রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

সোমবার ১০ মে ২০২১, ২৭শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

১১:১৮ পূর্বাহ্ণ

ময়মনসিংহে রেলওয়ের অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ অভিযান শুরু

প্রকাশিত : ১২:৪৯ AM, ১৯ নভেম্বর ২০১৯ মঙ্গলবার ২৫৯ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

স্টাফ রিপোর্টার, ময়মনসিংহ :
দীর্ঘ ৫০ বছরেরও বেশী সময় ধরে নানা অজুহাতে জবর দখলে রাখা অসংখ্য অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ কার্যক্রম চলছে। বাংলাদেশ রেলওয়ের ভু সম্পত্তি বিভাগ ময়মনসিংহে সোমবার এই উচ্ছেদ অভিযান শুরু করে। অভিযান শুরুর আগেই কয়েক হাজার অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নিয়েছে দখলকারীরা।

এছাড়া বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে বিদ্যুত সংযোগ। বাংলাদেশ রেলওয়ে ভূ-সম্পদ বিভাগের কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম জানান, ময়মনসিংহ রেলওয়ের আনুমানিক ২০-২৫ একর জায়গা জুড়ে শত শত কোটি টাকা মুল্যের জমি অবৈধ দলখদারদের দখলে রয়েছে। এই পুরো জায়গা দখল মুক্ত করা হবে। রেলওয়ের বিভাগীয় কর্মকর্তা এস এম সালাউদ্দিন জানান, মূলত রেলীওয়ে স্টেশন এলাকা সুন্দর ও পরিচ্ছন করতে এই উচ্ছেদ অভিযান।

ভবিষ্যতে এই উদ্বারকৃত জায়গায় রেলওয়ের বানিজ্যিক কাজে ব্যবহারের পরিকল্পনা রয়েছে। অভিযানে স্টেশন এলাকার পাকা-আধাপাকা দোকানপাটসহ শতাধিক অবৈধ স্থাপনা বুলডোজার দিয়ে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়। অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ আবুল হাশেম, মঞ্জুরা মোশাররফ ও সাদ্দাম হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

রেলওয়ে সূত্র জানায়, ময়মনসিংহের সুতিয়াখালি থেকে খাগডহর এলাকা পর্যন্ত ৩৫ একর জমি জুড়ে প্রায় দেড় হাজার অবৈধ স্থাপনা রয়েছে। তালিকা অনুযায়ী সকল স্থাপনা উচ্ছেদ করা হবে। ময়মনসিংহ রেলওয়ের স্টেশন সুপার জহিরুল ইসলাম বলেন, দীর্ঘ কয়েকযুগ আগে রেলওয়ের কতক কর্মচারীরা রেলওয়ের বিভিন্ন কোয়ার্টার নিজেদের নামে বরাদ্ধ নিয়ে বসবাস শুরু করেন।

এ সময় বাসাবাড়ি বরাদ্ধপ্রাপ্ত কর্মচারীরা ঐ সমস্ত বাসাবাড়ির আশপাশের পরিত্যক্ত ও খালি জমিতে টিনসেড এবং আধাপাকা বাড়ি নির্মাণ করে ভাড়া প্রধান করে মোটা অংকের ফায়দা লুটে আসছে।

তিনি আরো বলেন, রেলওয়ের ঐ সমস্ত কর্মচারীগণ একযুগের বেশী সময় আগে আবার অনেকে ২/২৫ বছর আগে চাকুরী থেকে অবসরে গেলেও তাদের নামীয় বাসাবাড়ি গুলো প্রভাব, মতা এবং আধিপত্য বিস্তার করে দখলে রেখে ভাড়া প্রদান করে আসছে।

একটি সুত্র জানায়, রেলওয়ে অসংখ্য কর্মচারী ও অবসরপ্রাপ্ত কর্মচারী নিজ হেফাজতে নানা কৌশলে একাধিক বাসাবাড়ি দখলে রেখে এবং পরিত্যক্ত জমিতে অবৈধভাবে পাকা আধাপাকা বাসাবাড়ি নির্মাণ করে লাখ লাখ টাকা ভাড়া আদায় করে আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ বনে গেছেন।

যাদের বেশীরভাগ ঐ ভাড়ার টাকায় শহরের বিভিন্ন স্থানে ফাটবাড়ি কিনে রাজকীয় জীবন যাপন করছেন। এছাড়া অনেকেই দোকানপাঠ নির্মাণ করে লাখ লাখ টাকা ভাড়া আদায় করছেন বলেও অভিযোগ রয়েছে। স্টেশন সুপার জহিরুল ইসলাম আরো বলেন, সরকারের উচ্চ পর্যায়ের নির্দেশে (আইডব্লিউ এসএসএই) আব্দুর রউফ কেওয়াটখালী ময়মনসিংহের নেতৃত্বে অবৈধ বসবসকারীদের তালিকা দীর্ঘ সময় নিয়ে তৈরী করা হয়েছে।

ঐ তালিকা ধরেই অবৈধ বসবাসকারীদের উচ্ছেদ করা হচ্ছে। আজ সোমবার এ উচ্ছেদ অভিযান শুরু হয়েছে। অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ না হওয়া পর্যন্ত এ অভিযান চলবে। উচ্ছেদ হওয়াদের অনেকেই লিজ গ্রহিতা এবং রেলওয়ের কাছ থেকে লিজ এনে বসবাস, ব্যবসা প্রতিষ্ঠা ও দোকানপাঠ পরিচালনা করছেন তাদের কেন উচ্ছেদ করা হচ্ছে, এমন প্রশ্নের উত্তরের স্টেশন সুপার আরো বলেন, এক বছরের জন্য লিজ নিয়ে অনেকেই পরে নবায়ন করেনি। ঐ লিজি কাগ দিয়েই অনেকেই চলছেন।

তাই এ সকল অবৈধদের তালিকা ধরেই উচ্ছেদ চলছে। কোন ধরণের বাধায় সরকার এই উচ্ছেদ থেকে পিছ পা হবেনা। তিনি সরকারী এবং বৃহৎ স্বার্থে অবৈধদের উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনায় সকলের সহযোগীতা কামনা করেছেন।

অবৈধ দখলদারদের পিছনে থাকা রেলওয়ের বর্তমান ও সাবেক কর্মচারীদের একটি অংশকে প্রকাশ দায়ী করছে বসবাসকারীরা। অনেকেই প্রভাবশালী বর্তমান ও সাবেক এ সমস্ত কর্মচারীদের বিচার দাবীও করেছেন।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT