ঢাকা ০২:০৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

‘সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম অনলাইনে আড্ডার সুযোগ সৃষ্টি করেছে’

ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম অনলাইনে ব্যক্তিগত আড্ডার সুযোগ সৃষ্টি করেছে। চা স্টলের দায়বদ্ধতাহীন আলোচনার মতই সোস্যাল মিডিয়ায় যার যা খুশি তাই লিখে।

তিনি বলেন, রেজিস্ট্রি করা নিউজপোর্টাল বা সংবাদপত্রের দায়বদ্ধতা আছে। সেখানে সম্পাদক আছেন –নিউজ এডিটর, চিফ রিপোর্টার আছেন। তারা সাংবাদিকতার দায়বদ্ধতা ও দায়িত্ববোধ দেখে থাকেন। নিবন্ধনহীন অনলাইন পোর্টাল বা আইপি টিভিও একইভাবে আচরণ করে থাকে। দায়িত্বশীল গণমাধ্যম ও তার সাংবাদিকদের নিয়ে আমার উদ্বেগ নেই। কিন্তু নাম-ঠিকানা গোত্রহীন গণমাধ্যমের নাম প্রকাশনা আমাদের আতঙ্ক। তিনি সাংবাদিকদের ডিজিটাল গণ মাধ্যম ও ডিজিটাল প্রযুক্তিসহ ডিজিটাল নিরাপত্তা বিষয়ে প্রশিক্ষণের প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

রোববার (৪ সেপ্টেম্বর) ঢাকায় পিআইবি মিলনায়তনে আয়োজিত টেকনোলজি মিডিয়া গিল্ড, বাংলাদেশ (টিএমজিবি) সদসদের জন্য মোবাইল সাংবাদিকতাবিষয়ক তিন দিনব্যাপী প্রশিক্ষণের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

ডিজিটাল প্রযুক্তি বিকাশের ফলে আগামীদিনের সাংবাদিকতা অত্যন্ত চ্যালেঞ্জিং উল্লেখ করে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন, কাগজে ছাপা পত্রিকা প্রযুক্তির পরিবর্তনের ধারাবাহিকতায় বিলিন হয়ে যাওয়ার বিষয়টি সময়ের প্রশ্ন। রেডিও টিভিরও একই যাত্রাপথ।

মন্ত্রী বলেন, অনলাইন মিডিয়ার বিকাশের ফলে সাংবাদিকতার বর্তমান রূপ পরিবর্তন নতুন বিশ্বের জন্য সূচনামাত্র। ডিজিটালপ্রযুক্তি সংবাদ মাধ্যম এবং সাংবাদিকতা আগামী দুনিয়ায় এমন একটি জায়গায় নিয়ে যাবে, যা এখন কল্পনাও করা যায় না বলে উল্লেখ করেন তিনি।

ডিজিটাল প্রযুক্তির বিকাশের ধারাবাহিকতায় আগামীদিনের দুনিয়ায় কম্পিউটারে কী বোর্ডের প্রয়োজন হবে না। কথা বললে সেটা শুদ্ধভাবে টাইপ হবে, বাংলা থেকে ইংরেজি, ইংরেজি থেকে বাংলায় শুদ্ধ অনুবাদ হবে ডিজিটাল যন্ত্রে।

পিআইবির মহাপরিচালক জাফর ওয়াজেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রশিক্ষণার্থীদের পক্ষে টিএমজিবির সভাপতি মোহাম্মদ কাওছার উদ্দীন এবং সাধারণ সম্পাদক আরাফাত সিদ্দিকী সোহাগ প্রমুখ বক্তব্য দেন।

Tag :
জনপ্রিয়

সাটুরিয়ায় নিয়োগ বাতিলের দাবীতে মানববন্ধন

‘সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম অনলাইনে আড্ডার সুযোগ সৃষ্টি করেছে’

প্রকাশের সময় : ১০:৪৬:৪০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৮ সেপ্টেম্বর ২০২২

ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম অনলাইনে ব্যক্তিগত আড্ডার সুযোগ সৃষ্টি করেছে। চা স্টলের দায়বদ্ধতাহীন আলোচনার মতই সোস্যাল মিডিয়ায় যার যা খুশি তাই লিখে।

তিনি বলেন, রেজিস্ট্রি করা নিউজপোর্টাল বা সংবাদপত্রের দায়বদ্ধতা আছে। সেখানে সম্পাদক আছেন –নিউজ এডিটর, চিফ রিপোর্টার আছেন। তারা সাংবাদিকতার দায়বদ্ধতা ও দায়িত্ববোধ দেখে থাকেন। নিবন্ধনহীন অনলাইন পোর্টাল বা আইপি টিভিও একইভাবে আচরণ করে থাকে। দায়িত্বশীল গণমাধ্যম ও তার সাংবাদিকদের নিয়ে আমার উদ্বেগ নেই। কিন্তু নাম-ঠিকানা গোত্রহীন গণমাধ্যমের নাম প্রকাশনা আমাদের আতঙ্ক। তিনি সাংবাদিকদের ডিজিটাল গণ মাধ্যম ও ডিজিটাল প্রযুক্তিসহ ডিজিটাল নিরাপত্তা বিষয়ে প্রশিক্ষণের প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

রোববার (৪ সেপ্টেম্বর) ঢাকায় পিআইবি মিলনায়তনে আয়োজিত টেকনোলজি মিডিয়া গিল্ড, বাংলাদেশ (টিএমজিবি) সদসদের জন্য মোবাইল সাংবাদিকতাবিষয়ক তিন দিনব্যাপী প্রশিক্ষণের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

ডিজিটাল প্রযুক্তি বিকাশের ফলে আগামীদিনের সাংবাদিকতা অত্যন্ত চ্যালেঞ্জিং উল্লেখ করে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন, কাগজে ছাপা পত্রিকা প্রযুক্তির পরিবর্তনের ধারাবাহিকতায় বিলিন হয়ে যাওয়ার বিষয়টি সময়ের প্রশ্ন। রেডিও টিভিরও একই যাত্রাপথ।

মন্ত্রী বলেন, অনলাইন মিডিয়ার বিকাশের ফলে সাংবাদিকতার বর্তমান রূপ পরিবর্তন নতুন বিশ্বের জন্য সূচনামাত্র। ডিজিটালপ্রযুক্তি সংবাদ মাধ্যম এবং সাংবাদিকতা আগামী দুনিয়ায় এমন একটি জায়গায় নিয়ে যাবে, যা এখন কল্পনাও করা যায় না বলে উল্লেখ করেন তিনি।

ডিজিটাল প্রযুক্তির বিকাশের ধারাবাহিকতায় আগামীদিনের দুনিয়ায় কম্পিউটারে কী বোর্ডের প্রয়োজন হবে না। কথা বললে সেটা শুদ্ধভাবে টাইপ হবে, বাংলা থেকে ইংরেজি, ইংরেজি থেকে বাংলায় শুদ্ধ অনুবাদ হবে ডিজিটাল যন্ত্রে।

পিআইবির মহাপরিচালক জাফর ওয়াজেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রশিক্ষণার্থীদের পক্ষে টিএমজিবির সভাপতি মোহাম্মদ কাওছার উদ্দীন এবং সাধারণ সম্পাদক আরাফাত সিদ্দিকী সোহাগ প্রমুখ বক্তব্য দেন।