রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

মঙ্গলবার ২৭ জুলাই ২০২১, ১২ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

০২:০৭ পূর্বাহ্ণ

লালমনিরহাটে দুর্নীতি করে বহাল তবিয়তে খাদ্য কর্মকর্তা আইয়ুব ।।


Warning: Illegal string offset 'text' in /home/alikitosakal/public_html/wp-content/themes/smrlit/functions/reporters.php on line 774

প্রকাশিত : ০১:৫৬ AM, ৫ নভেম্বর ২০১৯ মঙ্গলবার ১৭১ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট
Warning: Illegal string offset 'text' in /home/alikitosakal/public_html/wp-content/themes/smrlit/functions/reporters.php on line 774
:
alokitosakal

লালমনিরহাট সদর উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক আইয়ুব আলীর দুর্নীতি বেড়েই চলেছে তিনি মানেন না কাওকেই । বোরো মৌসুমে অচল মিলকে সচল দেখিয়ে সরকারি চালের বরাদ্দ পেতে মিল মালিকদের সহযোগিতা করে লক্ষ লক্ষ টাকা নেয়। বিষয়টি জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তদন্ত করে অনিয়মের প্রমাণ মিললেও আইয়ুব আলীর বিরুদ্ধে নেয়া হয়নি কোন ব্যবস্থা।

বোরো মৌসুমে লালমনিরহাট সদর উপজেলায় ১৪৩টি মিল চাতালে সরকারি চালের বরাদ্দ দেয়া হয়। এর মধ্যে অস্তিত্ত্বহীন, অচল মিল কে সচল দেখিলে মিল চাতাল মালিকদের কাছ থেকে অবৈধ পন্থায় মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয় সদর উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক আইয়ুব আলী। অনিয়মের বিষয়টি নিয়ে একাধিকবার প্রতিবেদন প্রকাশ হলে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি তদন্ত কমিটি তৈরি করা হয়। তদন্ত কমিটির তদন্তে অনিয়মের প্রমাণ মিললে ৪৬টি মিল চাতাল বাতিল করা হয়।

কিন্তু এখনো নেয়া হয়নি উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক আইয়ুব আলীর বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা। ফলে আমন মৌসুমে সরকারি ভাবে চালের বরাদ্দ দেয়ার জন্য যে সকল মিল চাতালের তালিকা নতুন করে পাঠানো হচ্ছে সেখানে নানা অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।

একাধিক মিল চাতাল মালিকরা জানান, বোরো মৌসুমে লালমনিরহাট সদর উপজেলায় ১৪৩টি মিল চাতালে সরকারি চালের বরাদ্দ দেয়া হলেও জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক সাইফুদ্দিন এবং উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক আইয়ুব আলী যোগসাজস করে ১৪৫ টি মিল চাতালে চাল ভাগ করে দেন। এছাড়া অস্তিত্বহীন এবং অচল মিল গুলোর নিকট থেকে ২০ থেকে ৩০ হাজার টাকা করে ঘুষ নিয়ে আইয়ুব আলী মিল চাতালগুলোকে সচল দেখান।

এ সকল অনিয়মের জন্য গত ১৯ মে বিক্ষুদ্ধ হয়ে লালমনিরহাট সদর উপজেলার অধিকাংশ মিল চাতাল মালিকরা সদর উপজেলার খাদ্য নিয়ন্ত্রক আইয়ুব আলীকে শহরের কালীবাড়ী মোড়ে খাদ্য গুদাম কার্যালয়ে অবরুদ্ধ করে রেখে ছিলেন। অথচ এতো অনিয়মের পরেও আজ পর্যন্ত খাদ্য নিয়ন্ত্রক আইয়ুব আলীর বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় কোন ব্যবস্থা গ্রহন করেননি উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষ।

ফলে সদর উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক আইয়ুব আলীর দুর্নীতি বেড়েই চলেছে। অভিযোগ উঠেছে আমন মৌসুমে বরাদ্দের চুক্তি করার আগেই নানা কৌশলে মিল চাতালের পাক্ষিক ক্ষমতা বাড়িয়ে দেয়ার কথা বলে নিচ্ছেন অবৈধ পন্থায় টাকা।

এ ব্যাপারে লালমনিরহাট সদর উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক আইয়ুব আলী জানান, আমার যা খুশি আমি তাই করবো। কারও প্রশ্নের উত্তর দিতে বাধ্য নই। যা কিছু জানার দরকার তা জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক সাইফুদ্দিনের কাছ থেকে জেনে নিবেন। লালমনিরহাট জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক সাইফুদ্দিন জানান,তদন্ত করে অনিয়মের সত্যতা পাওয়া গেছে। উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক আইয়ুব আলীর বিরুদ্ধে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে তারাই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবেন।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT