ঢাকা ১০:৪১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

আরো ৬ ব্যাংককে নোটিশ

ডলার কেনাবেচায় অতি মুনাফার অভিযোগে দেশি-বিদেশি আরো ছয় ব্যাংকের কাছে ব্যাখ্যা চেয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। ব্যাংকগুলো হলো বিদেশি এইচএসবিসি এবং দেশি ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক (ইউসিবি), এনসিসি ব্যাংক, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, ঢাকা ব্যাংক ও ব্যাংক এশিয়া।

এসব ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের (এমডি) কাছে বুধবার রাতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক চিঠি পাঠায়। বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র সিরাজুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

জানা গেছে, প্রতিটি ব্যাংককে পাঠানো চিঠিতে অতি মুনাফার বিষয়টি উল্লেখ করা হয়েছে। পাশাপাশি কোনো কোনো ব্যাংককে ঘোষিত দামের সঙ্গে প্রকৃত দামের মিল না থাকা, বাংলাদেশ ব্যাংকের অনলাইন পোর্টালে নিয়মিত দাম ঘোষণা না করা, ঘোষিত দামে রপ্তানি ও আমদানিতে ডলারের মূল্য নির্ধারণ না করায় ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে।

এর আগে একই কারণে বিদেশি খাতের স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকসহ দেশি প্রাইম, ব্র্যাক, দি সিটি, ডাচ্-বাংলার ট্রেজারি প্রধানদের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক। এসব ব্যাংকের এমডিদেরও তখন নোটিশ দেওয়া হয়। পরে ইস্টার্ণ ব্যাংকের কাছেও ব্যাখ্যা চাওয়া হয়।

জানা গেছে, বাংলাদেশ ব্যাংকে বৈদিশক মুদ্রার রিজার্ভ কমে ৩৯ বিলিয়ন তথা ৩ হাজার ৯০০ কোটি মার্কিন ডলারের নিচে নেমেছে। বুধবারও বিক্রি করা হয়েছে ৫ কোটি ডলার। এতে রিজার্ভ কমে হয়েছে ৩ হাজার ৮৯৪ কোটি ডলার। ডলারের বাজারে করণীয় নির্ধারণে বৃহস্পতিবার ব্যাংকগুলোর সঙ্গে আবারও আলোচনায় বসছে বাংলাদেশ ব্যাংক। অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশ (এবিবি) ও বাংলাদেশ ফরেন এক্সচেঞ্জ অথরাইজড ডিলারস অ্যাসোসিয়েশনের (বাফেদা) নেতারা এ সভায় অংশ নেবেন। যৌথ এ সভায় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর আহমেদ জামাল সভাপতিত্ব করবেন।

Tag :
জনপ্রিয়

তিতাসে বর্তমান ও সাবেক চেয়ারম্যান সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে নিহত-১, আহত-১৫

আরো ৬ ব্যাংককে নোটিশ

প্রকাশের সময় : ০৭:২৯:২৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

ডলার কেনাবেচায় অতি মুনাফার অভিযোগে দেশি-বিদেশি আরো ছয় ব্যাংকের কাছে ব্যাখ্যা চেয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। ব্যাংকগুলো হলো বিদেশি এইচএসবিসি এবং দেশি ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক (ইউসিবি), এনসিসি ব্যাংক, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, ঢাকা ব্যাংক ও ব্যাংক এশিয়া।

এসব ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের (এমডি) কাছে বুধবার রাতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক চিঠি পাঠায়। বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র সিরাজুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

জানা গেছে, প্রতিটি ব্যাংককে পাঠানো চিঠিতে অতি মুনাফার বিষয়টি উল্লেখ করা হয়েছে। পাশাপাশি কোনো কোনো ব্যাংককে ঘোষিত দামের সঙ্গে প্রকৃত দামের মিল না থাকা, বাংলাদেশ ব্যাংকের অনলাইন পোর্টালে নিয়মিত দাম ঘোষণা না করা, ঘোষিত দামে রপ্তানি ও আমদানিতে ডলারের মূল্য নির্ধারণ না করায় ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে।

এর আগে একই কারণে বিদেশি খাতের স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকসহ দেশি প্রাইম, ব্র্যাক, দি সিটি, ডাচ্-বাংলার ট্রেজারি প্রধানদের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক। এসব ব্যাংকের এমডিদেরও তখন নোটিশ দেওয়া হয়। পরে ইস্টার্ণ ব্যাংকের কাছেও ব্যাখ্যা চাওয়া হয়।

জানা গেছে, বাংলাদেশ ব্যাংকে বৈদিশক মুদ্রার রিজার্ভ কমে ৩৯ বিলিয়ন তথা ৩ হাজার ৯০০ কোটি মার্কিন ডলারের নিচে নেমেছে। বুধবারও বিক্রি করা হয়েছে ৫ কোটি ডলার। এতে রিজার্ভ কমে হয়েছে ৩ হাজার ৮৯৪ কোটি ডলার। ডলারের বাজারে করণীয় নির্ধারণে বৃহস্পতিবার ব্যাংকগুলোর সঙ্গে আবারও আলোচনায় বসছে বাংলাদেশ ব্যাংক। অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশ (এবিবি) ও বাংলাদেশ ফরেন এক্সচেঞ্জ অথরাইজড ডিলারস অ্যাসোসিয়েশনের (বাফেদা) নেতারা এ সভায় অংশ নেবেন। যৌথ এ সভায় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর আহমেদ জামাল সভাপতিত্ব করবেন।