রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

বুধবার ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১৩ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

০১:১৪ পূর্বাহ্ণ

সম্ভাবনা নিয়ে এলেও গানে নেই তারা

প্রকাশিত : ০৭:৫৬ AM, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ Monday ১৯৪ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

‘রূপের মাইয়া’, ‘একটা দেশলাই কাঠি জ্বালাও’, ‘পাঞ্জাবিওয়ালা’, ‘মা’, ‘প্রজাপতিটা যখন-তখন’, ‘ছুঁয়ে দিলে মন’, ‘আমার গায়ে যত দুঃখ সয়’ এসব গান নিয়ে একবিংশ শতাব্দীতে বাংলাদেশের গানে আগমন ঘটে বেশ কয়েকজন তরুণ কণ্ঠশিল্পীর। গান গেয়ে শ্রোতাদের মন ভরিয়ে দেন তারা। কেউ প্রথম গানে বাজিমাত করেছেন, কাউকে অপেক্ষা করতে হয়েছে কয়েকটা গান পর্যন্ত। পেশাদার গানে তাদের সবার বয়স এক দশকেরও বেশি। অথচ বাংলা গানে এখন অনেকটাই অনিয়মিত তারা। কেউ আবার গানে একেবারেই নেই।

২০০২ সালে ‘রূপের মাইয়া’ শিরোনামে একটি গান প্রকাশিত হয় সিলেটের

ছেলে মামুনের কণ্ঠে। অল্পদিনেই গানটি সারাদেশে ছড়িয়ে পড়ে। তার সঙ্গে ছড়িয়ে পড়ে মামুনের নাম। লোকগানের এই শিল্পীর শুরুটা ছিল বাংলাদেশ বেতারে গান করার মধ্য দিয়ে। মামুনের গাওয়া এই গানের ক্যাসেট ৪০ লাখ বিক্রি হয়। এরপর আরও কয়েকটি একক গানের অ্যালবাম প্রকাশিত হলেও তা প্রথম সাফল্যকে ছাড়াতে পারেনি। সিলেটের ছেলে মামুন এখন বেশির ভাগ সময় থাকেন লন্ডনে।

আজমেরী নির্ঝর যখন ‘একটা দেশলাই কাঠি জ্বালাও’ গানটি গেয়েছিলেন, তখন তিনি লালমাটিয়া মহিলা কলেজের ব্যবস্থাপনা বিষয়ে স্নাতক পর্যায়ের শিক্ষার্থী। ২০০৫ সালে হাবিব ওয়াহিদের কম্পোজিশনে আশা ভোঁসলের গাওয়া গানটি নতুন করে গেয়ে নজর কাড়েন নির্ঝর। গানটি ব্যাপক জনপ্রিয়তা এনে দিলেও ওই সময় পড়াশোনার জন্য লন্ডন চলে যান তিনি। ২০১০ সালে দেশে ফিরে আবারও গানে নিয়মিত হওয়ার চেষ্টা করেন। এরপর আবার হারিয়ে যান নির্ঝর। জানা গেছে, নির্ঝর এখন আছেন প্যারিসে।

২০০৫ সালে রিয়্যালিটি শো ‘ক্লোজআপ ওয়ান তোমাকে খুঁজছে বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে গানের জগতে আসেন জামালপুরের নোলক বাবু। ‘আমার গায়ে যত দুঃখ সয়’, ‘শোয়াচান পাখি’ গান দুটি দিয়ে নিজেকে চিনিয়ে দেন। দর্শকের ভালোবাসা আর বিচারকের রায়ে চ্যাম্পিয়ন হন। এরপর নোলকের গাওয়া ‘চালচুলোহীন স্বপ্ন’ গানটি দর্শকপ্রিয়তা পায়। প্রতিযোগিতা থেকে বের হওয়ার তিন বছর পর এই গানের মাধ্যমে নোলক নিজের জায়গা আরও পোক্ত করেন। এরপর যেন ছন্দপতন হয়। যে সম্ভাবনা নিয়ে নোলক সংগীতাঙ্গনে এসেছিলেন, এতে ভাটা পড়ে। ব্যক্তিগত নানা ঘটনা, বেশির ভাগ সময় দেশের বাইরে থাকায় শুরুতেই তাকে ঘিরে আলোচনা থেমে যায়।

‘ক্লোজআপ ওয়ান তোমাকে খুঁজছে বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতায় ‘মা’ গানটি গেয়ে সবার বাহবা কুড়ান চট্টগ্রামের ছেলে রাশেদ। শওকত আলী ইমনের সুর ও সংগীতে রাশেদের গাওয়া গানটি আজও দর্শক হৃদয় নাড়ায়। এক যুগ আগে যে গান দিয়ে দর্শক হৃদয় জয় করেছিলেন রাশেদ, আজ তিনি কোনো আলোচনায় নেই।

কয়েক বছর আগে মুক্তি পাওয়া ‘ছুঁয়ে দিলে মন’ গান দিয়ে বাজিমাত করেন শাকিলা সাকি। বছর-দুয়েক ধরে গানটি অনেকের মুখে মুখে। ১০ বছর ধরে গানের জগতে থাকলেও প্রথম হিট গানের দেখা পেতে কয়েক বছর লেগে যায়। শাকিলা সাকি প্রথম চলচ্চিত্রে গান করেন ২০১১ সালে। ছবির নাম ‘পাগল তোর জন্য রে’। আর দ্বিতীয় ছবি ‘ছুঁয়ে দিলে মন’। চলচ্চিত্রের গানের আগে অডিও মাধ্যমেও গান করেছেন। গানে নিয়মিত নন কেন? শাকিলা বলেন, ‘আমি সবার সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করে চলতে পারি না। তাই পিছিয়ে আছি। তবে আমি আমার মতো করে মঞ্চে গান করছি।’

হারিয়ে যাওয়া আরেক সংগীতশিল্পীর নাম মাহাদী ফয়সাল। ‘তুমি বরুনা হলে আমি সুনীল, তুমি আকাশ হলে হব শঙ্খ চিল’ শিরোনামে গান গেয়ে কোটি প্রাণে স্পন্দন সৃষ্টি করা মানুষটাও হারিয়ে গেছে। ২০০৫ সালে গানের জগতে এসেই হইচই ফেলে দিয়েছিলেন তিনি। হৃদয়ের ঝড়ে, নিঝুম রাত, ভোরের শিশিরসহ বেশ কয়েকটি গান তার দর্শকপ্রিয়তা পায়। বেশ কয়েক বছর ধরে নেই নতুন কোনো গান। শোনা যায়, বর্তমানে এই শিল্পী একটি করপোরেট হাউসে চাকরি করছেন।

ফুয়াদ আল মুক্তাদির অল্প দিনেই বাংলা সংগীতাঙ্গনে আলোড়ন সৃষ্টি করা একটি নাম। একটা সময় অ্যালবামের পাশাপাশি সিনেমাও কাজ করতেন তিনি। দাপিয়ে বেড়িয়েছেন বিজ্ঞাপনের জিজ্ঞেলেও। কয়েক বছর আগে ক্যান্সারে আক্রান্ত হন তিনি। ফলে পবিরবারসহ অবস্থান করছেন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে। নেই নতুন কোনো গানের খবরও।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT