রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

বুধবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৭ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

১১:১৬ অপরাহ্ণ

শিরোনাম
◈ কলমাকান্দায় যুবলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত ◈ তাহিরপুরে দুর্গাপূজা উদযাপন পরিষদের সাথে থানা পুলিশের মতবিনিময় ◈ ভালুকায় তিতাস গ্যাস অফিসের অনিয়ম-দুর্নীতি এখন ‘নিয়ম’ ◈ করোনার কারনে দীর্ঘদিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় বাল্যবিয়ের শিকার হয়েছে এক প্রতিষ্ঠানের ৮৫ স্কুল ছাত্রী ◈ হামলার প্রতিবাদে শরীয়তপুর পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সামনে সাংবাদিকদের অবস্থান ◈ বেলান নদীর সাঁকো ভেঙে লাখো মানুষের ভোগান্তি ◈ সেলিম মন্ডল কে চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চায় এলাকাবাসী ◈ চরম আর্থিক সংকটে নির্বাচন থেকে পিছু হটলেন ইউপি সদস্য পদপ্রার্থী জসিম ◈ ভূঞাপুরে “প্রতিভা ছাত্র সংগঠন” এর চারা রোপন কর্মসূচির উদ্বোধন ◈ ফুলবাড়ীয়ায় ব্যক্তি উদ্যোগে রাস্তা সংস্কার

রাজশাহীর আম বেচে সাড়া ফেলেছে সিংড়ার ছয় শিক্ষার্থী

প্রকাশিত : ০৪:৩২ PM, ১ জুন ২০২১ মঙ্গলবার ১৮১ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের কারণে গত বছরের মার্চে (২০২০) বন্ধ হয়ে যায় সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। এরইমধ্যে পনেরো মাসেরও বেশি সময় পেরিয়েছে, বারবার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত আসলেও পরিস্থিতি প্রতিকূলে থাকায় খোলা সম্ভব হয়নি। দীর্ঘ এই সময় শিক্ষার্থীরা যেমন হতাশায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে, তেমনি পড়াশোনার পাশাপাশি টিউশনি কিংবা পার্টটাইম চাকরি হারিয়ে বিপাকে বিশ্ববিদ্যালয়পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা। বাড়িতে কতটা সময় আর অলসভাবে বসে থাকা সম্ভব? যখন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলছেই না, তখনই আমের ব্যবসায় নেমে পড়ে বিশ্ববিদ্যায়পড়ুয়া ছয় শিক্ষার্থী। আমের মওসুম হওয়ায় জমে উঠেছে তাদের আমের ব্যবসা। রাজশাহীর বিভিন্ন আমের বাগান থেকে সংগ্রহ করা আম তরুণ এই উদ্যোক্তাদের হাত ধরে চলে যাচ্ছে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে।

করোনাকালে উদ্যোক্তা হয়ে ওঠা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মির্জা মো. শাফি কালাম জানাচ্ছিলেন তাদের এই পথচলার গল্প। তিনি বলেন, ‘করোনার কারণে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ, বাসাতেই বসেছিলাম, অবসর সময় কাটছিল। তাই কয়েকজন বন্ধু মিলে শুরু করি অনলাইনে আম বিক্রি। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে দেখা যায়, ক্রেতাগণ বাজার থেকে যে আমগুলো কিনে খান, সেগুলোতে ক্ষতিকর কেমিক্যাল ও মেডিসিন দেওয়া থাকে। আমরা একদম সরাসরি বাগান থেকে ফ্রেশ আম সরবরাহ করার লক্ষ্য নিয়েই কাজ শুরু করি। এবং বেশ সাড়া পাচ্ছি।’

তিনি আরও জানান, ‘আমরা চারজন বন্ধু মিলে উদ্যোগ গ্রহণ করি। আমাদের কাজের তৎপরতা দেখে পরে আরও দুজন আমাদের সাথে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করে। এতে আমাদের কাজের গতি বাড়তে থাকে। আমরা সাহসও পেতে থাকি।’

অনলাইনে আমের ব্যবসাকে মাথায় নিয়ে আমের শহরখ্যাত রাজশাহীতে ছয় বন্ধু তিনটে বাগান কেনেন এক বছরের জন্য। মূলত তারা সেই বাগান থেকে আম সংগ্রহ করে সাপ্লাই দিয়ে থাকে। এরইমধ্যে চাহিদা বেশি হওয়ায় তারা আশেপাশের বাগান থেকেও আম সংগ্রহ করে বিক্রি করতে থাকে। তবে পাইকারি ও আড়ৎ বাজার থেকে তারা আম নেন না। কেননা তাতে শতভাগ কোয়ালিটি নিশ্চিত করা যায় না। এ বিষয়ে কথা হয় উদ্যোক্তাদের আরেক সদস্য সৈয়দ মেহেদী হাসানের সাথে। তিনি জানান, ‘প্রথমে আমরা ‘চাষিঘর’ নামে ফেসবুকে একটি পেজ খুলি এবং প্রচারণা চালাতে শুরু করি। আমাদের প্রচার-সহযোগিতায় এগিয়ে আসে বন্ধুবান্ধবী ও পরিচিতজন। আমাদের প্রতি গ্রাহকদের বিশ্বাসযোগ্যতা বাড়তে থাকে।’

ব্যবসার প্রচার-প্রসার ও পলিসিগত বিষয় বলতে গিয়ে মেহেদী আরও জানান, ‘আমরা সর্বপ্রথম ক্রেতার সাথে ভার্চুয়ালি যোগাযোগ করে দামসহ যাবতীয় তথ্য দিতে থাকি। সব শুনে তারা যখন অর্ডার কনফার্ম করেন, তখন কুরিয়ার খরচ বা ক্ষেত্রবিশেষ অর্ধেক খরচ অগ্রীম নিয়ে নিই। বেশিরভাগ অর্ডার আমরা কুরিয়ারে পাঠাই। তবে পরিমাণে বেশি অর্ডার থাকলে বাস, ট্রাক বা ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেনে পাঠাই। বাংলাদেশ সরকার ম্যাংগ্যো স্পেশাল ট্রেন চালু করায় আমাদের সুবিধা হয়েছে।’

এখন বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকার কারণে অনেক শিক্ষার্থীরা অনলাইনে আম, লিচু বিক্রিতে ঝুঁকছে এবং নিজেরা সাময়িক একটা কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে নিচ্ছে। নাটোরের সিংড়ার এই ছয় তরুণ শিক্ষার্থীর আম ব্যবসার সফলতার গল্প এরইমধ্যে অন্যান্যদের মাঝে অনুপ্রেরণার মাধ্যম হয়েছে।

জানা যায়, ‘চাষিঘর’ থেকে এ পর্যন্ত মোটামুটি একশোর অধিক পার্সেল বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায় পাঠানো হয়েছে। এবং ৯৫% ক্রেতাগণ ভালো রিভিউ দিয়েছে। তারা প্রত্যাশা করে, আমের মওসুম শেষ হতে হতে সবমিলিয়ে এক হাজারের বেশি পার্সেল পাঠাতে পারবে। মির্জা মো. শাফি কালাম ও সৈয়দ মেহেদী হাসানের সঙ্গে আরও আছেন মেহেদী হাসান, নাফিউর রহমান, খাদিল হাসান রোজ ও তারেক আজিজ তোতা।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT