রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

বৃহস্পতিবার ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৩ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

০৩:৫৯ অপরাহ্ণ

সাংকেতিক চিহ্ন সিমেন্টের বস্তায়, যেকোনো সময় ঘটতে পারে দুর্ঘটনা

প্রকাশিত : ১২:৫১ PM, ৫ অক্টোবর ২০১৯ শনিবার ২২৫ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

কক্সবাজারের মহেশখালীর উপজেলার প্রশাসনিক প্রধান সড়কটির মালিক কে? সম্প্রতি এমন প্রশ্ন বিরাজ করছে মহেশখালী প্রশাসনিক সড়কপথে যাতায়াতকারী সকলের, সড়কের অর্ধ অংশে খানা খন্দক, ব্রীজ, কালভার্ট, গাইড ওয়াল, নির্মান, সংস্কার কিংবা মেরামত করার প্রয়োজনীয়তা পৌর কর্তৃপক্ষের বা উপজেলা প্রশাসন কেউ দায় স্বীকার করে না।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায় কুতুবজোমের লাল মোঃ সিকদার পাড়ার কালামিয়ার বাজার হতে গোরকঘাটা চৌরাস্তার মোড় পর্যন্ত ৪ কিলোমিটার সড়কের খালেদ বিন মাদ্রাসা হতে গোরকঘাটা বাজার পর্যন্ত ১কিলোমিটার সড়কের মাঝে শুধুমাত্র পুটিবিলার অংশটা সংস্কার কাজ গ্রহন করছেন পৌর কর্তপক্ষ। এখানে দক্ষিন পুটিবিলা জামে মসজিদ সংলগ্ন পুকুরের গাইড ওয়াল ধ্বসে গিয়ে বেহাল অবস্থাশ পড়ে আছে বিগত ৪ বছর ধরে। যে কোন সময় কবরস্থানের অংশ ভেঙ্গে পুকুরে নিন্মজিত হতে পারে, ঘটতে পারে প্রাণহানি কিংবা দূর্ঘটনার মত ঘটনা। অপরদিকে মহেশখালী কলেজের দ্বিতীয় গেইট সংলগ্ন ৫ফিট প্রশস্ত ১১ফিট লম্বা কালভার্টটি মহেশখালী কলেজর নতুন ভবন নির্মানের মালামাল বহন করা গাড়ি চলাচলের কারনে ৪ বছর পূর্বে স্লেপটি ভেঙ্গে যায়। এ থেকে আদৌ টেকসই ভাবে সংস্কার করা হয়নি স্লেপটি।

সম্প্রতি উপজেলার ঘটিভাঙ্গা অাশ্রয়ন প্রকল্পের সিমেন্ট ভর্তি একটি বড় মাপের ট্রাক কালভার্টের উপর দিয়ে বহন করা মাত্র কালভার্টের স্লেপটি ভেঙ্গে গাড়ী চলাচলের অনুপযোগি হয়ে পড়ে। এখন সাংকেতিক চিহ্ন হিসেবে দেখা মেলে শুধু একটি সিমেন্টের বস্তা। রড়ের মাথায় মোড়ানে সিমেন্টর বস্তাটি দিনের বেলায় দ্রুত চোখে পড়লেও রাতের অাধারে অত্যন্ত জীবনের ঝুকি নিয়ে যাতায়াত করছে সড়কটিতে চলাচলরত যানবাহন ও সাধরাণ পথচারীরা। জরুরী কোন রোগী কিংবা অগ্নিকাণ্ডের মত ঘটনায় চার চাকার কোন গাড়ী দ্রুত চলাচলের সুযোগ নেই এই সড়কটিতে।

দেখা যায় সন্ধার প্রহর যখন গুনিয়ে আসে তখন উপজেলাটির কুতুবজোমের কোন গ্রামে সংর্ঘষ বাধলেও দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছাতে পারেনা পুলিশের গাড়ী। নজিরবিহীন দুর্ভোগের চিত্র দৃশ্যমান হলেও আজও কোন উদ্যোগ গ্রহন করেনি সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ।

আরো দেখা যায় সড়কটিতে ভারি যান চলাচলের ফলে গোরকঘাটা থেকে কালা মিয়া বাজার হয়ে মহেশখালী ডিগ্রি কলেজের সামনে কালভার্টটি ভেঙ্গে গিয়ে বড় গর্ত সৃষ্টি হয়। এই মুহুর্তে কালভার্টটি সংস্কার করা না হলে পুরা ভেঙ্গে সড়কের যোগাযোগ ব্যবস্থাপনা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়বে যে কোন মুহুর্তে।

যানবাহন ও সাধারণ পপথচারী ছাড়াও এই সড়ক দিয়ে প্রতিদিনই চলাচল করছে শত শত স্কুল, কলেজ, ও মাদ্রাসায় পড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রীরা।বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের সু-নজরে নিয়ে সড়কটি দ্রুত সময়ে পূন-সংস্করণ করার অনুরোধ জানিয়েছে স্থানীয়রা।

এ ব্যাপারে মহেশখালী পৌরসভা প্রকৌশলী সাঈদুল অালাম জানান, বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার হতে দেখে আমরা আপাতত যাতে যে কোন দূর্ঘটনা এড়াতে পারে তার জন্য আজকের ভেতরই পৌরসভার অর্থায়নে একটি স্লেপ নির্মান করা হবে, পরবর্তীতে টেন্ডার বাজেটের মাধ্যমে বড় ব্রীজে পরিনত করবো।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT