রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

শুক্রবার ২৯ মে ২০২০, ১৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

০৭:৪৩ অপরাহ্ণ

শিরোনাম
◈ তাড়াইলে সহকারী কমিশনার ভূমি (ম্যাজিস্ট্রেট) আবু রিয়াদ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ◈ বীর মুক্তিযোদ্ধা ঝন্টু কুমার দে এর গার্ড অব অনার প্রদান ◈ র‍্যাব ৮ পটুয়াখালী ক্যাম্পের উদ্দোগে মহিপুরে ঘূর্ণিঝড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ ◈ শ্রীনগরে খাহ্রা আদর্শ ডিগ্রি কলেজের ছাত্রীর আত্মহত্যা ◈ ছাতকে ছেলে, পুত্র সহ আরও ৬ জনের করোনা সনাক্ত ◈ চট্টগ্রামে পাঁচদিনের নবজাতক শিশুর করোনা শনাক্ত ◈ নারীর লাশ ঝুলছে, সন্তানের পানিতে, স্বামী পলাতক ◈ কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে গরীব ও অসহায় পরিবারের মাঝে সেনাবাহিনীর ত্রাণ বিতরণ ◈ ময়মনসিংহে মানবিক পুলিশ : দৃষ্টান্ত রাখলেন দুই কর্মকর্তা ◈ কিশোরগঞ্জে আবারো করোনার ভয়াল থাবা, আক্রান্ত বেড়ে ৩১৭, মৃত্যু ৯

লালা ব্যবহার নিষিদ্ধ করবে আইসিসি

প্রকাশিত : ০১:০৫ AM, ১৯ মে ২০২০ Tuesday ১২ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

করোনাভাইরাসের জন্য থমকে যাওয়া ক্রিকেট আবার শুরু হলে বল উজ্জ্বল করার জন্য লালা ব্যবহার নিষিদ্ধ করবে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)।

আইসিসির ক্রিকেট কমিটি করোনাভাইরাস দ্বারা সৃষ্ট ঝুঁকি হ্রাস করতে এবং খেলোয়াড় এবং ম্যাচের কর্মকর্তাদের সুরক্ষার জন্য আইসিসি বিধিবিধান পরিবর্তন করার সুপারিশ করেছে। সুপারিশগুলি জুনের প্রথম দিকে আইসিসির প্রধান নির্বাহী কমিটির কাছে অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করা হবে। সেখানে পাশ হলেই বলে লালা ব্যবহার নিষিদ্ধ হবে।

টেস্ট ক্রিকেটে এক বলে ৮০ ওভার খেলা হয়। ব্যাট-বলের লড়াইয়ে ভারসাম্য রাখতে বোলাররা বলের এক পাশ চকচকে রাখেন। এজন্য লালার ব্যবহার করে থাকেন। ব্যবহার করা হয় ঘাম-ও। এ ঐতিহ্য বেশ পুরোনো। বল সাইন করা ছাড়া পেসারদের বল করার কথা চিন্তা করা কঠিন। কিন্তু করোনা পরবর্তী সময়ে বল মাঠে গড়ালে বোলার ও ফিল্ডারদের এমন দৃশ্যে নাও দেখা যেতে পারে।

তবে ক্রিকেট কমিটি সুখবরও দিয়েছে। চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী, ঘামের মাধ্যমে ভাইরাস সংক্রমণ হওয়ার খুব সম্ভাবনা নেই। এজন্য বলের পোলিশ করার জন্য ঘামের ব্যবহার নিষিদ্ধ না করার সুপারিশ করা হয়েছে।

সোমবার ভারতের প্রাক্তন ক্রিকেটার অনিল কুম্বলের সভাপতিত্বে আইসিসির কমিটি বৈঠকে বসেছিল। সেখানে বল মাঠে গড়ালে ক্রিকেটার, অফিসিয়ালদের স্বাস্থ্যঝুঁকি নিয়ে দীর্ঘ আলোচনা করেছে।

বলের সাথে আম্পায়ারদের জন্য নতুন নির্দেশনা আনতে যাচ্ছে আইসিসি। ২০০২ সালের পর টেস্ট ম্যাচে স্বাগতিক দেশের দুইজন আম্পায়ার মাঠে ম্যাচ পরিচালনা করতে পারতেন না। কিন্তু করোনার পর খেলা শুরু হলে টেস্ট ম্যাচে স্বাগতিক দেশের দুইজন আম্পায়ার অনফিল্ডে দায়িত্ব পালন করতে পারবেন। মূলত আন্তর্জাতিক ভ্রমণের কথা চিন্তা করে ক্রিকেট কমিটি এ সুপারিশ করেছে। ১৯৯৪ সালে, আইসিসি প্রতি টেস্টে একটি নিরপেক্ষ আম্পায়ার ব্যবহার বাধ্যতামূলক করেছিল, যা আট বছর পরে বাড়ানো হয়েছিল। এক্ষেত্রে ডিআরএস বাড়ানোর সুপারিশও এসেছে।

অনিল কুম্বলে বলেছেন, ‘আমরা কঠিন সময়ের মধ্যে থেকে বেঁচে আছি এবং কমিটি যে সুপারিশ করেছে তা হল অন্তর্বর্তীকালিন ব্যবস্থা। যাতে নিরাপদে ক্রিকেটকে পুনরায় শুরু করতে সক্ষম হয়। এতে জড়িত সবার স্বাস্থ্য রক্ষা করার সাথে সাথে আমাদের খেলা চালিয়ে যেতে পারি।’

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT