রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

মঙ্গলবার ১৫ জুন ২০২১, ১লা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

১২:২৫ পূর্বাহ্ণ

সক্রিয় হচ্ছে ছাত্রদল

প্রকাশিত : ০৬:৫৪ AM, ৪ অক্টোবর ২০১৯ শুক্রবার ২৬৯ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

সংগঠনের রাজনৈতিক কার্যক্রমের অংশ হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যানটিন ও কেন্দ্রীয় অফিসে নিয়মিত বসছেন বিএনপির আন্দোলনের ভ্যানগার্ড খ্যাত জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। আর এ কার্যক্রম আরো গতিশীল করতে খুব শিগগির সারাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দদেরকে কেন্দ্র থেকে নির্দেশনা দেয়া হবে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিবেশন ঠিক রেখে ছাত্রদলের তাদের কার্যক্রম করতে চায় সংগঠনটি। আর এর মাধ্যমে ছাত্রদল আগের চেয়ে বেশি সক্রিয় হবে বলে মনে করছেন সংগঠনটির নেতারা।

এ বিষয়ে ছাত্রদলের সভাপতি মো. ফজলুর রহমান খোকন বাংলাদেশ জার্নালকে বলেন, আমরা সারাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দদের নির্দেশ দেব- তারা যেন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে ছাত্রদলের কার্যক্রম স্বাভাবিকভাবে চালিয়ে যায়। কারণ এর মাধ্যমে সংগঠন আরো বেশি গতিশীল ও সক্রিয় হবে।

প্রায় এক দশকের বেশি সময় ধরে ছাত্রদলের রাজপথের কার্যক্রম তেমন দৃশ্যমান ছিলোনা। সংগঠনটি শুধু আলোচনা সভা এবং বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে নাম সর্বস্ব কর্মসূচির মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিলো। আর এজন্য সংগঠনটির কর্মীরা নেতৃত্বকে দোষারোপ করছেন।

তারা বলছেন, গত কমিটির নেতারা সংগঠনের কেন্দ্রীয় অফিসে কখনো কর্মীদের নিয়ে বসতেন না এবং কর্মীদের কোনো দিক-নির্দেশনা দিতেন না। তারা তাদের নিজস্ব অফিস তৈরি করে সেখানে কমিটি বানিজ্যের কাজ করতেন। কর্মীদের সঙ্গে তাদের কোনো সম্পৃক্ততা ছিলো না। আর ডাকসু নির্বাচনের সময় ঢাবিতে প্রবেশ করলেও এর আগে তারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েও কখনো ঢোকার চেষ্টা করেননি। কিন্তু সেখানেও নেতৃত্বের দুর্বলতার কারণে সফলতা পায়নি।

এ বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দু’জন সাবেক ছাত্র নেতা বাংলাদেশ জার্নালকে বলেন, এবার কাউন্সিলের মাধ্যমে নেতা নির্বাচিত করা হয়েছে বলেই ক্যাম্পাস ভিত্তিক কার্যক্রম চলছে। আর যদি গত কমিটির ন্যায় পকেট কমিটি দেয়া হতো তাহলে আগের মতোই সংগঠনের কার্যক্রম চলতো।

গত ১৮ সেপ্টেম্বর কাউন্সিলরদের প্রত্যক্ষ ভোটে নতুন নেতৃত্ব পায় বিএনপির সহযোগী সংগঠন ছাত্রদল। এই সংগঠনটির সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন এবং সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল।

এদিকে গত ২৩ সেপ্টেম্বর ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা মধুর ক্যান্টিনে গেলে ছাত্রলীগের নেতারা তাদেরকে সেখান বের করে দেয়। পরে বের হয়ে হাকিম চত্বরে কাছে ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা আসলে তাদের উপর ছাত্রলীগ হামলা করে।

এছাড়া বৃহস্পতিবার ছাত্রদল মধুর ক্যানটিনে যাওয়ার আগেই ক্যানটিনের চেয়ার-টেবিল দখলে নেন ছাত্রলীগের নেতা কর্মীরা। তবে বসার জায়গা না পেয়ে ক্যানটিনের মেঝেতে বসে তার প্রতীকী প্রতিবাদ জানান ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। আর জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের মিছিলে হামলা চালিয়েছে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ফজলুর রহমান খোকন বলেন, আমরা চাই ক্যাম্পাসে স্বাভাবিক পরিস্থিতি বজায় থাকুক। কোনো রকম আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনিত না ঘটুক। আমরা চাইব, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এবং সরকার দলীয় ছাত্র সংগঠন (ছাত্রলীগ) তারাও আমাদের মতো ক্যাম্পাসে শিক্ষার পরিবেশকে স্বাভাবিক রাখার চেষ্টা করবে। তা হলে ক্যাম্পাসে কোনো রকমের সংঘর্ষ হবে না।

খোকন বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের যে পরিবেশ, আমরা চাই সেটা শান্তিপূর্ণ থাকুক। সেজন্য অন্যরকম প্রতিবাদ হিসেবে আমরা এটা পালন করেছি। কারণ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে শিক্ষার পরিবেশ রেখে আমরা ছাত্রদলের স্বাভাবিক রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড পরিচালনা করতে চাই। আর সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠাগুলোতে যদি আমাদের স্বাভাবিক কার্যক্রম চালিয়ে যেতে পারি তাহলে আমরা খুবই দ্রুত সংগঠিত হতে পারব।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT