রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

বুধবার ১৯ জানুয়ারি ২০২২, ৬ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

০৯:৪৩ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম
◈ তাহিরপুর হাওর পাড়ে বৃক্ষরোপণের স্থান পরিদর্শন করেন,ইউএনও ◈ সরকারি কাজে বাধা, যুবকের তিনমাস কারাদণ্ড ◈ গজারিয়ায় কম্বিং অভিযানে ১০ হাজার মিটার কারেন্ট জাল ও ২ টি বেহুন্দি জাল আটক করে -কোস্ট গার্ড ◈ বান্দরবানে সেনা জোনে ১১০ ব্রিগেড সিগন্যাল কোম্পানী প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠিত ◈ শাহজাদপুরে আইনজীবীদের আদালত বর্জন অব্যাহত ◈ জুতা পরে কমলমতি শিশুদের ক্লাসে ঢুকতে দেয় না প্রধান শিক্ষক ◈ রবিবা’র আধুনিক তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার বিষয়ে দুই প্রতিষ্ঠানের সাথে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত ◈ পাকুন্দিয়ায় শীতকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত ◈ ভূঞাপুরে কর্মসৃজন প্রকল্পের কাজের উদ্বোধন ◈ যশোরের শার্শায় ইজিবাইক চালককে হত্যা করে বাইক ছিনতাই

শেরপুরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে সেখানে চলছে কারখানা

প্রকাশিত : ০৬:৪৩ PM, ৯ জুলাই ২০২১ শুক্রবার ১৩৬ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

আব্দুর রাজ্জাক, বগুড়া প্রতিনিধি :

বগুড়ার শেরপুর উপজেলায় করোনাকালে একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পরিণত হয়েছে কারখানায়। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শ্রেণিকক্ষে এখন তৈরি করা হয় জিআই তারের নেট ও মাছের খাবার।

উপজেলার খামারকান্দি ইউনিয়নের পারভবানীপুর গ্রামে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটির অবস্থান। এর নাম সততা পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজ। এটি ২০১৭ সালে যাত্রা শুরু করে। পাঠদানে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের অনুমোদন ছিল। প্রাথমিকভাবে এ প্রতিষ্ঠানে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পাঠদান শুরু হয়েছিল। পর্যায়ক্রমে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত পাঠদানের প্রক্রিয়া চলছিল। প্রতিষ্ঠানটি চালু হওয়ার পর পঞ্চম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী বৃত্তিও পেয়েছিল। করোনা সংক্রমণের কারণে ২০২০ সালে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটি বন্ধ হয়ে যায়। সেই সঙ্গে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটির সাইনবোর্ড সরিয়ে টাঙানো হয়েছে মেসার্স সততা ট্রেডার্স নামে একটি ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানের সাইনবোর্ড।

সরেজমিনে দেখা যায়, শ্রেণিকক্ষের দেয়ালে লোনা ধরেছে। খেলনাসামগ্রী নষ্ট হতে বসেছে। শিশুদের বসার বেঞ্চে ধরেছে ঘুণ। সততা পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রধান শিক্ষক আমিনুর রহমান পারভবানীপুর গ্রামের বাসিন্দা। শ্রেণিকক্ষ ভাড়া নিয়ে প্রধান শিক্ষকসহ ফরহাদ হোসেন সরকার নামের এক ব্যক্তি সততা ট্রেডার্স নামে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান করেছেন।

প্রধান শিক্ষক আমিনুর রহমান বলেন, ২০১৩ সালে পারভবানীপুর গ্রামে সততা সঞ্চয় ও ঋণদান সমবায় সমিতি গড়ে ওঠে। পরবর্তী সময়ে ২০১৭ সালে পারভবানীপুর বাজারের পাশে জায়গা ভাড়া নিয়ে সমিতির সঞ্চয়ের টাকা থেকে অন্তত ৪০ লাখ টাকা ব্যয়ে সততা পাবলিক স্কুল ও কলেজ নামে প্রতিষ্ঠানটি গড়ে তোলা হয়। করোনার কারণে গত বছর থেকে বিদ্যালয়ে পাঠদান বন্ধ আছে।

বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমান বলেন, শহরের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সঙ্গে তাল মিলিয়ে তাঁরা শিশুদের শিক্ষা দিতেন। ফলে কম সময়ের মধ্যে বিদ্যালয়ে শিশুদের উপস্থিতি বাড়তে থাকে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটি গড়ে তোলার সঙ্গে জড়িত আছেন পারভবানীপুর গ্রামের রুবেল আহম্মেদ। তাঁরা গ্রামের এক কৃষকের কাছ থেকে সড়কের পাশে উঁচু জায়গা ভাড়া নিয়ে সেমিপাকা অবকাঠামোর বিদ্যালয়টি গড়ে তোলেন। করোনায় তাঁদের সব শেষ হয়ে গেছে। এখন বিদ্যালয় মেরামতে অন্তত ১৫ লাখ টাকা দরকার। বর্তমানে তাঁদের সেই সামর্থ্য নেই।

পারভবানীপুর গ্রামের আবদুল করিম সরকার বলেন, তিনিসহ গ্রামের পাঁচজন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটি গড়ে তুলেছেন। লেখাপড়ায় গ্রামের শিশুদের যেন উপজেলা শহরমুখী না হতে হয়, এই জন্য তাঁরা গ্রামেই এ প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন। আশপাশের আটটি গ্রামে কোনো কলেজ নেই। তাঁদের ইচ্ছা, প্রতিষ্ঠানটি কলেজে রূপান্তরিত করবেন। কিন্তু করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় তাঁদের সেই স্বপ্ন শেষ হতে বসেছে। বিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন বন্ধ হয়ে পড়েছে। এ কারণে সিদ্ধান্ত নিয়ে তাঁরা বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষগুলো স্থানীয় ব্যবসায়ীদের কাছে তিন মাস আগে কারখানা হিসেবে ভাড়া দিয়েছেন।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২২ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT