রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

বুধবার ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

০৩:২৯ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম
◈ রাজশাহীতে রাটা’র প্রথম সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত ◈ মোড়ক উম্মোচন হলো উন্মেষ সাহিত্য সাময়িকীর ‘বিজয় সংখ্যা ২০২০’ ◈ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নাম পরিবর্তনের প্রতিবাদে নারায়ণগঞ্জ ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ◈ শাহজাদপুর পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে ৫ ও কাউন্সিলর ৬০ জন প্রার্থী ◈ বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণে বিরোধীতার প্রতিবাদে সোনারগাঁয়ে বিক্ষোভ ◈ মধ্যনগরে বসবাসরত পঙ্গু গোপেন্দ্র দাস খাস ভূমি বন্দোবস্ত চায় ◈ সরকারের বিরুদ্ধে যেকোনো ষড়যন্ত্র ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিহত করা হবে: এমপি শাওন ◈ বিশ্ব এইডস দিবস : ভয়াবহ মরণব্যাধি এইডস ◈ ভিবিডি গোপালগঞ্জ জেলা কর্তৃক আয়োজিত “আনন্দ আহার” ◈ সম্প্রীতির হবিগঞ্জ সংগঠনের জেলা শাখার সিনিয়র সদস্য নির্বাচিত হলেন শুভ আহমেদ

মালামালসহ দোকান ঘর পেলো জলপাই বিক্রেতা দুলাল

প্রকাশিত : ০২:১২ AM, ২২ নভেম্বর ২০২০ Sunday ১২৮ বার পঠিত

রনজিত কুমার রায়, লালমনিরহাট প্রতিনিধি:
alokitosakal

রনজিৎ কুমার রায়, লালমনিরহাট প্রতিনিধি: লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার অধ্যুষিক তিস্তা চরে গড়ে ওঠা মটুকপুর সরকারি আশ্রয়ন কেন্দ্রে বসবাসরত দরিদ্র দিনমজুর বৃদ্ধ একরা মিয়ার (৬০)। পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যাক্তি তিনি। তবে বয়সের ভাড় এবং অসুস্থ থাকায় এখন দিনমজুরি করতে পারেন না। এই অবস্থায় পরিবারের ছয় সদস্য নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করতে হচ্ছে তার।

ঘরে খাবার না থাকায় পরিবারের সদস্যদের মাঝে মাঝে উপসে দিন কাটাতে হয়। পরিবারের এমন কষ্ট দেখে একরা মিয়ার বড় ছেলে দুলাল হোসেন (১২) নেমে পড়ে সিদ্ধ জলপাই বিক্রির ব্যবসায় । বিভিন্ন গাছ থেকে জলপাই সংগ্রহ করে বাড়িতে এনে তা সিদ্ধ করে বিভিন্ন পাড়া-মহল্লায় বিক্রি শুরু করে । এতে দিনে যা বিক্রি হয় তা দিয়ে একবেলা খাবার জোটে ছয় সদস্যের পরিবারের।

সংসারের অভাব-অনটনের কারণে পরিবার থেকে খরচ জোগান দিতে না পারায় তৃতীয় শ্রেণি থেকেই লেখাপড়া বন্ধ হয় দুলালের । পরিবারে দুই বোন ও দুই ভাইয়ের মধ্যে সবার বড় দুলাল । সাত বছর বয়সে মাকে হারায় সে। এরপর তার বাবা নতুন বিয়ে করে।

তিস্তা চরের মটুকপুর সরকারি আশ্রয়ন কেন্দ্রে গিয়ে দেখা গেছে, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন মানুষ মানুষের জন্য (মামাজ) সদস্যরা দুলাল হোসেনের বাড়ির পাশে টিন দিয়ে একটি দোকান ঘর তৈরি করে মালামালসহ তাকে দোকানে বসিয়ে দিয়েছেন।

দোকান পেয়ে দুলালের পরিবার আনন্দে আত্মহারা হয়ে পড়ে। তারা কখনো ভাবেননি তাদের নিজেদের একটি দোকান হবে।

পরিবার ও স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, মায়ের মৃত্যুর পর আট বছর বয়সে ঢাকায় গিয়ে বাসাবাড়িতে কাজ শুরু করে দুলাল । করোনাভাইরাস মহামারি শুরু হলে ফিরে আসে নিজ বাড়িতে। এরপর কখনো সিদ্ধ জলপাই, কখনো সিদ্ধ ডিম বা আচার বিক্রি করে সংসার চালাতো সে।

সম্প্রতি কালীগঞ্জ উপজেলার তুষভান্ডার রেলস্টেশনে তার সিদ্ধ জলপাই বিক্রির একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যেম ফেসবুকে ব্যাপক সারা ফেলে। এতে দুলালকে সহযোগিতা করতে এগিয়ে আসে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। তাকে একটি মুদি দোকান তৈরি করার জন্য সবাই অর্থ দেন। সেই অর্থ দিয়ে মালামালসহ মুদি দোকান তৈরি করে দেয় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন মানুষ মানুষের জন্য (মামাজ)।

মটুকপুর গ্রামের স্কুল শিক্ষক আবু তালেব বলেন, ‘দুলাল হোসেনের বাবা অসুস্থ হওয়ার পর থেকে অনেক কষ্টে পরিবারটি চলে। পরিবারের পাশে থেকে সবাই এভাবে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলে পরিবারটির আরও উপকার হতো।’

মামাজ প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সাব্বির আহম্মেদ বলেন, ‘দুলালের সিন্ধ জলপাই বিক্রির দৃশ্য দেখে আমরা এগিয়ে আসি। তার পরিবার অসহায় এবং দরিদ্র। আমরা তাকে একটি মালামালসহ নতুন দোকান করে দিতে পরে অত্যন্ত খুশি।’ তিনি আরো বলেন, মানবতার সেবায় আমরা সবসময় কাজ করে থাকি। আমাদের এই কাজ অব্যাহত থাকবে।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT