রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

রবিবার ০১ নভেম্বর ২০২০, ১৭ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

০৭:১০ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম
◈ মুরাদ নূরের সুরে কাজী শুভর ‘ইচ্ছে’ ◈ রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলা বিএনপির আয়োজনে মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত ◈ ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে বান্দরবানে পালিত হচ্ছে প্রবারণা পূর্ণিমা ◈ ফ্রান্সে বিশ্বনবীকে নিয়ে কটুত্তির প্রতিবাদে ভূঞাপুরে বিক্ষোভ মিছিল ◈ রায়পু‌রে ক‌মিউ‌নি‌টি পু‌লি‌শিং ডে-২০২০ উদযা‌পিত ◈ কাপাসিয়ায় কমিউনিটি পুলিশিং ডে উপলক্ষে মতবিনিময় সভা ◈ কটিয়াদীতে ট্রিপল মার্ডার : মা ভাইবোন সহ ৯ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের ◈ হরিরামপুরে চুরির অভিযোগে যুবককে পিটিয়ে জখম ◈ কমিউনিটি পুলিশিং ডে-২০২০ উপলক্ষে মধ্যনগর থানায় আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত ◈ রাসুলকে (সাঃ)’র অপমানের প্রতিবাদে কাপাসিয়া কওমী পরিষদের বিক্ষোভ সমাবেশ

মেঘনার ভাঙনে বিলীন মসজিদ স্বাস্থ্যকেন্দ্র সাইক্লোন শেল্টার!

প্রকাশিত : ০৬:৩৩ AM, ৩ অক্টোবর ২০১৯ Thursday ১৭১ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

কমলনগর (লক্ষ্মীপুর) : উপজেলার চর ফলকন গ্রামে মেঘনার ভাঙনে বিলীন হচ্ছে সাইক্লোন শেল্টার ও কমিউনিটি স্বাস্থ্যকেন্দ্র

লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে মেঘনা ভাঙন অতিসম্প্রতি তীব্র আকার ধারণ করেছে। গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে উপজেলার চরফলকনের লুধুয়া এলাকায় নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে মসজিদ, কমিউনিটি হেলথ সেন্টার, প্রাথমিক বিদ্যালয় কাম সাইক্লোন শেল্টারসহ মোট চারটি ভবন। একই চিত্র উপজেলার তীরঘেঁষা ১৫ কিলোমিটার জুড়ে। আতঙ্কে দিন পার করছে কমলনগরবাসী।

অধিক ভাঙন কবলিত চরকালকিনি, সাহেবেরহাট, চরফলকন, পাটাওয়ারীরহাট ও চরমার্টিন ইউনিয়ন পরিষদ সূত্রে জানা যায়, গত ৮-১০ বছরের ব্যবধানে নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে ১৬টি ইউপি ওয়ার্ড, ১৭টি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ১০টি সাইক্লোন শেল্টার, ৩টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ৪টি দাখিল ও আলিম মাদ্রাসা, ১০টি কমিউনিটি ক্লিনিক, ২টি আশ্রয়ণ প্রকল্প, ছোটো-বড়ো মিলিয়ে ৬টি বাজার, ১টি ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয় ও ১টি ইউনিয়ন ভূমি অফিস। এছাড়া নদীতে বিলীন হয়েছে গ্রাম, বাস্তুভিটাসহ ব্যাপক ফসলি জমি।

মেঘনার মোহনায় অবস্থিত কমলনগর। প্রতিবছর উজান থেকে নেমে আসা নদীগুলো বয়ে আনা বালু ও কাঁকর। ফলে নদীর মূল চ্যানেল ভরাট হয়ে গেছে। নদীতে জেগে উঠেছে অসংখ্য ডেগাচর-ডুবোচর। এ প্রসঙ্গে বাসদ লক্ষ্মীপুর জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মিলন মণ্ডল বলেন, দীর্ঘদিন থেকে আমরা নদীকে ক্যাপিটাল ড্রেজিংয়ের আওতায় নেওয়ার দাবি করে আসছি, যা দেশি-বিদেশি নদী ও পানি বিশেষজ্ঞদের প্রস্তাবনা। ড্রেজিংয়ের দাবিতে আমাদের পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সামাজিক সংগঠন দীর্ঘদিন যাবত্ মানববন্ধন, স্মারকলিপি প্রদান, পদযাত্রা, হরতালসহ নানা কর্মসূচি পালন করেছি। কিন্তু প্রকল্প নেওয়া হয় তীর রক্ষাবাঁধ, আউটারবেড়ি কিংবা ব্লক বা পাথর ফেলার কর্মসূচি, যার অধিকাংশই বিলীন হয়ে যায়, অপরদিকে নদীও শাসন হয় না।

জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী ফারুক আহমেদ বলেন, নদী ভাঙনের এমন বিধ্বংসী রূপ অতীতে কোথাও আমার নজরে পড়েনি। তিনি আরো বলেন, বর্তমানে অধিক ভাঙনকবলিত এলাকায় আমরা আপত্কালীন জরুরি মেরামতের কাজ করছি। এরই মধ্যে রামগতি কমলনগর তীর রক্ষা প্রকল্প ২য় পর্যায়ের ডিপিপি প্রস্তুত করেছি। অচিরেই বিবেচনার জন্য পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করব। প্রকল্পে রামগতি কমলনগরের ৩১ কিলোমিটার তীর রক্ষাবাঁধের জন্য প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়েছে ৩ হাজার ৭০০ কোটি টাকা। ড্রেজিং বিষয়ে তিনি বলেন, বর্তমানে এক কিউবিক মিটার ড্রেজিং করতে গড়ে ১৯০ টাকার প্রয়োজন, এত বিশাল মেঘনা নদী ড্রেজিংয়ের অর্থ ব্যয়ের বাস্তবতা রাষ্ট্রের নেই। তবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ১০০ বছরব্যাপী ডেল্টা প্ল্যান হাতে নিয়েছেন, সে অনুযায়ী দেশের ছোটো নদী ও খালসমূহ খনন চলছে। দেশের সমস্ত নদী-খাল খননের পর নিচের মুখ খোলা হবে। মেঘনাকে ক্যাপিটাল ড্রেজিংয়ের আওতায় তখন আনা হবে।

লক্ষ্মীপুর-৪ (রামগতি-কমলনগর) আসনের সংসদ সদস্য মেজর (অব.) আবদুল মান্নান বলেন, ২০১৪ সালে ১ হাজার ৩০০ কোটি টাকা ব্যয়ে রামগতি-কমলনগর মেঘনার তীর রক্ষাবাঁধ (প্রথম পর্যায়) প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছিল। সে মোতাবেক ২৯৮ কোটি টাকা ব্যয়ে রামগতি ৪ কিলোমিটার এবং কমলনগর ১ কিলোমিটার তীর রক্ষাবাঁধ নির্মাণও করা হয়। কিন্তু অজ্ঞাতকারণে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় প্রকল্পটি বন্ধ করে দেয়। এখন আবার ডিপিপি প্রেরণ করা হচ্ছে, আশাকরি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় মানবিক কারণে বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে রামগতি-কমলনগর রক্ষায় এগিয়ে আসবেন।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT