার (১০ সেপ্টেম্বর) দুপুর পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে উপজেলা বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি মীর কাশেম মিঠুসহ সাতজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এরমধ্যে মিঠুসহ তিনজন এজারভুক্ত আসামি এবং চারজন প্রাথমিক তদন্তে ঘটনার সাথে জড়িত থাকায় গ্রেফতার করা হয়েছে।
গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে রংপুর জেলা পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার (এ সার্কেল) হোসাইন রায়হান বলেন, এজারভুক্ত তিনজনসহ সাতজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গ্রেফতার সকলেই পুলিশের উপর হামলা ও ভাঙচুরের সাথে জড়িত। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। এর আগে ঘটনার দিন বৃহস্পতিবার (৮ সেপ্টেম্বর) চারজনকে আটক করা হয়। পরে তাদের গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। এ নিয়ে ১১ জনকে গ্রেফতার করা হলো।

প্রসঙ্গত, নারায়নগঞ্জে যুবদল নেতা শাওন হত্যাসহ দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতির প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার গঙ্গাচড়ায় বিক্ষোভ কর্মসূচির ডাক দেয় বিএনপি। বিকেল সাড়ে ৩টা থেকে উপজেলার পুরাতন সোনালী ব্যাংক মোড় এলাকায় জড়ো হতে থাকেন দলীয় নেতাকর্মীরা।

এরপর বিকেল সাড়ে ৪টার পর বিএনপি নেতাকর্মীরা পুরাতন সোনালী ব্যাংক মোড় থেকে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে গঙ্গাচড়া বাজারের দিকে যেতে চাইলে পুলিশ বাঁধা দেয়। এতে পুলিশকে উদ্দেশ্য করে বিএনপি নেতাকর্মীরা ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করলে পুলিশ লাঠিচার্জ করে।

এ ঘটনায় গঙ্গাচড়া থানার ওসি দুলাল হোসেনসহ ১৫ পুলিশ সদস্য ও বিএনপি নেতাকর্মী, পথচারী, ব্যবসায়ী, সাংবাদিক মিলে অর্ধ শতাধিক মানুষ আহত হন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে টিয়ারসেল মেরে আন্দোলনকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয় পুলিশ।

এ ঘটনায় শুক্রবার (৯ সেপ্টেম্বর) বিকেলে পুলিশ বাদী হয়ে ৫০ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত দেড় থেকে দুই হাজার জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করে।