রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

রবিবার ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

৬ বছর পর ফলোঅনে পাকিস্তান

প্রকাশিত : 04:15 PM, 1 December 2019 Sunday ১৭ বার পঠিত

অনলাইন নিউজ ডেক্স :
alokitosakal

অ্যাডিলেইড ওভালে দ্বিতীয় দিনের শেষ বিকেলে স্বীকৃত ৬ ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে মাত্র ৯৬ রান করতে পেরেছিল পাকিস্তান। তখনই বোঝা গিয়েছিল ফলোঅনে পড়তে যাচ্ছে তারা। আজ (রোববার) তৃতীয় দিন লড়াই করেছেন বাবর আজম, ইয়াসির শাহ, মোহাম্মদ আব্বাসরা। তবে পারেননি ফলোঅন এড়াতে।

যার ফলে প্রায় ৬ বছর পর টেস্ট ক্রিকেটে ফলোঅনের মুখোমুখি হলো পাকিস্তান। এর আগে সবশেষ ২০১৩ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সেঞ্চুরিয়ন টেস্টে ফলোঅনে পড়েছিল তারা। এছাড়া অস্ট্রেলিয়াও প্রায় ৪ বছর পর কোনো দলকে ফলোঅন করালো। ২০১৫ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে হোবার্ট টেস্টে সবশেষ ফলোঅন করানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিল তারা।

ম্যাচে নিজেদের প্রথম ইনিংসে পাকিস্তানের প্রথম ৬ ব্যাটসম্যান আউট হয়েছিল মাত্র ৮৯ রানে। শেষের ৪ উইকেট দিয়েই আরও ২১৩ রান যোগ করে তারা। যার মধ্যে ছিলো সপ্তম উইকেটে বাবর-ইয়াসিরের ১০৫ রানের জুটি ও নবম উইকেটে ইয়াসির-আব্বাসের ৮৭ রানের জুটি। শেষতক ৩০২ রানে থামে পাকিস্তানের ইনিংস।

অস্ট্রেলিয়ার ২৮৭ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমেছে তারা। স্বাগতিক আবারও ব্যাটিংয়ে নামানোর জন্য এই রান করতে হবে তাদের। প্রথম ইনিংসে অল্পের জন্য সেঞ্চুরি করতে পারেননি বাবর (৯৭)। তবে ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরিতে ১১৩ রান করেছেন ইয়াসির। বল হাতে ৬ উইকেট শিকার করেছেন স্টার্ক।

আপাতত বৃষ্টির জন্য বন্ধ রয়েছে পাকিস্তানের দ্বিতীয় ইনিংসের খেলা। বৃষ্টি নামার আগে মাত্র ১১ রান তুলতেই সাজঘরে ফিরে গেছেন ওপেনার ইমাম উল হক (০) ও অধিনায়ক আজহার আলি (৯)। উইকেট দুইটি নিয়েছেন জশ হ্যাজলউড ও মিচেল স্টার্ক।

চের দ্বিতীয় দিনের শেষ বিকেলে স্টার্কের গতির ঝড়ে অসহায় ছিলো পাকিস্তানের ব্যাটসম্যানরা। স্টার্ক ৪ উইকেট নিলে মাত্র ৯৬ রানে পাকিস্তানের ৬ উইকেট তুলে নেয় অস্ট্রেলিয়া। তবে একপ্রান্ত আগলে রেখে ৪৩ রানে অপরাজিত ছিলেন বাবর।

ডানহাতি এ মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানের উইলোতেই বড় কিছু স্বপ্ন দেখছিলো পাকিস্তান। তাদের আশাহত করেননি বাবর। তৃতীয় দিন সকালে সঙ্গী হিসেবে পেয়ে যান লেগস্পিনার ইয়াসির শাহকে। দুজন মিলে সপ্তম উইকেট জুটিতে যোগ করেন ১০৫ রান। বাবর এগিয়ে যাচ্ছিলেন ক্যারিয়ারের তৃতীয় সেঞ্চুরির দিকে, ইয়াসিরের অপেক্ষা ছিলো প্রথম অর্ধশতকের।

ঠিক তখনই দৃশ্যপটে আবির্ভুত হন স্টার্ক। দারুণ এক আউটসুইঙ্গারে উইকেটের পেছনে ক্যাচে পরিণত করেন ৯৭ রান করা বাবর আজমকে। যার ফলে আজহার আলি ও আসাদ শফিকের পর তৃতীয় পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান হিসেবে দিবারাত্রির টেস্টে সেঞ্চুরি করার সুযোগ হাতছাড়া হয় তার।

এদিকে বাবরের সুযোগ হাতছাড়া হলেও, স্টার্ক ঠিকই নিজের কাজ করেছেন। পাকিস্তানের লেগস্পিনার ইয়াসির শাহ ও নিউজিল্যান্ডের পেসার ট্রেন্ট বোল্টের পর বিশ্বের তৃতীয় বোলার হিসেবে গোলাপি বলে দুইবার ৫ উইকেট নেয়ার কৃতিত্ব অর্জন করেন তিনি।

নন স্ট্রাইক প্রান্তে দাঁড়িয়ে ইয়াসির শাহ দেখেছেন ৯৭ রানে বাবরকে আউট হয়ে যেতে। নয়তো বাবরই হতে পারতেন তৃতীয় পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান হিসেবে দিবারাত্রির টেস্টে সেঞ্চুরিয়ান। বাবর না পারলেও, তা করে দেখালেন ইয়াসির শাহ।

ম্যাচের প্রথম ইনিংসে বল হাতে মাত্র ৩ রানের জন্য ডাবল সেঞ্চুরি মিস করেছিলেন ইয়াসির। অর্থাৎ ৩২ ওভারে তিনি খরচ করেছিলেন ১৯৭ রান। আর মাত্র ৩ রান খরচ করলেই বিশ্বের প্রথম বোলার হিসেবে টেস্ট ক্রিকেটে তিন বার ২০০’র বেশি রান দেয়ার বিব্রতকর রেকর্ডে উঠে যেত ইয়াসির শাহর নাম।

বল হাতে বিব্রতকর এই রেকর্ডে নাম ওঠেনি সত্যি, তবে ব্যাট হাতে ঠিকই মনে রাখার মতো কাজই করেছেন তিনি। নিজের ক্যারিয়ারের প্রথম অর্ধশতকটিকে রূপ দিয়েছেন প্রথম সেঞ্চুরিতে। মিচেল স্টার্ক, নাথাল লায়ন, প্যাট কামিনসদের সামলে ১৯২ বলে ১২ চারের মারে পূরণ করেন সেঞ্চুরি।

আলোকিত সকাল/মাহমুদ

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT