রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ৫ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

১০:৫৯ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম

স্থানান্তর বন্ধ সারা দেশে

প্রকাশিত : ০২:১২ AM, ২৬ মার্চ ২০২০ Thursday ৩৫ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

নভেল করোনাভাইরাস সংক্রমণ যাতে ছড়িয়ে পড়তে না পারে সে জন্য সারা দেশে স্থানান্তর বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আগামীকাল ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত ১০ দিন মানুষকে ঘরে থাকতে হবে। কার্যত আজ বুধবার থেকেই এই স্থানান্তর বন্ধ রয়েছে। অফিস-আদালত, গণপরিবহন, বিপণিবিতান, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট, ট্রেন, নৌযানসহ সব কিছুই বলতে গেলে বন্ধ। প্রয়োজন অনুসারে সংশ্লিষ্ট সরকারি দপ্তর, কাঁচাবাজার, ওষুধের দোকান, হাসপাতাল, মৃতদেহের সৎকার, ফায়ার সার্ভিসসহ অন্যান্য জরুরি সেবা প্রতিষ্ঠান খোলা থাকবে। সীমিত পরিসরে প্রতিদিন দুই ঘণ্টা করে ব্যাংকও খোলা থাকবে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ, বিস্তৃতির সম্ভাব্যতা ও প্রেক্ষাপট বিবেচনায় গতকাল মঙ্গলবার থেকেই মাঠে নেমেছেন সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা। সরকারের এই নানামুখী উদ্যোগে স্বস্তির আশা দেখছেন বিশেষজ্ঞরা।

আইএসপিআর জানায়, গতকাল থেকে বিভাগীয় ও জেলা শহরগুলোতে সামাজিক দূরত্ব ও সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণের সুবিধার্থে সশস্ত্র বাহিনী তাদের ওপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করছে। জেলা ম্যাজিস্ট্রেটদের সমন্বয়ে সেনাবাহিনী করোনাভাইরাসসংক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা ব্যবস্থা, সন্দেহজনক ব্যক্তিদের কোয়ারেন্টিন ব্যবস্থা পর্যালোচনা করবে। বিশেষ করে বিদেশফেরত ব্যক্তিদের কেউ নির্ধারিত সময় কোয়ারেন্টিন পালনে ত্রুটি বা অবহেলা করছে কি না তা পর্যালোচনা করবে। নৌবাহিনী উপকূলীয় এলাকায় বেসামরিক প্রশাসনকে সহায়তার কাজ করবে। বিমানবাহিনী হাসপাতালের প্রয়োজনীয় চিকিৎসাসামগ্রী ও জরুরি পরিবহন কাজে নিয়োজিত থাকবে।

গতকাল প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব আহমদ কায়কাউস করোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে সবাইকে বাসায় থাকার আহ্বান জানান। তিনি সরকারঘোষিত ছুটিতে ঘোরাফেরা না করে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বাসায় থাকার নির্দেশনা দেন। বেসরকারি সংস্থায় কর্মরতদের প্রতিও একই আহ্বান জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব বলেন, ‘আগামী ২৬ মার্চের সরকারি ছুটি এবং ২৭, ২৮ মার্চের সাপ্তাহিক ছুটির সাথে ২৯ মার্চ থেকে ২ এপ্রিল সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। ৩ ও ৪ এপ্রিল সাপ্তাহিক ছুটির দিন এই বন্ধের সাথে সংযুক্ত থাকবে। এর মানে হচ্ছে, ছুটির মধ্যে সব কর্মকর্তা-কর্মচারী সবাই বাসায় থাকবেন।’

এই ছুটি ভোগ বা উৎসবের জন্য দেওয়া হয়নি জানিয়ে আহমদ কায়কাউস বলেন, ‘এটি করোনাভাইরাস প্রতিরোধ করার জন্য দেওয়া হয়েছে। সব কর্মকর্তা-কর্মচারী ছুটিকালীন কর্ম এলাকা ত্যাগ করবেন না। সবাই বাসায় থাকবেন।’ সরকারের তরফ থেকে ট্রেন, বাস, লঞ্চে যাত্রী বহন বন্ধ করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

গণপরিবহন বন্ধ ঘোষণা : কাল বৃহস্পতিবার থেকে টানা ১০ দিন দেশের গণপরিবহন বন্ধ থাকবে। তবে ছুটি ঘোষণার পর থেকেই রাজধানী ছাড়ছিল হাজার হাজার মানুষ। গতকাল রেলস্টেশন, বাস টার্মিনাল ও সদরঘাট লঞ্চঘাট থেকে নির্দিষ্ট বাহনে ভিড় করে বাড়ির পথে গেছে যাত্রীরা।

গতকাল সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় থেকে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এক ভিডিও বার্তায় জানান, ২৬ মার্চ থেকে আগামী ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সারা দেশে গণপরিবহন বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ট্রাক, কাভার্ড ভ্যান, ওষুধ, জরুরি সেবা, জ্বালানি, পচনশীল পণ্য পরিবহন নিষেধাজ্ঞার বাইরে থাকবে। পণ্যবাহী যানবাহনে কোনো যাত্রী পরিবহন করা যাবে না।

যাত্রীবাহী ট্রেন অনির্দিষ্টকাল বন্ধ : গতকাল থেকেই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে ট্রেন যোগাযোগ। রেলপথমন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর থেকে সব যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত বন্ধ থাকবে।’ তাঁর এ নির্দেশনার পর সন্ধ্যার পরপরই যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে। বাংলাদেশ রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে, মালবাহী ও তেলবাহী ট্রেন সীমিত পরিসরে চলাচল করবে।

জানা যায়, গতকাল অনেক ট্রেন চলমান অবস্থায় ছিল। ট্রেনগুলো ঢাকায় এসে আবার তাদের নির্ধারিত ছাড়ার প্রান্তে চলে যাবে।

নৌপরিবহন বন্ধ : করোনার কারণে সারা দেশে যাত্রীবাহী নৌযান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডাব্লিউটিএ) গতকাল বিকেল থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর করেছে। নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহ্মুদ চৌধুরী এক ভিডিও বার্তায় দেশের নৌপরিবহন বন্ধ ঘোষণা করেন। তবে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রী ও জরুরি নৌপরিবহন এবং ফেরি চলাচলে বাধা থাকবে না।

অভ্যন্তরীণ সব ফ্লাইট বন্ধ : করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে অভ্যন্তরীণ রুটের সব ফ্লাইট আগামী ৪ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)। গতকাল বেবিচক চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান বলেন, ‘করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে অভ্যন্তরীণ রুটে সব ফ্লাইট বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে। মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১২টা থেকে এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে।’

তবে এভিয়েশন অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (এওএবি) মহাসচিব মফিজুর রহমান জানিয়েছেন, বুধবার থেকে যাদের অভ্যন্তরীণ রুটের ফ্লাইট ছিল, সেসব যাত্রী টিকিটের টাকা ফেরত নিতে পারবে কিংবা ভ্রমণ তারিখ পরিবর্তন করতে পারবে।

চারটি দেশ ও অঞ্চল ছাড়া বাকি সব দেশের ফ্লাইট আসা ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ রয়েছে আগে থেকেই। যে চার দেশ ও অঞ্চল বাকি রয়েছে, তার মধ্যে হংকং থেকে আসা ক্যাথে প্যাসিফিক (ড্রাগন এয়ার) ২৮ মার্চ থেকে এবং থাইল্যান্ডের ব্যাংকক থেকে থাই এয়ারওয়েজের যে ফ্লাইটটি আসছিল, সেটিও আজ বুধবার থেকে আসবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে। আন্তর্জাতিক রুটে এখন কেবল যুক্তরাজ্য ও চীনের ফ্লাইট দেশে আসবে।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের সময় বাড়ল : সারা দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি আরো ৯ দিন বাড়িয়েছে সরকার। এর আগে ৩১ মার্চ পর্যন্ত দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত হলেও এখন তা বাড়িয়ে ৯ এপ্রিল পর্যন্ত করা হয়। গতকাল শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত হয় বলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়। এতে বলা হয়, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনা করে প্রাক-প্রাথমিক থেকে শুরু করে সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আগামী ৯ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ও এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে আগামী ৯ এপ্রিল পর্যন্ত তাদের অধীন সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছে।

সব আদালতে সাধারণ ছুটি : আগামী ২৯ মার্চ থেকে ২ এপ্রিল পর্যন্ত সুপ্রিম কোর্টসহ দেশের সব আদালতে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। গতকাল সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল মো. আলী আকবরের স্বাক্ষরে এই ছুটির বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। এ বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টের মুখপাত্র ও হাইকোর্ট বিভাগের বিশেষ কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাইফুর রহমান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘করোনাভাইরাসের কারণে যেহেতু সরকার সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে, এটা বিবেচনায় নিয়ে প্রধান বিচারপতির নির্দেশে আদালতে এই ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।’

সীমিত পরিসরে খোলা থাকবে ব্যাংক : ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সীমিত পরিসরে ব্যাংক খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। গতকাল বাংলাদেশ ব্যাংকের জরুরি সভায় এই সিদ্ধান্ত হয়।

সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ছুটির এ সময় সরকারি-বেসরকারি সব ধরনের প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও নগদ লেনদেনের সুবিধার্থে ব্যাংক বিশেষ ব্যবস্থায় খোলা থাকবে। ওই সময়ে ব্যাংক লেনদেন হবে সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত। আর ব্যাংক খোলা থাকবে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত। তবে গ্রাহকের চাহিদার বিপরীতে দৈনন্দিন নগদ অর্থের সরবরাহ যেন বিঘ্নিত না হয় সে লক্ষ্যে ব্যাংকের শাখাগুলোতে পর্যাপ্ত নগদ অর্থের সরবরাহ নিশ্চিত করতে পরামর্শ দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

বন্ধ থাকবে বিপণিবিতান : গত রবিবার ২৫ মার্চ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত সাত দিনের জন্য শপিং মল বন্ধের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছিল বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি। তবে সরকারি সিদ্ধান্তের সঙ্গে মিল রেখে বিপণিবিতান বন্ধের সময়সূচিতেও পরিবর্তন আনা হয়েছে। নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, সরকারঘোষিত ছুটির ১০ দিন বিপণিবিতান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। যেসব এলাকায় বুধবার সপ্তাহিক বন্ধ রাখার নিয়ম রয়েছে তাদের প্রতিষ্ঠান আজ থেকেই বন্ধ থাকবে। তবে বন্ধের মধ্যেও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দোকান, যেমন মুদি দোকান, ওষুধের দোকান, খাবারের দোকান খোলা থাকবে বলে জানানো হয়।

গ্যাস, বিদ্যুৎ ও পানির বিল : গ্যাস ও বিদ্যুৎ বিল দিতে আপাতত ব্যাংকে না যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়। এক বিজ্ঞপ্তিতে মন্ত্রণালয় জানায়, ফেব্রুয়ারি থেকে মে—এই চার মাসের গ্যাসের বিল আগামী জুন মাসে এবং ফেব্রুয়ারি থেকে এপ্রিল—এই তিন মাসের বিদ্যুৎ বিল মে মাসে জমা দেওয়া যাবে। এ জন্য কোনো বিলম্ব মাসুল দিতে হবে না। তবে ওয়াসা এক বিজ্ঞপ্তিতে পানির বিল অনলাইনে পরিশোধ করার অনুরোধ জানিয়েছে।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT