রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

মঙ্গলবার ৩১ মার্চ ২০২০, ১৭ই চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

১০:২৬ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম
◈ লক্ষ্মীপুর সদর এমপির পক্ষ থেকে প্রেস ক্লাবের সাংবাদিকদের পিপিই প্রদান ◈ গভীর রাতে খাবার নিয়ে মানুষের দ্বারে দ্বারে জনি ◈ জামালপুরে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ছয়টি দোকান ও গুদামের ৪০ লক্ষ টাকার মালামাল পুড়ে ছাই ◈ জামালপুরে ঘর থেকে তুলে নিয়ে কিশোরীকে দলবদ্ধ ধর্ষণ ◈ রাতের আধারে বাড়ি বাড়ি চাল-আলু পৌঁছে দিল জনি ◈ “মানুষ মানুষের জন্য” কর্মসূচী গ্রহণ করেছেন এমপি ◈ রংপুর সদরের সদ্যপুষ্করিনীতে কর্মহীন ও দুস্থ মানুষের মাঝে চাল বিতরণ ◈ অসহায়দের বাড়িতে গিয়ে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দিলো যুবলীগ নেতা রাজু ◈ আখাউড়ায় করোনা মোকাবেলায় দরিদ্র মানুষের পাশে নেই জন প্রতিনিধিরা ◈ ময়মনসিংহে জেএমবি’র ৪ সদস্য গ্রেপ্তার

হাত কেটে আর চোখে মরিচের গুঁড়ো ছিটিয়ে ছিনতাইয়ের নাটক ! অতঃপর

প্রকাশিত : ১১:০৭ PM, ২৩ মার্চ ২০২০ Monday ১৩ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

মোঃ মিজানুর রহমান, স্টাফ রিপোর্টার :

মালিকের ১৫ লাখ টাকা আত্মসাতের জন্য নিজের হাত কেটে আর চোখে মরিচের গুঁড়ো ছিটিয়ে বন্ধুদের নিয়ে একটি ছিনতাইয়ের নাটক সাজিয়ে শেষমেষ রক্ষা পায়নি এক কর্মচারী। চট্টগ্রাম সিআইডি অফিসে এক সংবাদ সম্মেলনে সিআইডি চট্টগ্রামের পরিদর্শক মুহাম্মদ শরীফ বলেন, ঘটনাটি একটি ছিনতাইয়ের নাটক ছিল বলে সিআইডি’র তদন্তে উঠে এসেছে। আবু বক্কর আগেই জানতে পারে যে তার মালিক জয়নাল তার বন্ধুর কাছ থেকে টাকা নিয়ে আসার জন্য চট্টগ্রাম শহরে পাঠাবে। এতে বক্কর আগে থেকে ওই টাকা আত্মসাতের একটি পরিকল্পনা করে। পরে রাসেল নামে তার এক বন্ধুর সাথে বিষয়টি শেয়ার করে। পরিকল্পনা মতো আবু বক্কর তার বন্ধু রাসেলসহ অন্যদের নিয়ে ১৫ লাখ টাকা আত্মসাত করার পর একটি ছিনতাইয়ের নাটক সাজায়।

সিআইডি পর্যায়ক্রমে তাদের সবাইকে গ্রেপ্তারের পাশাপাশি টাকাগুলো উদ্ধার করেছে বলে জানান তিনি।

সিআইডি কর্মকর্তা শরীফ বলেছেন, ঘটনার দিন জয়নালের বন্ধু জাহাঙ্গীর তার এক কর্মচারীর মাধ্যমে আবু বক্করের কাছে ১৪ লাখ ১৫ হাজার টাকার একটি প্যাকেট হাতে তুলে দিয়েছিল। সেই টাকা বক্কর নেওয়ার পর সোহেলের হাতে তুলে দেয়। সোহেল টাকা নিয়ে চকরিয়া চলে আসে। পরে আবু বক্কর নিজের হাত কেটে রক্ত বের করার পাশাপাশি নিজের চোখে মরিচের গুঁড়ো ছিটিয়ে রাস্তায় পড়েছিল। পরে সে তার মালিক জয়নালকে জানায় টাকাগুলো ছিনতাই হয়েছে।

মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডি পুলিশের এস আই মো. শাহাদাৎ বলেন, পরিকল্পনার অংশ হিসেবে রাসেলের বড় ভাই সোহেল আগেই চট্টগ্রামে পৌঁছে, আবু বক্করের হাতে টাকা আসার পরে তা সোহেলকে বুঝিয়ে দেয়া হয়। সে টাকাগুলো নিয়ে চকরিয়ার বাড়িতে চলে আসে। সেখানে রুবেল নামে তার এক ভাইয়ের হাতে কিছু টাকা ব্যবসা করার জন্য তুলে দেয়া হয়েছিল। পরে সিআইডি রুবেলের কাছ থেকে দুই লাখ টাকা উদ্ধার করে। বাকী টাকাগুলো উদ্ধারের জন্য সিআইডি আরও তদন্ত চালিয়ে যেতে থাকে। সিআইডি উপ পরিদর্শক শাহাদাৎ জানান, গতকাল (শনিবার) রাতে পলাতক সোহেলকে ডবলমুরিং থানাধীন মনছুরাবাদে একটি ভাড়া বাসা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ওই সময় সোহেলের ঘরে বালিশের ভেতর লুকিয়ে রাখা ১০ লাখ টাকা উদ্ধার করেছে সিআইডি।

সিআইডি কর্মকর্তারা জানান, টাকাগুলো নিয়ে সোহেল চকরিয়া থেকে পালিয়ে মনছুরাবাদে স্ত্রীকে নিয়ে আত্মগোপনে ছিল। বাকী টাকাগুলো সে খরচ করে ফেলেছে বলে সিআইডিকে জানিয়েছে।

সিআইডি’র হাতে গ্রেপ্তারকৃতরা হল- কর্মচারী আবু বক্কর(২৪), রাসেল ও তার দুই ভাই সোহেল (৩৫) ও রুবেল (২৬) এবং লিটন (২৫) নামে তাদের আরেক আত্মীয়। সবার বাড়ি চকরিয়া উপজেলায়।

সিআইডি কর্মকর্তারা জানান, গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে রুবেল স্থানীয়ভাবে ডিলার ব্যবসার পাশাপাশি অনলাইন জুয়াসহ ক্যাসিনোর সাথে জড়িত।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT