রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

শুক্রবার ১৪ আগস্ট ২০২০, ৩০শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

০৪:২২ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম
◈ মধ্যনগরে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে ভিডিও প্রচার করায় ৫ যুবক গ্রেফতার ◈ চরফ্যাসনে গৃহবধুকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন, থানায় সমঝোতা ◈ বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা একজন শিক্ষাবান্ধব প্রধানমন্ত্রী ◈ উলিপুরে গুনাইগাছে ১১৫ জন দুস্থ নারীর মাঝে ফুট প্যাকেজ বিতরণ ◈ নীলফামারীতে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সরকারী বরাদ্দের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ ◈ হাজার বছর নয়-সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান —পুলিশ সুপার, নওগাঁ ◈ লালমনিরহাটে বার্তা বাজার এর ৭ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত ◈ রূপগঞ্জে জালিয়াতি করে কোটি টাকার সম্পত্তি আত্মসাতের চেষ্টা ◈ কুড়িগ্রামে বিআরটিসি বাস ও প্রাইভেটকার মুখোমুখি সংঘর্ষে  নিহত ৪ ◈ সিরাজগঞ্জে অটোরিকশা চালককে শ্বাসরোধ করে হত্যা

মেয়ের ধর্ষণের বিচার পাননি, উল্টো মিথ্যা মামলায় হাজিরা দিচ্ছেন টিএসসি’র স্বপন মামা

প্রকাশিত : ০৮:১১ PM, ১৬ জানুয়ারী ২০২০ Thursday ৩৮৪ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

ঢাকা- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের (টিএসসি) পরিচিত মুখ চা বিক্রেতা স্বপন মামা। প্রকৃত নাম আব্দুল জলিল হলেও, টিএসসিতে সবার কাছে স্বপন মামা নামেই তিনি অধিক পরিচিত।

প্রায় চার দশক ধরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় চা বিক্রেতা হিসেবে কাটানো আব্দুল জলিল তার মেয়েকে ধর্ষণের বিচার পাননি, বিচার চাইতে গিয়ে উল্টো তার বিরুদ্ধেই হয়রানিমূলক মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সম্প্রতি ঢাবির এক শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের প্রতিবাদে রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে শিক্ষার্থীদের এক মানববন্ধনে এসে সংহতি প্রকাশ করেন আব্দুল জলিল ওরফে স্বপন মামা। সংহতি প্রকাশের সময় বক্তব্য দিতে গিয়ে নিজের মেয়ের ধর্ষণের কথা বলে কেঁদে ফেলেন তিনি।

এবার টিএসসির সেই চা বিক্রেতা ‘স্বপন মামা’র পাশে এসে দাঁড়ালো বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি-ভিত্তিক সব সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন ও ডাকসুর নেতারা। গতকাল বুধবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির (ডুজা) কক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলন থেকে স্বপন মামার মেয়ের ধর্ষকের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ঢাবি সাংবাদিক সমিতির সভাপতি আবির রায়হান। তিনি বলেন, টিএসসি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণ, বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক মিলন কেন্দ্র। স্বপন মামা এই টিএসসি পরিবারের একজন। তিনি টিএসসিতে চা বিক্রি করেন। কয়েক যুগ ধরে টিএসসিতে চা বিক্রি করতে করতে তিনি টিএসসির একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে উঠেছেন। তার চায়ের কাপ হাতে আমরা স্বপ্ন বুনি, গান গাই। আন্দোলন-সংগ্রাম, আনন্দ-আবেগ, প্রেম-বিরহ ইত্যাদি আমাদের জীবনের বিচিত্র নানা গল্পের সারথি স্বপন মামার চা। টিএসসি মনে মাথা উঁচু করে বাঁচা। প্রগতিশীলতা, সুস্থ সংস্কৃতির অগ্রযাত্রা, সুন্দর সমাজ বিনির্মাণে সদা জাগ্রত এই প্রাঙ্গণ। অথচ এই জগ্রত পরিবারের সুদীর্ঘকালের সারথি স্বপন মামাই আজ একজন নির্যাতিত মানুষের নাম।

তিনি বলেন, স্বপন মামার মানসিক ভারসাম্যহীন মেয়েকে গত বছর ধর্ষণ করে তার গ্রামের এক লম্পট। বিচার চাইতে থানায় মামলা করেন ব্যথিত পিতা, আমাদের স্বপন মামা। অভিযুক্ত ধর্ষকের গেফতার হওয়ার পর সুবিচার পাওয়ার দিন গুনলেন স্বপন মামা ও তার পরিবার। অথচ সম্প্রতি জামিনে ছাড়া পেয়ে সেই অভিযুক্ত ধর্ষক উল্টো স্বপন মামা ও তার ছেলের নামে মিথ্যা, হয়রানিমূলক মাদকের মামলা করেছে। সার্বভৌম দেশের স্বাধীন বিচারব্যবস্থার কাছে নাবালিকা মেয়ের ধর্ষণের বিচারপ্রার্থী বাবা উল্টো নিয়মিত হেনস্থার শিকার হচ্ছেন ধর্ষকের সাজানাে মিথ্যা মামলায়। মেয়ের প্রতি জঘন্য অবিচারের বিরুদ্ধে বিচার পেতে দেশের বিচার ব্যবস্থার কাছে গেলেন বাবা, অথচ বিনিময়ে হলেন মিথ্যা মামলার আসামি। এখন তাকে নিয়মিত পুলিশ আদালতে হাজির হতে হয়। মেয়ের বিচারের দাবিতে নয়, নিজের বিরুদ্ধে করা হয়রানিমূলক প্রকাশ্য মিথ্যা মামলার আসামি হিসেবে হাজিরা দিতে।”

টিএসসি সব সময়ই সামাজিক অনাচারের বিরুদ্ধে সদা তৎপর উল্লেখ করে ডুজার সভাপতি বলেন, ধর্ষণ ও নিপীড়নের বিরুদ্ধে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধি হয়ে আমরা, টিএসসির সকল সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন ঐক্যবদ্ধভাবে আন্দোলন করে আসছি বহুবছর ধরে। আমাদের পরিবারের অংশীজন, আমাদের আত্মজ স্বপন মামার জীবনে ঘটে যাওয়া এ ঘটনায় আমরা যারপরনাই মর্মাহত। সদা হাস্যোজ্জ্বল, ক্যাম্পাসের যুগ যুগান্তরের প্রিয়মুখ স্বপন মামার মেয়ে, আমাদের ছোটবোনের সাথে ঘটে যাওয়া এ পৈশাচিক অপরাধের বিরুদ্ধে আমরা তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। আমরা ধর্ষকের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করছি।

এদিন সংবাদ সম্মেলন থেকে টিএসসি কেন্দ্রিক সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে মানববন্ধন কর্মসূচি ঘোষণা করে। এছাড়া বিকেল ৩টায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও প্রতিবাদ কর্মসূচি ঘোষণা করে।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর ‘স্বপন মামা’র প্রতিবন্ধী মেয়েকে একই গ্রামের বাচ্চু মিয়া (৭০) ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। ওইদিনই অভিযুক্তসহ তার দুই ভাই বাহার ও আক্কাসকে আসামি করে মামলা করার পর বাচ্চু মিয়াকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এর ছয় মাস পর অভিযোগপত্র জমা দেয়া হলেও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল থেকে আসামি ২৭ নভেম্বর জামিন পান। এরপর আসামিপক্ষের লোকজন স্বপন, তার ছেলে রনি এবং চাচাতো ভাইকে আসামি করে প্রথমে মাদকের ও ডাকাতির মামলা করে।

অভিযোগ উঠেছে, বাহ্মণবাড়িয়া সদরের বাসুদেব গ্রামের সেই বাচ্চু মিয়া এখন আরও বেপরোয়া। মামলা তুলে নিতে ‘স্বপন মামা’ এবং তা পরিবারকে নানা ধরণের হুমকি-ধামকি দিচ্ছেন। এমনকি পরিবারের অন্য সদস্যদের সঙ্গেও একই ধরণের কাজ করার হুমকি দিচ্ছেন তারা। এতে ন্যায়বিচার পাওয়া থেকে তারা বঞ্চিত হতে পারেন বলে শঙ্কায় পরেছে স্বপন মামা ও তার পরিবার।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT